চলচ্চিত্র উৎসবের জন্য নতুন করে সেজে উঠেছে নন্দন, ভিআইপি লাউঞ্জ, অত্যাধুনিক আলোকসজ্জা, ল্যাম্পশেড, পেইন্টিং

মাস তিনেক আগের কথা, সাময়িকভাবে বন্ধ করে দেওয়া হয়েছিল নন্দনে চলচ্চিত্রের প্রদর্শন।
জানা গিয়েছিল, কলকাতা আন্তর্জাতিক চলচ্চিত্র উৎসবের জন্য পেক্ষাগৃহের পরিকাঠামো উন্নয়নের জন্য বন্ধ রাখা হয়েছে সরকারি এই প্রেক্ষাগৃহে সিনেমার প্রদর্শন। তখনই অনেকের প্রশ্ন উঠেছিল, এমন কী পরিকাঠামো উন্নয়নের কাজ হবে যার জন্য বন্ধ করে রাখা হয়েছে দীর্ঘদিন ধরে নন্দন?
সেই জল্পনা থেকে সম্প্রতি পর্দা উঠেছে। ২৫ তম কলকাতা আন্তর্জাতিক চলচ্চিত্র উৎসব শুরু হচ্ছে আগামী ৮ নভেম্বর থেকে। তার আগে সামনে এসেছে সেজে ওঠা নন্দনের নতুন ছবি। এবং তাতেই দেখা যাচ্ছে একাধিক চমক।
যেমন চলচ্চিত্র উৎসবের আগেই নন্দন প্রেক্ষাগৃহে দ্বিতীয় তলে তৈরি হয়েছে বিশেষ ভিআইপি লাউঞ্জ। এই লাউঞ্জের বিশেষত্ব হচ্ছে বিভিন্ন সময় সিনেমায় ব্যবহৃত জিনিসপত্র, যা বর্তমানে কাজে লাগে না সেগুলো দিয়েই তৈরি করা হয়েছে লাউঞ্জের অভ্যন্তরের কিছু আলোকসজ্জা, ল্যাম্পশেড, পেইন্টিং। অত্যাধুনিক মানের করে সাজিয়ে তোলা হয়েছে এই লাউঞ্জকে। রয়েছে আধুনিক সব ব্যবস্থা। শীতাতপ নিয়ন্ত্রিত এই লাউঞ্জের বিভিন্ন প্রান্তে রয়েছে নানা ছবি এবং পোট্রেট। রয়েছে নরম গদির উপর আরাম করে বসার ব্যবস্থা। লাউঞ্জের ভিতরে নরম নিয়ন আলোর কারসাজি চোখে পড়ার মত।
এছাড়াও রয়েছে একাধিক চমক। যেমন নন্দনের ঠিক সামনে বসানো হয়েছে পুরনো দিনের এক বিশেষ ক্যামেরার মডেল। এছাড়াও পেক্ষাগৃহের মূল গেট দিয়ে প্রবেশের ঠিক মুখেই বসানো হয়েছে বিশেষ স্বয়ংক্রিয় দরজা। গেটের মাথায় রয়েছে আকর্ষণীয় ডিজাইনের নতুন হলুদ আলোর কারসাজি। সিঁড়ি দিয়ে পেক্ষাগৃহে ওঠার দু’পাশেও রয়েছে বিশেষ কারুকার্য করা দেওয়াল, যেখানে সিনেমা তৈরির গল্প বলা হয়েছে।
এছাড়াও সিঁড়ি দিয়ে ওঠার ঠিক মুখেই রয়েছে সবুজের ছোঁয়া। সিঁড়ির ঠিক পাশে বসানো হয়েছে একাধিক গাছ।
নন্দনের মূল পেক্ষাগৃহের দেওয়াল সাজানো হয়েছে পুরনো বিখ্যাত সব বাংলা ছবির পোস্টার দিয়ে। সেখানে স্থান পেয়েছে পথের পাঁচালি, সুবর্ণরেখা, দেবী’র মতো বিভিন্ন ছবির পোস্টার। নন্দনের দ্বিতীয় তলের লবিতেও বসানো হয়েছে নতুন ডিজাইনের একাধিক উজ্জ্বল আলো।

 

Comments
Loading...