২ মার্চ ইন্ডোরে মমতার সভার জন্য বার কোড দেওয়া আমন্ত্রণপত্র তৃণমূলের, কার্ড ছাড়া প্রবেশ নিষিদ্ধ

কর্পোরেট কালচারের ছোঁয়া লাগল তৃণমূলে। আগামী ২ মার্চ নেতাজি ইন্ডোর স্টেডিয়ামে দলীয় নেতা-কর্মীদের নিয়ে মুখ্যমন্ত্রী মমতা ব্যানার্জির সভায় যাতে বাড়তি কেউ ঢুকতে না পারে তার জন্য বারকোড দেওয়া আমন্ত্রণপত্র দিল তৃণমূল। ওই সভায় ঢুকতে হলে কর্মীদের অবশ্যই সেই আমন্ত্রণপত্র সঙ্গে আনতে হবে। বারকোডের মাধ্যমে বৈঠকে প্রবেশ করতে পারবেন তাঁরা। সামনে পুরসভা ভোট, তার আগে তৃণমূল নেতা কর্মীদের নিয়ে গুরুত্বপূর্ণ সভার জন্য এই বিশেষ আমন্ত্রণপত্র তৈরি করেছে তৃণমূল। সূত্রের খবর, বার কোড দেওয়া এই বিশেষ কার্ডের ব্যবস্থা করেছে তৃণমূলের পরামর্শদাতা নির্বাচনী স্ট্র্যাটেজিস্ট প্রশান্ত কিশোরের সংস্থা ‘আইপ্যাক’।

তৃণমূল সূত্রে খবর, শৃঙ্খলা ও দায়বদ্ধতা নিশ্চিত করতেই এই বার কোড-সহ কার্ডের ব্যবস্থা করা হয়েছে। পুরভোটকে সামনে রেখে নেতাজি ইন্ডোর স্টেডিয়ামে তৃণমূলের পুর প্রতিনিধি ও সাংগঠনিক পদাধিকারীদের বিশেষ সভা ডেকেছেন তৃণমূল নেত্রী। জেলায় জেলায় নেতা-কর্মীদের মধ্যে এই কার্ড বিলি শুরু হয়ে গিয়েছে। কার্ডে পরিষ্কারভাবে লেখা থাকছে আমন্ত্রিত নেতার নাম, তিনি দলের কোন পদে রয়েছেন, কোন গেট দিয়ে স্টেডিয়ামে ঢুকবেন এবং কোন আসনে গিয়ে বসবেন। পাশাপাশি কার্ডে কঠোরভাবে জানিয়ে দেওয়া হয়েছে, পাশ না থাকলে সভায় ঢোকার অনুমতি মিলবে না। সকাল ১০ টা থেকে বৈঠকে প্রবেশ করা যাবে, তার আগে ৯ টা ৪৫ মিনিটের মধ্যে স্টেডিয়ামে পৌঁছে যাওয়ার জন্য আবেদন করা হয়েছে। কার্ডে বার কোড ব্যবহার করে সংশ্লিষ্ট নেতার উপস্থিতি ও নিরাপত্তা নিশ্চিত করা হয়েছে। মঙ্গলবার থেকে উত্তর দিনাজপুর, উত্তর ২৪ পরগনা এবং উত্তর কলকাতায় দলীয় বৈঠকে এই বিশেষ কার্ড বিলি করা শুরু হয়েছে। ক’দিনের মধ্যে সব জেলাতেই আমন্ত্রণপত্র পৌঁছে যাবে বলে দলের এক শীর্ষ নেতা জানিয়েছেন।
লোকসভা ভোটের পর প্রশান্ত কিশোরের পরামর্শে ‘দিদিকে বলো’ কর্মসূচি সফলের পর ‘আমার গর্ব মমতা’ কর্মসূচি চালু করে তৃণমূল। ফেসবুক, ট্যুইটার, ইনস্টাগ্রামের মতো সোশ্যাল মিডিয়ার প্ল্যাটফর্মে কমেন্টের মাধ্যমে মুখ্যমন্ত্রীকে নিয়ে গর্বের কারণ, তাঁর কাজ জানানো যেত। সেই পেজের নাম বদলে ‘বাংলার গর্ব মমতা’ করা হচ্ছে বলে খবর।

Comments
Loading...