সেনাবাহিনীর সাফল্যকে ব্যক্তিগত অ্যাসেট হিসেবে দেখেন প্রধানমন্ত্রী, সার্জিকাল স্ট্রাইক নিয়ে মন্তব্য রাহুলের

‘সার্জিকাল স্ট্রাইক’ নিয়ে রাজনৈতিক দলগুলির অযথা প্রচারকে নিন্দা করে অবসরপ্রাপ্ত লেফটনেন্ট জেনারেল ডি এস হুদা ‘অনভিপ্রেত’ বলে মন্তব্য করেছিলেন। ‘সার্জিকাল স্ট্রাইকের’ মতো বিষয় নিয়ে ‘হাইপ’ তৈরি করতে চাওয়া রাজনৈতিক দলগুলির সমালোচনা করেছেন প্রাক্তন জেনারেল।
প্রাক্তন জেনারেলের এই মত সমর্থন করে তাঁকে ‘সত্যিকারের সৈনিক’ বলে অভিহিত করলেন কংগ্রেস সভাপতি রাহুল গান্ধী। সেই সঙ্গে নরেন্দ্র মোদীকে ট্যুইট করে আক্রমণ করেন রাহুল। তিনি প্রধানমন্ত্রী নরেন্দ্র মোদীকে ‘মিস্টার ৩৬’ বলে সম্বোধন করে লিখেছেন, সেনাবাহিনীর গৌরবকে নিজের সম্পত্তি বলে মনে করেন প্রধানমন্ত্রী। আর তাতে বিন্দুমাত্র লজ্জাও নেই তাঁর।
ঘটনাচক্রে রাহুল গান্ধী এর আগে প্রধানমন্ত্রী নরেন্দ্র মোদীর বিভিন্ন সভায় সার্জিকাল স্ট্রাইক নিয়ে মন্তব্য করার সমালোচনা করেছিলেন। তিনি কটাক্ষ করেছিলেন প্রধানমন্ত্রী সার্জিকাল স্ট্রাইককে ‘পার্সোনাল অ্যাসেট’ হিসেবে দেখেন। তিনি জানিয়েছিলেন, মনমোহন সিংহ সরকারের আমলেও তিনবার সার্জিকাল স্ট্রাইক হয়েছিল। কিন্তু দেশের সৈনিকদের স্বার্থে তা গোপন রাখা হয়েছিল।
সেনা প্রধান বিপিন রাওয়াত জেনারেল ডি এস হুদার মন্তব্য প্রসঙ্গে এদিন কোনও প্রতিক্রিয়া দিতে চাননি। তিনি একে জেনারেল হুদার ব্যক্তিগত অভিমত বলেছেন।
অন্যদিকে, রাহুলের ট্যুইট ঘিরে হইচই পড়ে গিয়েছে সোশ্যাল মিডিয়ায়। একদিকে তাঁর প্রধানমন্ত্রীকে ‘নির্লজ্জ’ বলা নিয়ে বিতর্ক শুরু হয়েছে। আর তাছাড়া প্রধানমন্ত্রীকে ‘মিস্টার ৩৬’ বলে সম্বোধন করা নিয়েও প্রশ্ন উঠছে। এতদিন মোদীর ৫৬ ইঞ্চির ছাতিকে নিয়ে কটাক্ষ করতেন রাহুল। কিন্তু প্রশ্ন উঠেছে, রাহুল ‘মিস্টার ৩৬’ বলে কী ইঙ্গিত করেছেন? নেটিজেনদের মতে, ৩৬ টি যুদ্ধ বিমান নিয়ে যে দুর্নীতির অভিযোগ রাহুল করেছেন প্রধানমন্ত্রীর বিরুদ্ধে, সেই প্রসঙ্গেই তাঁকে ‘মিস্টার ৩৬’ বলে কটাক্ষ করেছেন তিনি।

Comments
Loading...