অরবিন্দ সুব্রমনিয়মের পদত্যাগ করা উচিত ছিল আগেই, রাহুল

যখন দেশের উজ্জ্বল ব্যক্তিত্বরা কাজ থেকে পদত্যাগ দেন তখন দেশের অর্থমন্ত্রী বসে সোশ্যাল মিডিয়ায় ব্রেকিং নিউজ লেখেন। দেশের মুখ্য অর্থনীতিবিদের পদ থেকে অরবিন্দ সুব্রমনিয়মের ইস্তফা ঘোষণার পরে ঠিক এভাষায় কেন্দ্রীয় অর্থমন্ত্রী অরুণ জেটলিকে বিঁধেছিলেন রাহুল গান্ধী। চাঞ্চল্য সৃষ্ট হয়েছিল রাজনৈতিক মহলে। তবে অরুণ জেটলি সোশ্যাল মিডিয়ায় বলেছিলেন, কোনও বৈরিতা নয়, অরবিন্দ সুব্রমনিয়ম অব্যাহতি নিয়েছেন তাঁর ব্যক্তিগত কারণে।
সম্প্রতি নিজের বই ‘অফ কাউন্সেল, চ্যালেঞ্জেস অফ দ্য মোদী জেটলি ইকনমি’তে নোটবন্দি নিয়ে সপাট মন্তব্য করেছেন অরবিন্দ সুব্রমনিয়ম। বই-এর একটা অধ্যায় জুড়ে নোটবন্দি নিয়ে লিখেছেন তিনি। সুব্রমনিয়ম সেখানে ২০১৬ সালের ৮ নভেম্বর মোদী সরকারের ১০০ ও ৫০০ টাকার নোট বাতিলের সিদ্ধান্তকে ‘নজিরবিহীন’ বলে মন্তব্য করেছেন। লিখেছেন, নোটবন্দি দেশের অর্থনীতিতে বিপর্যস্ত করেছে। এর খারাপ প্রভাব পড়েছে অর্থনীতিতে। দেশের প্রাক্তন মুখ্য অর্থনৈতিক উপদেষ্টার স্বীকারোক্তি, নোট বাতিল সিদ্ধান্তের ক্ষত এখনও রয়েছে দেশের অর্থনীতিতে।
এই প্রসঙ্গে শুক্রবার মুখ খুললেন কংগ্রেস সভাপতি রাহুল গান্ধী। নোটবন্দির সিদ্ধান্তে আরও একবার কেন্দ্রের বিরুদ্ধে তোপ দেগেছেন তিনি। রাহুল মন্তব্য করেছেন, অনেক আগেই দেশের মুখ্য অর্থনীতিবিদের পদ থেকে অরবিন্দ সুব্রমনিয়মের ইস্তফা দেওয়া উচিত ছিল।

Comments
Loading...