ব্যস্ততার কথা বলে হাজিরা এড়ালেন মুকুল রায়, আসতে হবে শনিবার, চিঠি পেয়ে জানাল সিবিআই

রাজনৈতিক কর্মসূচি রয়েছে। তা নিয়ে ব্যস্ততার জন্য সিবিআইয়ের সামনে হাজির হতে পারছেন না। চিঠি দিয়ে জানালেন বিজেপি নেতা মুকুল রায়। সেক্ষেত্রে আসতে হবে শনিবার, মুকুলের পত্রবাহককে জানিয়ে দিল সিবিআই।

শুক্রবার সকালে মুকুল রায়কে নিজাম প্যালেসে ডেকে পাঠিয়েছিল সিবিআই। উদ্দেশ্য ছিল নারদ কাণ্ডে ধৃত এসএমএইচ মির্জার মুখোমুখি তাঁকে বসিয়ে সত্য অনুসন্ধান। কিন্তু শুক্রবার সকাল পৌনে ১১ টা নাগাদ মুকুল রায়ের চিঠি নিয়ে নিজাম প্যালেসে হাজির হন দুই ব্যক্তি। তাঁরা সেই চিঠি সিবিআই আধিকারিকদের হাতে তুলে দেন।

নারদ কাণ্ডে আইপিএস এমএসএইচ মির্জাকে গ্রেফতারের পরেই বিজেপি নেতা মুকুল রায়কে নোটিস পাঠায় সিবিআই। শুক্রবার সকাল ১১ টায় মুকুল রায়কে নিজাম প্যালেসে হাজিরার নির্দেশ দেওয়া হয়েছিল। যদিও নোটিসের প্রেক্ষিতে মুকুল রায় জানিয়েছেন, এদিন দলের বেশ কয়েকটি কর্মসূচির জন্য তিনি হাজিরা দিতে পারবেন না। তাঁর ২ প্রতিনিধিকে দিয়ে সিবিআই দফতরে এই মর্মে চিঠি পাঠান বিজেপি নেতা। সিবিআইকে পাঠানো চিঠিতে তিনি আবেদন করেন, তাঁকে আরও কিছুদিন সময় দেওয়া হোক। দলীয় কাজে এখন তিনি ব্যস্ত। যদিও সিবিআই সূত্রে খবর, সেক্ষেত্রে শনিবার তাঁকে হাজিরা দিতে হবে।
২০১৬ সালে নারদ স্টিং অপারেশনে একাধিক তৃণমূল নেতা এবং আইপিএস অফিসার মির্জাকে টাকা নিতে দেখা গিয়েছিল। বৃহস্পতিবারই গ্রেফতার করা হয়েছে তাঁকে। নারদ স্টিং অপারেশনের ওই ভিডিওতে হলুদ টি-শার্ট পরা মির্জাকে বলতে শোনা গিয়েছিল, তৎকালীন তৃণমূল নেতা মুকুল রায়ের হয়ে তিনি টাকা নিচ্ছেন। সেইসঙ্গে শাসক দলের একাধিক নেতা সম্পর্কে চাঞ্চল্যকর মন্তব্য করতে শোনা গিয়েছিল আইপিএস মির্জাকে। একই ভিডিওর আরেকটি অংশে মুকুল রায়কে মির্জার সঙ্গে যোগাযোগ করতে বলার কথাও শোনা গিয়েছে। এই প্রেক্ষিতে আইপিএস মির্জাকে গ্রেফতারের পরেই জিজ্ঞাসাবাদের জন্য মুকুল রায়কে নোটিস পাঠায় সিবিআই। সূত্রের খবর, আইপিএস মির্জা ও মুকুল রায়কে মুখোমুখি বসিয়ে জেরা করবেন কেন্দ্রীয় তদন্তকারী অফিসাররা।
যদিও তৃণমূল ছেড়ে বিজেপিতে যোগ দেওয়া মুকুল রায় টাকা নেওয়ার কথা অস্বীকার করেছেন।

Comments
Loading...