মোদী সরকারের পাশে দাঁড়িয়ে কংগ্রেসের ‘ন্যায়’ প্রকল্পের সমালোচনা, নীতি আয়োগের ভাইস চেয়ারম্যানের কাছে জবাব তলব কমিশনের

কংগ্রেসের ন্যূনতম রোজগার প্রকল্পের সমালোচনা করে নির্বাচন কমিশনের কোপে নীতি আয়োগের ভাইস চেয়ারম্যান রাজীব কুমার। কমিশন জানিয়েছে, রাজীব কুমারের মন্তব্য নির্বাচনী নীতি বিরুদ্ধ। আগামী দু’দিনের মধ্যে এই প্রসঙ্গে রাজীব কুমারের জবাব তলব করেছে নির্বাচন কমিশন।
সোমবার দেশের ২৫ কোটি মানুষের জন্য ন্যূনতম রোজগার প্রকল্প ঘোষণা করেছেন রাহুল গান্ধী। কংগ্রেস ক্ষমতায় এলে দেশের সবচেয়ে গরিব ২০ শতাংশ মানুষের জন্য বছরে ৭২ হাজার টাকা রোজগার সুনিশ্চিত করা হবে বলে জানিয়েছিলেন কংগ্রেস সভাপতি।
নির্বাচনী ইশতেহারে কংগ্রেসের এই নয়া প্রতিশ্রুতির সমালোচনা করে সোমবার সোশ্যাল মিডিয়ায় একাধিক পোস্ট করেন নীতি আয়োগের ভাইস চেয়ারম্যান। যার মধ্যে একটি ট্যুইটে তিনি লেখেন, নির্বাচনে জয়লাভের লক্ষ্যে ১৯৭১ সালে ‘গরিবি হঠাও’ এর প্রতিশ্রুতি দিয়েছিল কংগ্রেস। ২০০৮ সালে ওয়ান র‍্যাঙ্ক ওয়ান পেনশন (ওআরওপি) কিংবা ২০১৩ সালে ‘ফুড সিকিউরিটি’র প্রতিশ্রুতিও ছিল ভোট জেতার জন্য। যার মধ্যে একটিও বাস্তবায়িত হয়নি। ন্যূনতম রোজগার যোজনাও তেমনই একটি বলে কংগ্রেসকে সোশ্যাল মিডিয়ায় কটাক্ষ করেন নীতি আয়োগের ভাইস চেয়ারম্যান।
এতেই থামেননি রাজীব কুমার। কংগ্রেস সভাপতির এই সিদ্ধান্ত দেশের অর্থনীতির উপর নেতিবাচক প্রভাব ফেলবে বলে এক সাক্ষাৎকারে মন্তব্য করেন নীতি আয়োগের ভাইস চেয়ারম্যান। রাজীব কুমারের বলেন, কংগ্রেসের এই প্রকল্প কার্যকর হলে দেশের ঋণের ভার অনেকাংশে বেড়ে যাবে। ক্ষতিগ্রস্ত হবে অর্থনীতি। পাশাপাশি মোদী সরকারের কিষাণ প্রকল্পের ভূয়সী প্রশংসা করে রাজীব কুমারের মন্তব্য, ওই প্রকল্প ‘অন্যরকম’। মোদী সরকারের প্রকল্পের মাধ্যমে দেশের গরিব ও প্রান্তিক চাষীদের চিহ্নিত করে তাঁদের সাহায্য করা হচ্ছে। এই প্রেক্ষিতে রাজীব কুমারকে নোটিস পাঠাল নির্বাচন কমিশন।

Comments
Loading...