নামাজের জন্য মসজিদ অত্যাবশ্যক নয়, অযোধ্যা মামলা নিয়ে পুরনো রায় বহাল সুপ্রিম কোর্টের

নামাজ পড়ার জন্য মসজিদ অত্যাবশ্যক নয়, যে কোনও জায়গাতেই তা পড়া যেতে পারে, ১৯৯৪ সালের শীর্ষ আদালতের রায়কে বহাল রেখে বৃহস্পতিবার এই মতই জানাল সুপ্রিম কোর্টের প্রধান বিচারপতি দীপক মিশ্রের নেতৃত্বাধীন তিন সদস্যের বেঞ্চ। পাশাপাশি এই রায়কে বৃহত্তর বেঞ্চে পাঠানোর আবেদনও খারিজ করে দিয়েছে সুপ্রিম কোর্ট। ২৪ বছরের পুরনো রায় বহাল রাখার পাশাপাশি শীর্ষ আদালত এদিন জানিয়েছে, এই রায়ের ফলে অযোধ্যা মামলার রায়ে কোনও প্রভাব পড়বে না। ওই মামলার শুনানি শুরু হচ্ছে আগামী ২৯ অক্টোবর।
শীর্ষ আদালত এদিন জানিয়েছে, ভারতের সংস্কৃতি মহান, এদেশে সব ধর্মেরই সমান অধিকার রয়েছে। আলাদা করে কোনও ধর্মকেই গুরুত্ব দেওয়ার প্রশ্ন নেই। উপাসনাস্থলেই ধর্মীয় উপাচার হওয়া উচিত। কিন্তু সরকারি কাজে, জরুরি প্রয়োজনে যদি কোনও উপাসনাস্থলের জমি অধিগ্রহণ করতে হয়, তাতে বাধা দেওয়া যায় না। কোর্ট এদিন জানিয়েছে, ১৯৯৪ সালের পাঁচ সদস্যের সাংবিধানিক বেঞ্চ যে রায় দিয়েছিল তা উচ্চতর বেঞ্চের কাছে এখন পাঠালে পিছিয়ে যেতে পারে অযোধ্যা মামলার শুনানি। মূলত ১৯৯৪ সালের রায়কেই পুনর্বিবেচনা করার আর্জি জানিয়েছিল বিভিন্ন মুসলিম সংগঠন। এদিন সেই প্রেক্ষিতেই নিজেদের মত জানালেন বিচারপতিরা। ২০১০ সালে এলাহাবাদ হাইকোর্ট রায় দিয়েছিল, অযোধ্যায় বিতর্কিত জমির তিন ভাগ করা হবে, যার একটি ভাগ পাবে হিন্দুরা ও আর একটি ভাগ পাবে মুসলিমরা। এই রায়ের বিরুদ্ধে সুপ্রিম কোর্টে মামলা হয়েছে। যার শুনানি শুরু হচ্ছে ২৯ অক্টোবর থেকে।

Comments
Loading...