মোদীর টার্গেট বাংলা, মমতার লক্ষ্য দিল্লিঃ চড়া সুরে আক্রমণ-প্রতি আক্রমণে রাজ্যে প্রচার শুরু প্রধানমন্ত্রী-মুখ্যমন্ত্রীর

২০১৪ সালে কৃষ্ণনগরের জনসভা থেকে নরেন্দ্র মোদী বলেছিলেন, রাজ্য থেকে সমস্ত অনুপ্রবেশকারীকে বের করে দেওয়া হবে। তার এক ঘণ্টার মধ্যে মোদীকে জবাব দিয়েছিলেন মমতা বন্দ্যোপাধ্যায়। বলেছিলেন, ‘তুমি কোন হরিদাস পাল? ক্ষমতা থাকলে কোমরে দড়ি পরাতাম’!
৫ বছর বাদে আর একটা লোকসভা ভোটের আগে ফের মোদী-মমতার বাগযুদ্ধ দিয়েই শুরু হল রাজ্যে প্রচার পর্ব। অনুপ্রবেশ, সিবিআই, দুর্নীতি, এয়ার স্ট্রাইক থেকে শুরু করে নানান ইস্যুতে একে অপরকে আক্রমণ-প্রতি আক্রমণ শানালেন প্রধানমন্ত্রী এবং রাজ্যের মুখ্যমন্ত্রী। শিলিগুড়ি, ব্রিগেড প্যারেড গ্রাউন্ড এবং দিনহাটার জনসভা থেকে একে অপরের বিরুদ্ধে প্রবল আক্রমণের মধ্যে দিয়েই রাজ্যে ভোটের ঢাকে আনুষ্ঠানিকভাবে কাঠি পড়ে গেল।
সারদা থেকে সেনা, দুর্নীতি থেকে কর্মসংস্থান, সব ইস্যুতেই প্রথমে শিলিগুড়ি এবং পরে ব্রিগেড থেকে মমতা বন্দ্যোপাধ্যায়ের উদ্দেশে তোপ দেগেছেন মোদী। কোচবিহারের দিনহাটার সভামঞ্চ থেকে পাল্টা জবাব দিয়েছেন মমতা।
ভোটে জিততে বিজেপির নবতম হাতিয়ার সেনা। এদিন ব্রিগেডের মঞ্চ থেকে সেই সেনাবাহিনীকে নিয়ে মমতার দিকে আঙুল তোলেন মোদী। পুলওয়ামার ঘটনার পর বালাকোটে এয়ার স্ট্রাইক নিয়ে তাঁর মন্তব্য, জঙ্গিদের লাশ দেখতে চেয়ে মমতা আসলে সেনার মনোবল ভাঙার কাজ করেছেন। পাল্টা জবাব দিয়েছেন তৃণমূল নেত্রী। মমতা বলেন, লজ্জা নেই সেনাকে নিয়ে রাজনীতি করছেন! পাশাপাশি মমতা বন্দ্যোপাধ্যায় দরিদ্রদের নিয়ে রাজনীতি করেন, এই অভিযোগ করেছিলেন মোদী। বলেছিলেন, গরিব মানুষ না থাকলে মমতার রাজনীতি বন্ধ হয়ে যাবে। মোদীকে পাল্টা এক্সপায়ারি বাবু বলে কটাক্ষ করে দিনহাটার সভা থেকে তারও জবাব দেন মমতা। গরিবদের জন্য কে কত কাজ করেছে, মোদীকে চ্যালেঞ্জ ছুঁড়ে সরাসরি সেই বিতর্কে নামারও আহ্বান জানান তিনি। দিনহাটার সভায় মমতা বলেন, বিজেপি যদি খেতে দেয়, খেয়ে নিন, জিনিস দিলে, বাড়িতে রেখে দিন কিন্তু একটি ভোটও বিজেপিকে দেবেন না।
পাশাপাশি কংগ্রেস-সিপিএমকেও ভোট দিতে বারণ করে মমতা বলেন, রাজ্যে বিজেপির বিরুদ্ধে তৃণমূলই লড়াই করবে। এদিন মোদীর ব্রিগেডের সভাকে কটাক্ষ করে মমতা বলেন, টাকার হাঙররা হ্যাঙারে মিটিং করছে। বিজেপির প্রতিটি সভাতে কোটি কোটি টাকা খরচ হচ্ছে বলে অভিযোগ করে মমতার প্রশ্ন, বিজেপি এত টাকা পাচ্ছে কোথা থেকে? বিজেপি ফের জিতে এলে সংবিধান বদলে ভোট বন্ধ করে দেবে বলেও এদিন দাবি করেন মমতা বন্দ্যোপাধ্যায়। দুর্নীতি নিয়েও মমতা বন্দ্যোপাধ্যায়ের দিকে আক্রমণ শানিয়েছেন নরেন্দ্র মোদী। পাল্টা জবাব দিয়েছেন মমতাও। অসমের উপমুখ্যমন্ত্রীকে নিশানা করে মমতার বক্তব্য, সব কাগজপত্র আমার কাছে রাখা আছে। একবার তাতে চোখ বুলিয়ে নিন। পাশাপাশি বিজেপি দাগীদের প্রার্থী করে বলেও এদিন অভিযোগ করেন মমতা। কোচবিহারের বিজেপি প্রার্থীর বিরুদ্ধে সিবিআই তদন্ত চলছে বলে এদিন মঞ্চে একটি কাগজ দেখান তৃণমূল নেত্রী। তাঁর অভিযোগ, কেন্দ্রীয় এজেন্সিগুলিকে ব্যবহার করে ধমকের রাজনীতি করছে বিজেপি। বাংলায় বিজেপির এই কৌশল কাজ করবে না বলেও দাবি মমতার। তৃণমূল নেত্রী বলেন, দিল্লিতে এবার চাই জনগণের সরকার। সেই পথ বাংলাই দেখাবে বলেও বলেন মমতা বন্দ্যোপাধ্যায়।

Comments
Loading...