বাংলায় এনআরসি নয়, আবারও ঘোষণা মুখ্যমন্ত্রীর, ‘আমরা থাকতে কেউ আপনাদের তাড়াতে পারবে না’

এনআরসি ও নাগরিকত্ব সংশোধনী বিল একই পয়সার এপিঠ-ওপিঠ। বাংলায় কোনওভাবেই এনআরসি হতে দেব না বলে ফের ঘোষণা করলেন মুখ্যমন্ত্রী মমতা ব্যানার্জি। সোমবার দুপুরে সংসদে যখন নাগরিকত্ব সংশোধনী বিল নিয়ে তুলকালাম চলছে, তখন খড়গপুরে সরকারি প্রকল্পের শিলান্যাস অনুষ্ঠানের মঞ্চ থেকে কেন্দ্রকে আবারও হুঁশিয়ারি দিলেন মমতা। তিনি বললেন, দয়া করে দেশকে আর বিভাজন করবেন না। পাশাপাশি উপস্থিত জনতাকে তিনি অভয় দিলেন, ভয় পাবেন না। কেউ আপনাকে তাড়াতে পারবে না।
মমতার কথায়, যার যতই রাজনৈতিক স্লোগান থাকুক, দেশের চেয়ে বড় কিছু নেই। তাই কোনও ভেদাভেদ নয়। তিনি বলেন, আমরা সবাই এ দেশের নাগরিক। যাঁদের কাছে ভোটার কার্ড, জমির পাট্টা, কোনও না কোনও সরকারি পরিচয়পত্র আছে, তাঁরা এ দেশেরই নাগরিক। স্বাধীনতার পর থেকে দীর্ঘ সময় ধরে এ দেশে যাঁরা রয়েছেন, তাঁদের থাকা না থাকা আপনারা স্থির করতে পারেন না বলে বিজেপি নেতৃত্বকে কটাক্ষ করেন মমতা। তাঁর অভিযোগ, নাগরিকের খাদ্য, বাসস্থান নিয়ে চিন্তিত নয় কেন্দ্র। বরং কে কী খাচ্ছেন তা নিয়ে তদারকি চলছে। রাজ্যবাসীর উদ্দেশে মমতার বার্তা, এনআরসি হোক বা নাগরিকত্ব সংশোধনী বিল, তা নিয়ে ভয় পাওয়ার কোনও কারণ নেই। তাঁর কথায়, আমরা আপনাদের সঙ্গে আছি। আমরা থাকাকালীন জনগণের উপর জোর করে কিছু চাপিয়ে দেওয়ার ক্ষমতা নেই। মোদী সরকারকে নিশানা করে মমতা বলেন, কেউ কেউ আছে যারা খালি ভাষণ দেয় কিন্তু রেশন দেয় না, কর্মসংস্থান দেয় না। মানুষের আসল প্রয়োজনের কথা এড়িয়ে গিয়ে ধর্মের নামে রাজনীতি করার অপচেষ্টা চলছে।
এদিনও পেঁয়াজের অগ্নিমূল্য নিয়ে কেন্দ্রকে তুলোধোনা করেন মমতা। তাঁর প্রশ্ন, পেঁয়াজের দাম নিয়ন্ত্রণে কী ব্যবস্থা নিয়েছেন, কটা মিটিং করেছেন কেন্দ্রীয় মন্ত্রীরা। তিনি বলেন, আলুর ফলন প্রভাবিত হলে রাজ্য সরকার ভর্তুকি দেয়। এমন কী কী পদক্ষেপ করেছে কেন্দ্রীয় সরকার প্রশ্ন তোলেন মমতা। তিনি জানান, কেন্দ্রের কাছ থেকে প্রাপ্য পেঁয়াজ না পাওয়ার পরও সাধারণ মানুষের সুবিধায় ন্যায্য দামে পেঁয়াজ দিচ্ছে রাজ্য সরকার। আর একটি রাজ্যেও এরকম কোনও উদ্যোগ নেওয়া হয়নি বলে দাবি মুখ্যমন্ত্রীর।

 

Comments
Loading...