প্রথম পরমাণু বোমা ব্যবহারের পক্ষে নয় ভারত, তবে ভবিষ্যতে কী হবে বলবে পরিস্থিতি: রাজনাথ সিংহ

ভারত প্রথম পরমাণু অস্ত্র প্রয়োগের পক্ষে নয়। তবে ভবিষ্যতে কী হবে তা পরিস্থিতির ওপর নির্ভর করছে, এমনই মন্তব্য করলেন প্রতিরক্ষামন্ত্রী রাজনাথ সিংহ। শুক্রবার রাজস্থানের পোখরানে আর্মি স্কাউটস-মাস্টার প্রতিযোগিতার একটি অনুষ্ঠানে যোগ দিতে যান রাজনাথ সিংহ। সেখানে সাংবাদিকদের মুখোমুখি হয়ে তিনি বলেন, ভারতকে পারমাণবিক শক্তিশালী করে তোলার ব্যাপারে দৃঢ় সংক‌ল্প ছিলেন প্রাক্তন প্রধানমন্ত্রী অটল বিহারী বাজপেয়ীর। তবে প্রথম থেকেই পরমাণুর ‘নো ফার্স্ট ইউজ’ সম্পর্কে ভারত প্রতিজ্ঞাবদ্ধ। কিন্তু ভবিষ্যতে কী হবে তা নির্ভর করবে পরিস্থিতির উপর,মন্তব্য করেন প্রতিরক্ষামন্ত্রী।
রাজস্থানের পোখরানেই ভারত দু’বার পরমাণু পরীক্ষা করেছিল, ১১৯৭৪ ও ১৯৯৮ সালে। ১৯৯৮ সালে ভারতের প্রধানমন্ত্রী ছিলেন অটল বিহারী বাজপেয়ী। পোখরানের সেনা অনুষ্ঠানে প্রাক্তন প্রধানমন্ত্রীর প্রথম মৃত্যুবার্ষিকীতে সম্মান জানিয়ে এমনই মন্তব্য করেন রাজনাথ সিংহ।
প্রসঙ্গত, ২০১৪ সালের লোকসভা নির্বাচনে বিজেপির ইশতেহারে অনেক প্রতিশ্রুতির মধ্যে একটি ছিল, আগামী সময়ে ভারতের পরমাণু নীতি পরিমার্জনা করবে বিজেপি সরকার। যদিও পরে প্রধানমন্ত্রী নরেন্দ্র মোদী জানিয়েছিলেন, পরমাণু ব্যবহারে ভারত ‘নো ফার্স্ট ইউজ পলিসি’তেই অটল থাকবে। তবে ফেব্রুয়ারি মাসে পুলওয়ামায় পাক মদতপুষ্ট জঙ্গি সংগঠন জৈশ-ই-মহাম্মদের আত্মঘাতী বিস্ফোরণ এবং জম্মু-কাশ্মীর থেকে ৩৭০ ধারা বিলোপ করার প্রেক্ষিতে বর্তমান ভারত-পাক সম্পর্ক যে পর্যায়ে পৌঁছেছে, সেখানে কেন্দ্রীয় প্রতিরক্ষামন্ত্রী রাজনাথ সিংহের পরমাণু সংক্রান্ত এই মন্তব্য তাৎপর্যপূর্ণ বলে মনে করছেন ওয়াকিবহাল মহল।

Comments
Loading...