পশ্চিমবঙ্গে সিন্ডিকেট রাজ চলছে, তৃণমূল সরকারকে তীব্র আক্রমণ প্রধানমন্ত্রীর

মেদিনীপুরের সভা থেকে রাজ্যের তৃণমূল সরকারকে তীব্র আক্রমণ করলেন প্রধানমন্ত্রী নরেন্দ্র মোদী। রাজ্যে সিন্ডিকেট রাজ চলছে বলে সুর চড়ান প্রধানমন্ত্রী। পাশাপাশি, দলের রাজ্য নেতাদের ত্রিপুরার উদাহারণ দিয়ে মোদী বলেন, সেখানকার মতো এখানেও সাহস নিয়ে লড়ে সিন্ডিকেট রাজ ভাঙতে হবে। তৃণমূল সরকারকে হারাতে হবে। এদিনের সভা থেকেই কার্যত বাংলায় আগামী লোকসভা ভোটের প্রচার শুরু করে দিলেন প্রধানমন্ত্রী।
কিছুদিন আগেই বিজেপির সর্বভারতীয় সভাপতি অমিত শাহ পুরুলিয়ায় জনসভা করে তৃণমূল সরকারকে উৎখাতের ডাক দিয়েছিলেন। রাজ্য থেকে অন্তত ২১-২২ টি লোকসভা আসন জেতার টার্গেট দিয়েছেন রাজ্য নেতাদের। এদিন প্রধানমন্ত্রীর জনসভার পর দলের নেতা-কর্মীদের উদ্যম আরও বাড়বে বলেই মনে করছে বিজেপি শিবির। এদিন ভাষণের শুরু থেকেই আক্রমণাত্মক ছিলেন প্রধানমন্ত্রী। তাঁর অভিযোগ, পশ্চিমবঙ্গে সিন্ডিকেটকে টাকা না দিয়ে কোনও কাজ হয় না। এর জন্যই কি মানুষ বাম শাসনের অবসান করেছিলেন, বলেও প্রশ্ন তোলেন প্রধানমন্ত্রী। চিট ফান্ড প্রসঙ্গেরও উত্থাপন করেন তিনি। এরপরেই তৃণমূল সরকারকে হারানোর জন্য পাশের রাজ্য ত্রিপুরার বিজেপি নেতাদের কাছ থেকে শিক্ষা নিতে বলেন এ রাজ্যের নেতাদের।
এদিকে এদিন কলেজ মাঠে প্রধানমন্ত্রীর জনসভা চলাকালীন মঞ্চ ভেঙে পড়ে বহু মানুষ জখম হন। আহতদের দেখতে সভার পরে মেদিনীপুর মেডিকেল কলেজ হাসপাতালে যান প্রধানমন্ত্রী নরেন্দ্র মোদী। সভাস্থল থেকে সরাসরি প্রধানমন্ত্রীর কনভয় পৌঁছে যায় হাসপাতালে। বিজেপি নেতাদের কাছেও প্রধানমন্ত্রীর হাসপাতালে যাওয়ার ব্যাপারে আগাম কোনও খবর ছিল না। সভা চলার সময়েই মোদী হাসপাতালে যাওয়ার সিদ্ধান্ত নেন। হাসপাতালে গিয়ে চিকিৎসকদের সঙ্গে কথা বলে আহতদের শারীরিক অবস্থা নিয়ে খবরাখবর নেন তিনি। কথা বলেন আহতদের সঙ্গে। আহতদের মধ্যে বেশ কয়েকজন মহিলাও আছেন। হাসপাতাল সূত্রের খবর আহতদের শারীরিক অবস্থা আপাতত স্থিতিশীল। অনেকেরই মাথায় চোট লেগেছে।

Comments
Loading...