ভবানীপুরকে হারিয়ে লিগের লড়াইয়ে মোহনবাগান, ২-০ গোলে জয় সবুজ-মেরুনের

কলকাতা লিগের ম্যাচে জয়ে ফিরল মোহনবাগানও। বৃহস্পতিবার কল্যাণীতে লিগ চ্যাম্পিয়নশিপের দৌড়ে থাকা ভবানীপুরকে ২-০ গোলে হারাল মোহনবাগান। সবুজ-মেরুন ব্রিগেডের হয়ে গোল করেন রোমারিও জেসুরাজ এবং নাওরেম। এই জয়ের পরে ৫ ম্যাচ খেলে ৮ পয়েন্টে পৌঁছালো মোহনবাগান। লিগ চ্যাম্পিয়নশিপে দৌড়ে ঢুকে পড়ল কিবু ভিকুনার দল।
কলকাতা লিগের ডার্বিতে জিততে পারেনি মোহনবাগান। তবে সবুজ-মেরুন ব্রিগেডের খেলা প্রশংসিত হয়েছিল সব মহলে। ময়দানে রীতি হল, বড় ম্যাচে ভালো খেলা দল পা ফসকায় পরের ম্যাচে। তারপর বিপক্ষ দলের কোচ শঙ্করলাল চক্রবর্তী। চ্যাম্পিয়নশিপের দৌড়েও আছে ভবানীপুর। আশঙ্কা ছিল। তবে সেই আশঙ্কা সত্যি হয়নি। ‘ঘরের দল’ এর বিরুদ্ধে স্বস্তির জয় পেল মোহনবাগান। দলের আক্রমণ তৈরির মূল অস্ত্র বেইতিয়াকে বিশ্রাম দিয়েছিলেন মোহনবাগান কোচ কিবু ভিকুনা। তবে তাতে গোল পেতে কোনও অসুবিধা হয়নি। ২৯ মিনিটে এগিয়ে যায় মোহনবাগান। মোহনবাগানের হয়ে গোল করেন রোমারিও জেসুরাজ। প্রথমার্ধের শেষ মুহূর্তে ব্যবধান বাড়ানোর সহজতম সুযোগ পেয়েছিল মোহনবাগান। তবে সেই সুযোগ নষ্ট করেন স্প্যানিশ স্ট্রাইকার সালভা চামোরো।
তবে দ্বিতীয়ার্ধের শুরুতেই গোল পেয়ে যায় মোহনবাগান। সবুজ-মেরুনের হয়ে ব্যবধান  বাড়ান নাওরেম। এই সময়ই লাল কার্ড দেখে মাঠ ছাড়েন ভবানীপুরের অনুপ দাস। কাজটা আরও সহজ হয়ে যায় মোহনবাগানের। ১০ জনের ভবানীপুরের বিরুদ্ধে গোল ধরে রাখতে অসুবিধা হয়নি সবুজ-মেরুন ফুটবলারদের।
মোহনবাগানের পরের ম্যাচ রবিবার। প্রতিপক্ষ জজ টেলিগ্রাফ। জর্জ ইতিমধ্যেই ইস্টবেঙ্গলকে হারিয়েছে। লিগ চ্যাম্পিয়নশিপের অন্যতম দাবিদারও। তাই এই ম্যাচ অনেকাংশেই কলকাতা লিগ নির্ধারক হতে চলেছে।

Comments
Loading...