রাফাল চুক্তি নিয়ে খবর করার জেরঃ দ্য টেলিগ্রাফ, এন ডি টিভি, ফিনান্সিয়াল টাইমসসহ ২০ টি সংবাদমাধ্যমের বিরুদ্ধে মামলা রিলায়েন্সের

ফরাসি যুদ্ধ বিমান রাফাল কেনা নিয়ে মোদী সরকারকে একহাত নিচ্ছে বিরোধীরা। এই চুক্তিতে দুর্নীতি হয়েছে, এই অভিযোগে একদিকে যেমন সিবিআই তদন্ত চেয়ে সুপ্রিম কোর্টের দ্বারস্থ হয়েছেন প্রশান্ত ভূষণ, অরুণ শৌরিরা, তেমনই এই চুক্তির স্বচ্ছতা নিয়ে প্রশ্ন তুলে ফরাসি একটি স্বেচ্ছাসেবক সংস্থাও অভিযোগ করেছে।
এই চুক্তিতে দুর্নীতির যে অভিযোগ বিরোধীরা করছে, তার মধ্যে একটি গুরুত্বপূর্ণ বিষয় হল, অনিল আম্বানীর রিলায়েন্সকে বেআইনিভাবে অতিরিক্ত সুবিধে পাইয়ে দিয়েছেন মোদী। কংগ্রেস সভাপতি রাহুল গান্ধীর অভিযোগ, রাষ্টায়ত্ত্ব সংস্থা হ্যালকে দায়িত্ব না দিয়ে অভিজ্ঞতা না থাকা সত্ত্বেও ‘বন্ধু’ অনিল আম্বানীর সংস্থাকে বরাত পাইয়ে দিয়েছেন প্রধানমন্ত্রী। এই বিতর্ক আরও চরমে ওঠে যখন প্রাক্তন ফরাসি রাষ্ট্রপতি ফ্রাসোয়া ওলাদঁ সম্প্রতি জানান, রিলায়েন্সকে অফসেট পার্টনার হিসেবে বেছে নেওয়া ছাড়া তাদের আর কোনও উপায় ছিল না। যদিও কেন্দ্রীয় সরকার এই অভিযোগ উড়িয়ে দিয়েছে। এমনকী যুদ্ধ বিমান প্রস্তুতকারী ফরাসি সংস্থা ড্যাসল্ট অ্যাভিয়েশনও জানায়, রিলায়েন্সকে তারাই বেছে নিয়েছে, ভারত সরকারের কোনও চাপ ছিল না।
এই অভিযোগ-পালটা অভিযোগ এবং রাজনৈতিক চাপানউতোর নিয়ে খবর করে এবার অনিল আম্বানীর সংস্থা রিলায়েন্সের রোষানলে ভারতের সংবাদমাধ্যমের একটা বড় অংশ। জানা যাচ্ছে, দেশের অন্তত ২০ টি বৃহৎ সংবাদমাধ্যমের বিরুদ্ধে ‘উদ্দেশ্যপ্রণোদিত’ খবর করার অভিযোগে মানহানির মামলা করেছে অনিল আম্বানীর রিলায়েন্স গোষ্ঠী। সংবাদপত্র, টেলিভিশন চ্যানেল, নিউজ পোর্টাল ছাড় পায়নি কেউই।
অনলাইন নিউজ পোর্টাল Scroll এ প্রকাশিত খবর অনুযায়ী, চলতি বছরের অক্টোবর মাসে ‘রাফাল ডিল’ নিয়ে প্রশ্ন তোলায় মিডিয়া হাউস, কয়েকজন সাংবাদিক ও রাজনৈতিক নেতার বিরুদ্ধে মানহানির মামলা করেছে রিলায়েন্স গোষ্ঠী।
অনিল আম্বানীর রিলায়েন্স ইনফ্রাস্ট্রাকচার, রিলায়েন্স এরোস্ট্রাকচার, রিলায়েন্স নাভাল এবং রিলায়েন্স ইঞ্জিনিয়ারিং এর তরফে ২৮ টি মানহানির মামলা রুজু করা হয়েছে আহমেদাবাদ আদালতে। ২৮ টির মধ্যে ৮ টি মামলা করা হয়েছে বিরোধী নেতাদের বিরুদ্ধে এবং ২০ টি করা হয়েছে মিডিয়া অর্গানাইজেশন এবং সাংবাদিকদের বিরুদ্ধে।
এর মধ্যে রয়েছে ‘ফিনান্সিয়াল টাইমস’ এবং ‘ব্লুমবার্গ’-এর মতো আন্তর্জাতিক সংবাদ প্রতিষ্ঠান এবং ‘দ্য ইকনমিক টাইমস’, ‘দ্য ফিনান্সিয়াল এক্সপ্রেস’, ‘দ্য উইক’, ‘দ্য ওয়্যার’ ‘এন ডি টিভি’, দ্য টেলিগ্রাফ’ এর মতো দেশের প্রথম সারির বিভিন্ন সংবাদ প্রতিষ্ঠান।
মামলা রুজু করা হয়েছে মহারাষ্ট্র এবং কেরলের দুই প্রাক্তন কংগ্রেসি মুখ্যমন্ত্রী অশোক চহ্বন এবং ওমান চান্ডির বিরুদ্ধেও।
নিউজ পোর্টাল Scroll এর প্রতিবেদন অনুযায়ী, কয়েকজন সাংবাদিক, নেতা এবং কয়েকটি সংবাদ সংস্থা জানিয়েছে, তাঁদের রিলায়েন্সের তরফ থেকে আইনি নোটিশ পাঠানো হলেও, আদালত থেকে কোনও সমন পাননি তাঁরা।
২৮ টি মামলার মধ্যে ২ টি মামলা করা হয়েছে সাংবাদিকের বিরুদ্ধে। একটি সাংবাদিক অজয় শুক্লা এবং অন্যটি ‘দ্য ওয়্যার’ এর সম্পাদক মঙ্গলাম কেশবান ভেনুর বিরুদ্ধে করা হয়েছে।
‘এন ডি টিভি’র বিরুদ্ধে ১০ হাজার কোটি টাকা ক্ষতিপূরণ চেয়ে মামলা করেছে অনিলের রিলায়েন্স গোষ্ঠী। ‘দ্য টেলিগ্রাফ’এর বিরুদ্ধে ১১টি পৃথক কেসে মোট ৬৫ হাজার কোটি টাকার মামলা রুজু হয়েছে।

Comments
Loading...