প্রত্যক্ষ রাজনীতিতে প্রবেশের পর উত্তর প্রদেশের দলীয় নেতা-কর্মীদের সঙ্গে প্রথম মিটিং করলেন কংগ্রেসের সাধারণ সম্পাদক প্রিয়াঙ্কা গান্ধী। আর প্রথম মিটিংয়ের সময়সীমা ছিল প্রায় ১৬ ঘন্টা। মঙ্গলবার বিকেল থেকে লখনউয়ে মিটিং শুরু করেন প্রিয়াঙ্কা, তা শেষ হয় বুধবার ভোর সাড়ে ৫ টায়।
উত্তর প্রদেশের আমেঠি ও রায়বেরিলিসহ ৮ টি লোকসভা কেন্দ্রের কংগ্রেসের জেলা প্রেসিডেন্ট ও কর্মীদের সঙ্গে দীর্ঘ আলাপ-আলোচনা করেন প্রিয়াঙ্কা গান্ধী। উত্তর প্রদেশের পূর্ব অংশের দায়িত্ব পাওয়া প্রিয়াঙ্কা মিটিং শেষে সাংবাদিকদের বলেন, দলীয় নেতা-কর্মীদের মতামত নেওয়ার জন্য এই ১৬ ঘন্টার মিটিং। তিনি জানান, কীভাবে আগামী লোকসভা ভোটে তাঁরা লড়বেন তা নিয়ে বিস্তারিত আলোচনা হয়েছে।
অন্যদিকে, মঙ্গলবারও অর্থ জালিয়াতি মামলায় প্রিয়াঙ্কার স্বামী রবার্ট বঢরা ও শাশুড়ি মৌরিন বঢরাকে জিজ্ঞাসাবাদের জন্য ডেকে পাঠিয়েছিল এনফোর্সমেন্ট ডিরেক্টোরেট। স্বামীর সঙ্গে জয়পুরে গিয়েছিলেন প্রিয়াঙ্কা, মঙ্গলবার বিকেলে সেখান থেকে লখনউ যান প্রিয়াঙ্কা গান্ধী।
বুধবার ভোরে মিটিং শেষে প্রিয়াঙ্কা জানান, তিনি দলের স্থানীয় নেতা-কর্মীদের থেকে অনেক কিছু শিখছেন। সাংবাদিকরা প্রশ্ন করেন প্রথম মিটিংয়ের অভিজ্ঞতা কেমন? প্রিয়াঙ্কা জানান, খুবই ভালো অভিজ্ঞতা।
দলীয় সূত্রে খবর, ৮ টি লোকসভা কেন্দ্রের প্রত্যেকটি থেকে ১০-২০ জন দলীয় নেতা-কর্মীর সঙ্গে দীর্ঘ আলোচনা করেন কংগ্রেস নেত্রী। অন্যদিকে, উত্তর প্রদেশের অন্য অংশের দায়িত্বে থাকা জ্যোতিরাদিত্য সিন্ধিয়াও মঙ্গলবার কংগ্রেস নেতা-কর্মীদের সঙ্গে মিটিং করেন।
দিল্লির ক্ষমতা দখলের জন্য বিশেষ গুরুত্বপূর্ণ উত্তর প্রদেশের ৮০ টি লোকসভার আসন। আসন্ন লোকসভা নির্বাচনে ৮০ টি আসনেই লড়ার সিদ্ধান্ত নিয়েছে কংগ্রেস। উত্তর প্রদেশের পূর্ব অংশের ৪১ টি আসন বোন প্রিয়াঙ্কার দায়িত্বে দিয়েছেন কংগ্রেস প্রেসিডেন্ট রাহুল গান্ধী। বাকি ৩৯ টি আসনের ভার দেওয়া হয়েছে জ্যোতিরাদিত্য সিন্ধিয়াকে।

You may also like