উত্তর প্রদেশে ইতিহাস, বিজেপিকে ঠেকাতে মৈনপুরীতে নেতাজির হয়ে করজোড়ে ভোট ভিক্ষা বহেনজির

ফের শিরোনামে মৈনপুরী। প্রায় দু’দশক পরে ফের এক মঞ্চে দেখা গেল মুলায়ম সিংহ যাদব ও মায়াবতীকে। শুধু তাই নয়, উপচে পড়া জনসভায় করজোড়ে নেতাজির জন্য ভোট চাইলেন খোদ বহেনজি। নতুন ইতিহাস তৈরি হল দেশের সবচেয়ে গুরুত্বপূর্ণ অঙ্গরাজ্য, উত্তর প্রদেশের রাজনীতিতে।
বছর ২৪ আগে লখনউ গেস্ট হাউস কাণ্ডের পর মায়াবতী ও মুলায়ম সিংহ যাদবের দলের সম্পর্ক তলানিতে পৌঁছয়। অভিযোগ, লখনউ গেস্ট হাউসে সপা কর্মীরা হেনস্থা করেন মায়াবতীকে। তারপর পেরিয়েছে বহু সময়। বিজেপি বিরোধিতার সূত্রে দীর্ঘদিনের বৈরিতা ছেড়ে পরস্পর হাত মিলিয়েছে সপা-বসপা।

আর মায়াবতীর সঙ্গে জোট নিয়ে, মুলায়ম সিংহও যে খুশি ছিলেন এমনটা মোটেই নয়। বরং জোট করায়, প্রকাশ্যেই ছেলে অখিলেশের তীব্র সমালোচনাও করেন তিনি। কিন্তু শুক্রবার দেখা গেল স্বয়ং মুলায়ম সিংহ যাদবের সমর্থনে তাঁর কেন্দ্রে দাঁড়িয়ে সভা করছেন মায়াবতী। প্রধানমন্ত্রী নরেন্দ্র মোদী ও বিজেপিকে তীব্র আক্রমণ করে, একে অন্যকে প্রশংসায় ভরিয়ে দিলেন মুলায়ম ও মায়াবতী।
মৈনপুরীর সভায় মায়াবতী বললেন, মুলায়ম সিংহ যাদব মোদীজির মতো ভণ্ড নন, তিনি প্রকৃতই পিছিয়ে পড়া শ্রেণির নেতা। মায়াবতী আরও বলেন, রাজনীতিতে একটা সময় আসে, যখন কঠিন সিদ্ধান্ত নিতে হয়, বৃহত্তর স্বার্থের কথা ভাবতে হয়। শুক্রবারের সভার শুরু থেকেই মুলায়ম এবং মায়াবতী পাশাপাশি বসেন। আর মুলায়ম সিংহ যাদব বললেন, চিরকাল মায়াবতীজিকে সম্মান করে এসেছি। উত্তর প্রদেশের রাজনীতির এই বিরল দৃশ্য বিজেপির কপালের ভাঁজ আরও বাড়াবে বলে মনে করছেন রাজনৈতিক বিশেষজ্ঞরা।

Comments
Loading...