পুজোর জন্য একগুচ্ছ প্যাকেজ আনছে রাজ্য পরিবহণ দফতর, ঘোষণা শুভেন্দু অধিকারীর

দুর্গা পুজো উপলক্ষ্যে একগুচ্ছ পরিষেবা নিয়ে আসছে রাজ্যের পরিবহণ দফতর। সপ্তমী থেকে নবমীতে কলকাতা ও শহরতলির বিখ্যাত পুজো দেখা থেকে জেলাভিত্তিক কিছু বিখ্যাত পুজো দেখা ও বেড়ানোর জন্য একগুচ্ছ প্যাকেজ নিয়ে এসেছে পশ্চিমবঙ্গ পরিবহণ নিগম।
কলকাতায় পুজো পরিক্রমায় রয়েছে ঐতিহ্যবাহী ট্রাম বা জলপথে ভ্রমণের সুবিধা। আবার ভলভো ও এসি বাসে কলকাতার বনেদি বাড়ির পুজো দেখার জন্য জনপ্রতি খরচ পড়বে ১,৬০০ টাকা। তবে ৫ থেকে ১০ বছরের শিশুদের জন্য ভাড়া পড়বে ১,১০০ টাকা। দর্শনার্থীদের জলখাবার, লাঞ্চ থেকে বিকেলের টিফিন দেওয়া হবে। থাকছে চা,কফির ব্যবস্থাও।
জলপথ ও স্থলপথে উত্তর কলকাতার বিখ্যাত পুজোগুলি দেখতে পারবেন দর্শনার্থীরা। সেক্ষেত্রে জনপ্রতি খরচ পড়বে ৫০০ টাকা। মিলেনিয়াম পার্ক থেকে লঞ্চ, তারপর হাওড়া জেটি হয়ে আহিরিটোলা ঘাটে যাবে লঞ্চ। সেখান থেকে বাসে করে উত্তর কলকাতার বিখ্যাত বনেদি বাড়ি ও বারোয়ারি পুজো দেখতে পারবেন দর্শনার্থীরা। বাগবাজার ঘাট থেকে হাওড়া জেটি হয়ে আনুমানিক ৫ ঘন্টার এই যাত্রাপথ শেষ হবে মিলেনিয়াম পার্কে। যাত্রাপথে থাকছে স্ন্যাকস ও চায়ের ব্যবস্থা। এবার ট্রামেও পুজো পরিক্রমা করতে পারেন। জনপ্রতি খরচ পড়বে ৫০০ টাকা। এসপ্ল্যানেড থেকে হেরিটেজ ট্রামে সুবোধ মল্লিক স্কোয়ার হয়ে বউবাজার, কলেজ স্ট্রিট হয়ে শ্যামবাজার ডিপো পর্যন্ত পুজো পরিক্রমা করা যাবে। এখানেও চা ও স্ন্যাকসের বন্দোবস্ত থাকছে।
এছাড়া, পশ্চিমবঙ্গ পরিবহণ নিগমের যে কোনও শহর ও শহরতলি বাস ও ভেসেলে এক টিকিটে সারা দিন বেড়াতে পারেন। কলকাতা ছাড়াও মাত্র ১০০ টাকার টিকিটে পূর্বের হাওড়া স্টেশন থেকে পশ্চিমে নিউটাউন, উত্তরে বারাসত-বারাকপুর থেকে দক্ষিণের ঠাকুরপুকুর পর্যন্ত যেতে পারবেন। আর ভেসেলের ক্ষেত্রে আড়িয়াদহ থেকে মিলেনিয়াম পার্ক জেটির মধ্যে এই টিকিট প্রযোজ্য হবে।
কলকাতার পুজোর ভিড় ছেড়ে একটু গ্রাম বাংলার পুজো দেখতে চাইলে ধান্যকুড়িয়া বা আরবেলিয়ার ঘুরে আসতে পারেন। জনপ্রতি ১৫০০ টাকা খরচে সপ্তমী থেকে নবমীর যে কোনও দিন চলে যেতে পারেন কলকাতা থেকে ৭৫ কিলোমিটার দূরে। এসপ্ল্যানেড ও রাজারহাট চিনার পার্ক হয়ে এসি বাসে গায়েন বাড়ি, সাহু বাড়ি,বল্লভ বাড়ির সাবেকি পুজোর আনন্দ নিতে পারেন। ১৬০০ টাকার টিকিটে এসপ্লানেড ট্রাম টার্মিনাস বা ডানলপ থেকে এসি বাসে বেরিয়ে পড়তে পারেন হুগলির উদ্দেশে। শ্রীরামপুর রাজবাড়ি থেকে চন্দননগর, চুঁচুড়া সহ হুগলি জেলার দ্রষ্টব্য স্থান ও দুর্গা মণ্ডপ দর্শন সেরে আসতে পারেন সপ্তমী থেকে নবমীর মধ্যে।
এছাড়া গঙ্গাবক্ষে বিসর্জন দর্শনের জন্য জনপ্রতি ১৪০০ টাকা ভাড়ায় দশমীর দিন বিকেল ৫ টা থেকে ৯ টার মধ্যে কলকাতা ও হাওড়ার বিভিন্ন ঘাটে যেতে পারবেন দর্শনার্থীরা।
সম্প্রতি কলকাতায় সাংবাদিক সম্মেলন করে এই বিভিন্ন প্যাকেজের ঘোষণা করেন পরিবহণমন্ত্রী শুভেন্দু অধিকারী। শুভেন্দু অধিকারী জানান, গত বছর পুজোতে কয়েক লক্ষ মানুষকে পরিষেবা দিয়েছিল পরিবহণ দফতর। এবার আরও বড় লক্ষ্যমাত্রা রাখা হয়েছে।
Comments
Loading...