আদিবাসী শংসাপত্র নিয়ে অভিযোগ সমাধান করতে হবে ৪ সপ্তাহের মধ্যে, নির্দেশ মন্ত্রী রাজীব বন্দ্যোপাধ্যায়ের, চালু হল টোল ফ্রি নম্বর

আদিবাসী শংসাপত্র নিয়ে সাধারণ মানুষের যেন কোনও অভিযোগ না থাকে, সেই বার্তা বারবার দিয়েছেন খোদ মুখ্যমন্ত্রী। কিন্তু এই সার্টিফিকেট নিয়ে গত কয়েক বছরে বহু অভিযোগ পেয়েছেন মমতা বন্দ্যোপাধ্যায়। সম্প্রতি এই গুরুত্বপূর্ণ দফতরের দায়িত্ব দিয়েছেন রাজীব বন্দ্যোপাধ্যায়কে। এবার এই দফতর সংক্রান্ত যে কোনও অভিযোগের দ্রুত সমাধানে বিশেষ উদ্যোগ নিলেন পশ্চিমবঙ্গ তফশিলি জাতি, আদিবাসী ও অন্যান্য অনগ্রসর উন্নয়ন শ্রেণি কল্যাণ দপ্তর ও উপজাতি উন্নয়ন বিভাগের মন্ত্রী রাজীব বন্দ্যোপাধ্যায়।
এই দফতরের কাজকর্ম নিয়ে এবার সরাসরি অভিযোগের সুযোগ ফোন, হোয়াটস-আপ বা এসএমএস-এ। চালু করা হল টোল ফ্রি নম্বর। টোল ফ্রি ফোন নম্বর ১৮০০-৫৭২৭-৭৩০। হোয়াটঅ্যাপ বা এসএমএস নম্বর ৮৫৮২৯৫৬৫৫৫।
বৃহস্পতিবার দফতরের আধিকারিকদের নিয়ে বৈঠকে পর রাজীব বন্দ্যোপাধ্যায় জানান, রাজ্যের অনগ্রসর শ্রেণি ও আদিবাসী ভাই-বোনদের যে কোনও সমস্যার সমাধান এবার মাত্র ৪ সপ্তাহের মধ্যেই মিলবে। জাতিগত শংসাপত্র, পড়াশোনার লোন, স্কলারশিপ, ভোকেশনাল ট্রেনিং, সরকারি চাকরির বিনামূল্য প্রশিক্ষণ সহ অন্যান্য যে কোনও বিষয়ে যাতে কোনওরকম হয়রানির শিকার এই মানুষরা না হন ও এই দফতরের সব কাজ আরও দ্রুততার সঙ্গে করার জন্য জোরদার পদক্ষেপ নেওয়া হয়েছে। রাজ্যের ২৩ টি জেলার অনগ্রসর শ্রেণি ও আদিবাসী মানুষজনদের সমস্যা ও এই দুই দপ্তরের কাজের গতি ও কাজের পরিষেবা আরও বাড়ানোর লক্ষ্যে ২৩ জন নোডাল অফিসারদের দায়িত্ব দেওয়া হয়েছে। যাঁরা তাঁদের দায়িত্বপ্রাপ্ত জেলায় জানিয়ে বা বিনা নোটিসে উপস্থিত থেকে সেখানকার কাজের খুঁটিনাটি পর্যবেক্ষণ করবেন ও কোনও সমস্যা ও কাজের গাফিলতি বুঝলে সেই জেলার দায়িত্বপ্রাপ্ত অফিসারদের শোকজ করবেন। এই শোকজ-এর উত্তর ৩ দিনের মধ্যে দেওয়ার নির্দেশ দিয়েছেন মন্ত্রী। ইতিমধ্যেই রাজ্যের ৪ জেলার (দক্ষিণ ২৪ পরগনা, ঝাড়গ্রাম, উত্তর দিনাজপুর, পশ্চিম মেদিনীপুর) ৪ জন অফিসারকে তাঁদের কাজের গাফিলতির জন্য বরখাস্ত করা হয়েছে।

Comments
Loading...