ব্রিগেডের মেনু: থাকছে রুটি-তরকারির প্যাকেট, দরজায় দরজায় ঘুরে শুকনো খাবার সংগ্রহ সিপিএমের     

থাকছে মুড়ি, চানাচুর

রাজ্য রাজনীতিতে ‘ডিম ভাত’ এখন বেশ পরিচিত শব্দ। ২১ জুলাই সমাবেশে তৃণমূল একবার ডিম ভাত খাইয়েছিল। সেই  প্রথম ‘ডিম ভাতের’ আগমন বাংলার রাজনীতিতে। সম্প্রতি রাজ্য সরকারের মায়ের রান্নাঘর প্রকল্পে ৫ টাকায় ডিম ভাত রীতিমত সাড়া ফেলে দিয়েছে রাজ্যে। 

২৮ তারিখ বাম কংগ্রেস জোটের ব্রিগেড সমাবেশ। ইতিমধ্যেই অনেক জেলা থেকে কর্মী সমর্থকেরা এসে পৌঁছেছেন। এত লোকের জন্য খাওয়া দাওয়ার প্রশ্ন আসতেই ফের হাজির ডিম ভাত প্রসঙ্গ। তবে বাম নেতৃত্ব জানাচ্ছেন  বিগ্রেড অংশগ্রহণকারীদের জন্য মেনুতে থাকছে রুটি সব্জির প্যাকেট। রুটি তরকারির পাশাপাশি রাজ্যের বিভিন্ন প্রান্ত থেকে আসা সমর্থকদের জন্য শুকনো খাওয়ারেরও ব্যবস্থা রাখছেন  আয়োজকরা। সিপিএম নেতৃত্ব জানাচ্ছেন একসঙ্গে এত রান্না হবে না। সিপিএমের প্রতিটি এরিয়া কমিটি নির্দিষ্ট সময়ের মধ্যে রুটি তরকারি পৌঁছে দেবে।  পাশাপাশি কর্মী সমর্থকরা মানুষের দরজায় দরজায় ঘুরে শুকনো খাওয়ার সংগ্রহ করছেন ।  থাকছে মুড়ি, চানাচুর।  

খাওয়া দাওয়ার পাশাপাশি জেলা থেকে আসা সমর্থকদের রাতে থাকার জন্য কলকাতায় কয়েকটি কমিউনিটি হল ভাড়া করা হয়েছে কংগ্রেসের তরফে। ব্রিগেডের মাঠেও তাবু খাটিয়ে থাকার ব্যবস্থা করা হয়েছে।  

[আরও পড়ুন- ৪ মার্চ প্রার্থী তালিকা ঘোষণা বামেদের, জেলা থেকে রিপোর্ট চাইল আলিমুদ্দিন]

শনিবার পুনরায় বামফ্রন্টের চেয়ারম্যান বিমান বসু শেষ বেলার প্রস্তুতি দেখে গেছেন।  সিপিএম কংগ্রেস এর পাশাপাশি এবারে ব্রিগেড থাকবে আব্বাস সিদ্দিকর দলও।  তাঁদের কর্মী সমর্থকেরাও আসবেন। সবমিলিয়ে বাম কংগ্রেস জোটের ব্রিগেড সমাবেশকে ঐতিহাসিক করতে কোনও ফাঁক রাখতে নারাজ নেতৃত্ব।  

 

Comments
Loading...