নির্ভয়া: অপরাধীদের পরিবারের সঙ্গে শেষবারের মতো দেখা করার জন্য চিঠি দিল তিহাড় জেল

নির্ভয়া-কাণ্ডের দোষীদের শেষবারের মতো পরিবারের সঙ্গে দেখা করার জন্য চিঠি দিল তিহাড় জেল কর্তৃপক্ষ। আগামী ৩ মার্চ নির্ভয়া ধর্ষণ ও খুনে দোষী সাব্যস্ত চারজনের ফাঁসি হবে বলে পরোয়ানা জারি করেছে দিল্লি আদালত। তার আগে তাদের শেষবারের মতো নিজেদের পরিবারের সঙ্গে দেখা করার জন্য চিঠি পাঠাল তিহাড় জেলকর্তৃপক্ষ। যদিও চার দোষীর মধ্যে মুকেশ সিংহ ও পবন গুপ্তা গত ১ ফেব্রুয়ারির আগে তাদের পরিবারের সঙ্গে দেখা করে নিয়েছে বলে জানানো হয়। বাকি দুই দোষী অক্ষয় ঠাকুর ও বিনয় কুমার যখন ইচ্ছে, পরিবারের সঙ্গে দেখা করতে পারবে বলে চিঠিতে জানানো হয়েছে। তবে দোষীদের পরিবারকে নয়, শুধুমাত্র তাদেরই এই চিঠি দেওয়া হয়েছে, এমনটাই জানান তিহাড় জেলের এক পদস্থ কর্তা।
জেলে অন্যান্য সময় বন্দিরা গারদের ওপার থেকে পরিবারের সঙ্গে দেখা করতে পারলেও মৃত্যুদণ্ডের আগে শেষবার আপনজনদের মুখোমুখি সাক্ষাতের অনুমতি দেওয়া হয়। দোষীদের পরিবারের সঙ্গে দেখা করার অনুমতি দানের সঙ্গে উত্তরপ্রদেশ জেল কর্তৃপক্ষকে চিঠি দিয়ে ৩ মার্চের আগে ফাঁসুড়েকে দিল্লি চলে আসার কথা জানিয়েছে তিহাড় কারা কর্তৃপক্ষ।
পাশাপাশি, জেলের মধ্যে নিজের মাথা ঠুকে আহত হওয়া বিনয়কে কড়া পুলিশি নজরে রাখা হচ্ছে বলেও জানান ওই অফিসার। প্রসঙ্গত, দিল্লি সরকার ও নির্ভয়ার বাবা-মায়ের আবেদনের প্রেক্ষিতে গত সোমবার চার দোষীর নতুন ফাঁসির তারিখ নির্ধারণ করে পাতিয়ালা হাউস কোর্ট। এরপরেই জেল কুঠুরিতে নিজেকে আঘাত করে বিনয়। তার আইনজীবী দাবি করেছেন, বিনয়ের মানসিক অবস্থা স্থিতিশীল নয়। বাড়ির লোকজনকেও সে চিনতে পারেনি। শারীরিক ও মানসিক অসুস্থ এমন একজনকে ফাঁসি দেওয়া যায় না বলে মন্তব্য করেন আইনজীবী। বাকি তিন অপরাধীও জেলে অস্বাভাবিক আচরণ করছে বলে জানিয়েছেন তাদের আইনজীবী এ পি সিংহ। তাঁর দাবি, বিষয়টি মানবিকতার সঙ্গে দেখা জরুরি।
২০১২ সালের ডিসেম্বর মাসে দিল্লিতে প্যারা মেডিক্যাল ছাত্রী নির্ভয়াকে গণধর্ষণ ও খুন করা হয়। ছয় অপরাধীর মধ্যে একজন তিহার জেলেই আত্মহত্যা করে বলে জানায় জেল কর্তৃপক্ষ। অন্য একজন নাবালক হওয়ায় তাকে জুভেনাইল কোর্টে পাঠানো হয়। বাকি চারজনকে চলতি বছরের ৭ জানুয়ারি ফাঁসির নির্দেশ দেয় আদালত। প্রথমে ফাঁসি কার্যকরের তারিখ দেওয়া ২২ জানুয়ারি, পরে তা পিছিয়ে ১ ফেব্রুয়ারি করা হলেও আইনি জটিলতায় তা কার্যকর হয়নি। এরপর আগামী ৩ মার্চ চার দোষীর ফাঁসি কার্যকরের তারিখ দেওয়া হয়।

Comments
Loading...