পেটিএম মালিককে ২০ কোটি টাকা ব্ল্যাকমেলের অভিযোগ, ধৃত তাঁর সেক্রেটারি, টাকা চেয়ে হুমকি ফোন গেছে কলকাতা থেকে

চাঞ্চল্যকর ঘটনা দেশের ই-ওয়ালেট জায়ান্ট পেটিএমের অভ্যন্তরে। সংস্থার কর্ণধারকে ২০ কোটি টাকা ব্ল্যাকমেলিংয়ের অভিযোগ উঠল তাঁরই সেক্রেটারির বিরুদ্ধে। আর এই ঘটনায় জড়িয়ে গেল কলকাতার বাসিন্দা এক ব্যক্তির নামও!
পেটিএম কর্নধার বিজয় শেখর শর্মাকে ২০ কোটি টাকা চেয়ে ব্ল্যাকমেলের অভিযোগে তাঁর সেক্রেটারি সোনিয়া ধাওয়ানসহ তিনজনকে গ্রেফতার করেছে পুলিশ। সোমবার নয়ডা পুলিশের বিশেষ দল, সোনিয়াকে তাঁর অফিস থেকে গ্রেফতার করে। দীর্ঘ কয়েক বছর বিজয় শেখর শর্মার সেক্রেটারি পদে রয়েছেন সোনিয়া। পেটিএম আত্মপ্রকাশ করার আগে থেকেই সোনিয়া ছিলেন বিজয় শেখর শর্মার ঘনিষ্ঠ সহযোগী। পুলিশ জানিয়েছে, এছাড়াও এই ষড়যন্ত্রে দেবেন্দ্র কুমার নামে পেটিএম সংস্থারই আরও এক অফিসার এবং সোনিয়ার স্বামী রূপক জৈনকেও গ্রেফতার করা হয়েছে। দেবেন্দ্র পেটিএম-এর সঙ্গে যুক্ত রয়েছেন প্রায় সাত বছর।
পুলিশ সূত্রে খবর, সোনিয়া ও তাঁর সহযোগীদের বিরুদ্ধে অভিযোগ, ব্যক্তিগত তথ্য ও ডেটা ফাঁস করে দেওয়ার ভয় দেখিয়ে ২০ কোটি টাকা দাবি করে দীর্ঘদিন তাঁরা ভারতের ই-ওয়ালেট জায়ান্ট পেটিএম কর্ণধার বিজয় শেখর শর্মাকে ব্ল্যাকমেল করে এসেছেন। আর ১০ কোটি টাকা চেয়ে পেটিএম কর্তাকে ফোন করা হয়েছে কলকাতা থেকে। পুলিশের অভিযোগ, এই ফোন করেছেন কলকাতার বাসিন্দা রোহিত চোমাল নামে এক ব্যবসায়ী।
পুলিশ জানিয়েছে, পেটিএম কর্ণধার বিজয় শেখর শর্মার ঘনিষ্ঠ সহযোগী ও সেক্রেটারি থাকার সুবাদে তাঁর ব্যক্তিগত ল্যাপটপ, কম্পিউটার, মোবাইল ফোন সব কিছুতেই অ্যাকসেস ছিল সোনিয়ার। সেখান থেকেই তিনি বহুদিন ধরে কোম্পানির প্রচুর গোপন তথ্য বের করে নেন। অভিযোগ, সেই গোপন তথ্য তিনি রোহিত চোমাল নামে কলকাতার ওই ব্যক্তিকে পাচার করেছেন। এরপর রোহিত চোমাল এবং সোনিয়া পেটিএম কর্ণধার ও তাঁর ভাইকে হুমকি দিতেন, সেই তথ্য বাইরে লিক করে দেওয়ার। তার বদলে তাঁরা পেটিএম কর্ণধারের কাছে ২০ কোটি টাকা দাবি করেন বলে অভিযোগ। পুলিশ জানিয়েছে, গত ১০ সেপ্টেম্বর রোহিত চোমাল প্রথম ফোন করে টাকা চেয়ে হুমকি দেন। এই রোহিত চোমাল পলাতক, তাঁর খোঁজে তল্লাশি চালাচ্ছে পুলিশ।

Comments
Loading...