গোয়ায় মনোহর পারিক্করের সঙ্গে দেখা করলেন রাহুল গান্ধী, কারণ নিয়ে জল্পনা

রাফাল প্রসঙ্গে প্রাক্তন প্রতিরক্ষামন্ত্রী এবং গোয়ার মুখ্যমন্ত্রী মনোহর পারিক্করের বিরুদ্ধে চাঞ্চল্যকর অভিযোগ তুলেছিলেন কংগ্রেস সভাপতি রাহুল গান্ধী। মঙ্গলবার সেই মনোহর পারিক্করের গোয়ার অফিসেই ঢুকতে দেখা গেল তাঁকে, যা নিয়ে তৈরি হয়েছে তীব্র কৌতূহল ।
মাত্র কয়েকদিন আগেই রাফাল যুদ্ধ বিমান প্রসঙ্গে গোয়ার মুখ্যমন্ত্রী মনোহর পারিক্করের বিরুদ্ধে বিস্ফোরক দাবি করেন রাহুল গান্ধীসহ কংগ্রেস নেতৃত্ব। একটি অডিও টেপের প্রকাশ্যে আসা নিয়ে শুরু হয় এই বিতর্ক। ওই অডিও টেপকে সামনে রেখে কংগ্রেস দাবি করে, গোয়ার মন্ত্রী বিশ্বনাথ রানে ও অজ্ঞাতপরিচয় ব্যক্তির ফোনে কথোপকথনের রেকর্ড এটি। ওই অডিও রেকর্ডে বলতে শোনা যায়, রাফাল ফাইল মনোহর পারিক্করের শোওয়ার ঘরে রাখা আছে। এই অডিও টেপ ঘিরে লোকসভায় তুমুল হট্টগোলও হয় মাসখানেক আগে। যদিও বিজেপি এই অডিওর কোনও সত্যতা নেই বলে দাবি করে।
কিন্তু এরপরও একাধিকবার রাহুল গান্ধী রাফাল প্রসঙ্গে ওই অডিও টেপের সত্যতা রয়েছে বলে দাবি করে এসেছেন। সোমবারই রাহুল গান্ধী কয়েকটি ট্যুইট করেন রাফাল প্রসঙ্গে। যেখানে রাফাল এবং পারিক্করকে জড়িয়েও ট্যুইট করেন তিনি। একটি ট্যুইটে কংগ্রেস সভাপতি লেখেন, অডিও টেপ প্রকাশ্যে আসার পর এক মাস কেটে গেলেও, কোনও পদক্ষেপ নেওয়া হয়নি, কোনও এফআইআরও দায়ের হয়নি। তবে ওই অডিও টেপের বৈধতা এবং সত্যতা সম্পর্কে তিনি নিঃসংশয় বলে উল্লেখ করেন কংগ্রেস সভাপতি। তিনি আর একটি ট্যুইটে দাবি করেন, রাফাল ফাইল গোয়ার মুখ্যমন্ত্রীর কাছেই আছে। আর সেই ফাইলের জন্য তিনি মনোহর পারিক্করকে প্রধানমন্ত্রীর চেয়ে বেশি ক্ষমতাবান বলে মনে করেন।
তবে মঙ্গলবার গোয়ার মুখ্যমন্ত্রী ও কংগ্রেস সভাপতির মধ্যে কী নিয়ে কথা হয়েছে তা এখনও স্পষ্ট নয়। দু’জনের মধ্যে রাফাল নিয়ে কোনও আলোচনা হয়েছে নাকি, অসুস্থ মুখ্যমন্ত্রীর সঙ্গে নিছক সৌজন্যমূলক সাক্ষাৎ করতে গিয়েছিলেন, তা নিয়ে কৌতূহল তৈরি হয়েছে। আপাতত মায়ের সঙ্গে ছুটি কাটাতে গোয়া গিয়েছেন কংগ্রেস সভাপতি।
উল্লেখ্য, ২০১৬ সালে ভারত ও ফ্রান্সের রাফাল যুদ্ধ বিমান চুক্তির সময় প্রতিরক্ষামন্ত্রী ছিলেন মনোহর পারিক্কর। ওই অডিও টেপের সত্যতা অস্বীকার করে কিছুদিন আগেই কংগ্রেসকে চাঁচাছোলা ভাষায় আক্রমণ শানিয়েছিলেন তিনি।

Comments
Loading...