রাফাল নিয়ে সুপ্রিম কোর্টে ভুল তথ্য পেশ, প্রধানমন্ত্রী এবং আইনমন্ত্রীর বিরুদ্ধে সংসদে স্বাধিকার ভঙ্গের নোটিশ বিরোধীদের

ফ্রান্সের সঙ্গে ভারতের রাফাল যুদ্ধ বিমান চুক্তি নিয়ে ও যুদ্ধ বিমানের দাম সংক্রান্ত বিষয়ে সুপ্রিম কোর্টে ভুল তথ্য দিয়েছে সরকার, আদালতকে বিভ্রান্ত করার চেষ্টা করেছে কেন্দ্র, এই অভিযোগ তুলে এবার সংসদে প্রধানমন্ত্রী নরেন্দ্র মোদী ও আইনমন্ত্রী রবিশংকর প্রসাদের বিরুদ্ধে স্বাধিকার ভঙ্গের নোটিশ আনল কংগ্রেসসহ বিরোধীরা।
শুক্রবার সুপ্রিম কোর্টের প্রধান বিচারপতির নেতৃত্বাধীন বেঞ্চ রাফাল মামলার রায় ঘোষণা করে। রাফাল চুক্তিতে দুর্নীতির অভিযোগ তুলে তাতে তদন্তের আর্জি জানিয়ে সুপ্রিম কোর্টে যে আবেদন করা হয়েছিল, তা সেদিন খারিজ করে দেয় শীর্ষ আদালত। এই রায়ের ভিত্তি হিসাবে আদালত জানায়, মুখবন্ধ খামে কেন্দ্র তাদের হলফনামায় জানিয়েছে, এই চুক্তির আওতায় যুদ্ধ বিমানের দাম সংক্রান্ত তথ্য খতিয়ে দেখেছে ক্যাগ। এতে তারা কোনও ভুল পায়নি। পরে ক্যাগ তাদের রিপোর্ট পার্লামেন্টারি অ্যাকাউন্টস কমিটি বা পিএসি’তেও জমা দিয়েছে। পিএসি’ও সেই রিপোর্ট খতিয়ে দেখেছে। রিপোর্টের অংশ বিশেষ পাবলিক ডোমেনেও দেওয়া আছে। কেন্দ্রের এই জবাবের ভিত্তিতেই কেন্দ্র রায় দানের দিন জানিয়ে দেয়, যেহেতু ক্যাগ খতিয়ে দেখেছে যুদ্ধ বিমেনের দাম সংক্রান্ত তথ্য ও তা পিএসি’ও দেখেছে তাই এ নিয়ে নতুন করে তদন্তের প্রয়োজন নেই। এই চুক্তির মাধ্যমে প্রধানমন্ত্রী নরেন্দ্র মোদী ঘনিষ্ঠ শিল্পপতি অনিল আম্বানীকে বহু কোটি টাকার বাণিজ্যিক সুবিধা পাইয়ে দিয়েছেন বলে বিরোধীরা যে অভিযোগ করেছিল, তাও খারিজ করে আদালত জানিয়ে দেয়, বেসরকারি সংস্থাকে বাণিজ্যিক সুবিধে পাইয়ে দেওয়ার কোনও প্রমাণও মেলেনি।
সুপ্রিম কোর্টের এই রায়ের পরেই সাংবাদিক বৈঠক করে কংগ্রেস সভাপতি রাহুল গান্ধী জানান, তাঁরা কোর্টের এই রায় মানতে পারছেন না। কারণ কোর্ট বলেছে, ক্যাগের রিপোর্ট পিএসি পরীক্ষা করেছে। কিন্তু পিএসি প্রধান মল্লিকার্জুন খর্গে জানিয়েছেন, তাঁদের কাছে এরকম কোনও রিপোর্ট ক্যাগের তরফে জমাই পড়েনি, পরীক্ষা করা তো দূর। সেদিনের সাংবাদিক বৈঠকে খার্গে এও বলেন, তিনি অ্যাটর্নি জেনারেল ও সিএজি’কে ডেকে জানতে চাইবেন, কবে এই রিপোর্ট পিএসি’তে জমা পড়ল।
এরপরই সামনে আসে আসল তথ্য। কেন্দ্র জানায়, হলফনামায় ইংরেজি ব্যকরণগত কিছু ভুল হয়ে যাওয়ায় সুপ্রিম কোর্ট বুঝতে ভুল করেছে। কেন্দ্র আসলে বলতে চেয়েছিল ক্যাগ রিপোর্ট পিএসিকে দেখতে দেওয়া হবে, কিন্তু ভুলবশত তা হয়ে যায়, ‘পিএসি রিপোর্ট দেখে নিয়েছে’। শনিবার কোর্টেও চিঠি লিখে এই ভুলের কথা জানায় কেন্দ্র। বলে কোর্ট কেন্দ্রের বক্তব্য বুঝতে ভুল করেছে। এর জন্য ভুল বোঝাবুঝি ও বিতর্ক তৈরি হয়েছে বলেও কোর্টে সাফাই দেয় কেন্দ্র। তবে এরপরে কংগ্রেসের তরফে পালটা দাবি করা হয়েছে, রায় পুণর্বিবেচনা করুক শীর্ষ আদালত। কোর্টেকে ভুল পথে চালিত করার জন্য কেন্দ্রকে নোটিশ পাঠানোর দাবিও করেছে কংগ্রেস।
সোমবার এই ঘটনার কথা তুলেই সংসদে জোড়া স্বাধিকার ভঙ্গের নোটিশ আনে কংগ্রেস। কংগ্রেস সাংসদ সুনীল জাখড় লোকসভায় নরেন্দ্র মোদীর বিরুদ্ধে এবং রাজ্যসভায় বিরোধী দলনেতা গুলাম নবি আজাদ আইনমন্ত্রী রবিশংকর প্রসাদের বিরুদ্ধে এই স্বাধিকার ভঙ্গের নোটিশ এনেছেন। কংগ্রেসের দাবি, এই প্রথম কোনও সরকারের তরফে শীর্ষ আদালতে ভুল তথ্য পেশ করা হল। আইনমন্ত্রী কীভাবে ওই হলফনামা কোর্টে পেশের অনুমতি দিলেন তা নিয়েও প্রশ্ন তুলেছেন আজাদ।

Comments
Loading...