১ ফেব্রুয়ারি নির্ভয়া ধর্ষকদের ফাঁসি, নির্দেশ আদালতের, দোষীদের প্রাণভিক্ষার আবেদন খারিজ রাষ্ট্রপতির

নির্ভয়ার ধর্ষকদের ফাঁসির নয়া দিন ঘোষণা করল পাতিয়ালা হাউস কোর্ট। ২২ জানুয়ারির পরিবর্তে আগামী ১ ফেব্রুয়ারি সকাল ৬ টার সময়ে এই চার দোষীর মৃত্যদণ্ড কার্যকর করার জন্য শুক্রবার নির্দেশ দিয়েছেন পাতিয়ালা হাউস কোর্টের বিচারক সতীশ অরোরা। এদিন নতুন করে চার ধর্ষকের মৃত্যু পরোয়ানা জারি হওয়ায় খুশি ব্যক্ত করেছেন নির্ভয়ার মা আশা দেবী।
এর আগে মেয়ের ধর্ষকদের ফাঁসি নিয়ে টালবাহানা চলায় কার্যত ক্ষোভ উগরে দিয়েছিলেন তিনি। সাংবাদিকদের বলেছিলেন, ‘শুধু তারিখের পর তারিখ পড়ছে। জানি না কী হবে? মেয়েকে নির্মমভাবে মারল যারা তারা কবে ফাঁসির দড়িতে ঝুলবে, তা বুঝতেই পারছি না। শুধু এটুকু বুঝতে পারছি, ফাঁসি নিয়েও রাজনীতি হচ্ছে।’

উল্লেখ্য, দীর্ঘ সাত বছরের আইনি লড়াই শেষে গত ৭ জানুয়ারি পাতিয়ালা হাউস কোর্টের বিশেষ বিচারক সতীশ অরোরা নির্ভয়ার চার ধর্ষকের বিরুদ্ধে মৃত্যু পরোয়ানা জারি করে নির্দেশ দেন, ২২ জানুয়ারি সকাল ৭ টার সময়ে তাদের ফাঁসি দিতে হবে। কিন্তু সেই সঙ্গে ওই দোষীদের বিকল্প আইনি সহায়তা নেওয়ার জন্য ১৪ দিন বরাদ্দও করেছিলেন তিনি।
এর পরেই এই মৃত্যু পরোয়ানা জারির বিরুদ্ধে প্রথমে দিল্লি হাইকোর্টের দ্বারস্থ হয়েছিলেন চার ধর্ষকের আইনজীবী। কিন্তু দিল্লি হাইকোর্ট এই আর্জি শুনতে রাজি হয়নি।
এর পর রায় সংশোধনের আর্জি জানিয়ে সুপ্রিম কোর্টের দরজায় কড়া নেড়েছিল দুই ধর্ষক। কিন্তু মঙ্গলবার দেশের শীর্ষ আদালত সেই আর্জি খারিজ করে দেয়। তারপরেই রাষ্ট্রপতি রামনাথ কোবিন্দের কাছে প্রাণভিক্ষার আর্জি জানিয়েছিল মুকেশ সিংহ। বৃহস্পতিবার দুপুরে দিল্লি সরকার সেই আর্জি স্বরাষ্ট্র মন্ত্রকের কাছে পাঠিয়ে দেয়। সন্ধেতে স্বরাষ্ট্র মন্ত্রকের পক্ষ থেকে তা রাষ্ট্রপতির কাছে পাঠানো হয়। শুক্রবার সকালেই প্রাণভিক্ষার আর্জি খারিজ করে দেন রাষ্ট্রপতি। এর পরই নয়া মৃত্যু পরোয়ানা জারি করে আদালত।
যেহেতু মৃত্যু পরোয়ানা জারির ১৪ দিন বাদে ফাঁসি দেওয়ার নিয়ম, তাই আইনি জটিলতায় ২২ জানুয়ারি যে ফাঁসি হচ্ছে না, তা আগেই বোঝা গিয়েছিল। কিন্তু পরিবর্তে কবে ফাঁসি হবে, তা নিয়ে জল্পনা শুরু হয়েছিল।

 

Comments
Loading...