চুরি যাওয়া বা হারানো মোবাইল ফোন উদ্ধারে বিশেষ পোর্টাল চালু করল কেন্দ্র

এবার থেকে মোবাইল ফোন চুরি গেলে তা খুঁজতে সহায়তা করবে সরকারি পোর্টাল। মোবাইল চুরি ঠেকাতে এবং চুরি হওয়া বা হারিয়ে যাওয়া ফোন উদ্ধার করতে নতুন পোর্টাল চালু করল কেন্দ্রীয় সরকার। শুক্রবার মহারাষ্ট্রে ডিপার্টমেন্ট অফ টেলিকম বা ‘ডট’ পোর্টালের উদ্বোধন করেন টেলিকম মন্ত্রী রবিশঙ্কর প্রসাদ। বর্তমানে কেবল মহারাষ্ট্রে এই পাইলট প্রজেক্ট কার্যকর হলেও, শীঘ্রই সব রাজ্যে ‘ডট’ পোর্টাল চালু হবে বলে জানান টেলিকম মন্ত্রী।
কীভাবে কাজ করবে টেলিকম মন্ত্রকের এই পোর্টাল? ফোন চুরি হলে বা খোওয়া গেলে থানায় এফআইআর দায়েরের সঙ্গে সঙ্গে টেলিকম মন্ত্রকের হেল্পলাইন ১৪৪২২ নম্বরে যোগাযোগ করতে হবে। এরপর খুইয়ে যাওয়া মোবাইল ফোনের ১৫ সংখ্যার আইএমইআই নম্বরকে কালো তালিকাভুক্ত করে দেবে টেলিকম মন্ত্রকের সংশ্লিষ্ট পোর্টাল।
প্রত্যেক মোবাইল ফোনে ১৫ সংখ্যার স্বতন্ত্র আইএমইআই নাম্বার থাকে। মোবাইল ফোনের এই ১৫ ডিজিটের স্বতন্ত্র নাম্বারটি প্রদান করে জিএসএমএ। যখনই কোনও মোবাইল ফোন থেকে কল করা হয়, সংশ্লিষ্ট টেলিকম সার্ভিস প্রোভাইডারের কল রেকর্ডে সেই ফোন নম্বর ও আইএমইআই নম্বর ফুটে ওঠে। কিন্তু ফোন চুরির পর অন্য সিম কার্ড ব্যবহার করার পাশাপাশি, আইএমইআই নম্বরও পরিবর্তন করতে পারে কোনও টেকনিক্যাল এক্সপার্ট।
তাই ফোন চুরি বা খোয়া গেলে এফআইআর দায়েরের পাশাপাশি ডট হেল্পলাইনে ফোন করে সংশ্লিষ্ট ফোনের আইএমইআই নম্বর জানালে পোর্টাল তাকে ব্লাক লিস্টেড করে দেবে। পরবর্তীকালে চুরি যাওয়া ডিভাইসটি কেউ ব্যবহার করতে গেলে তা চটজলদি শনাক্ত করতে পারবে টেলিকম সার্ভিস প্রোভাইডার। এরপর টেলিকম সার্ভিস প্রোভাইডার সেই তথ্য পৌঁছে দেবে পুলিশকে। চুরি যাওয়া ফোন ট্র্যাক করতে বিএসএনএল, রিলায়েন্স জিও, এয়ারটেল, ভোডাফোন, আইডিয়ার মতো সার্ভিস প্রোভাইডাররা কেন্দ্রের ‘ডট’ পোর্টালকে সাহায্য করবে। এই সরকারি পদক্ষেপের ফলে একদিকে যেমন চুরি যাওয়া ফোন ফিরে পাওয়ার সম্ভাবনা বাড়ল, তেমনি নকল আইএমইআই নম্বর ব্যবহার করাও ঠেকানো যাবে বলে আশাবাদী টেলিকম মন্ত্রক।

Comments
Loading...