তিন তালাক বিল নিয়ে রাজ্যসভায় শাসক-বিরোধী বিতণ্ডা, মুলতুবি অধিবেশন

সোমবার রাজ্যসভায় আটকে গেল তিন তালাক বিল। সরকার ও বিরোধীদের বাগ-বিতণ্ডার জেরে বুধবার পর্যন্ত রাজ্যসভা মুলতুবি রাখা হল। গত সপ্তাহে লোকসভায় সংশোধনী বিল পাস হওয়ার পর সোমবার রাজ্যসভায় পেশ হয় তিন তালাক বিল। কিন্তু প্রবল হট্টগোলের জেরে ২ রা জানুয়ারি পর্যন্ত রাজ্যসভা মুলতবি হয়ে যায়।
সংশোধিত বিলের দুটি জায়গা নিয়ে আপত্তি তুলেছে বিরোধীরা। এক, সংশোধিত বিলে বলা হয়েছে, তিন তালাকে অপরাধ প্রমাণিত হলে তিন বছর পর্যন্ত সাজা হতে পারে। কংগ্রেস ও অন্যান্য বিরোধী দলগুলির যুক্তি, অন্য কোনও ধর্মে বিবাহ বিচ্ছেদের জন্য ফৌজদারি মামলা হয় না। তাহলে তিন তালাকের ক্ষেত্রে কেন হবে?
দুই, সংশোধনী বিলে বলা হয়েছে, স্বামী জেলে থাকার সময়ও স্ত্রীর খোরপোশের দায়িত্ব নিতে হবে তাকে। বিরোধী দলের যুক্তি, স্বামী জেলে থাকলে কীভাবে স্ত্রীয়ের দেখভাল করবে। এই নিয়ে বৃহস্পতিবার সরকার ও বিরোধীদের তীব্র তর্ক-বিতর্ক চলে।
রাজ্যসভায় বিল পেশ করে আইনমন্ত্রী রবিশঙ্কর প্রসাদ দাবি করেন, যে সমস্ত মুসলিম মহিলাদের দিন অতিবাহিত হয় চূড়ান্ত অবহেলা ও অপমানে তাঁদের নিয়ে রাজনীতি করা কাম্য নয়। তিনি আরও দাবি করেন, কোনও নির্দিষ্ট সম্প্রদায়কে নিশানা করাও এই বিলের লক্ষ্য নয়। বিজেপি সর্বভারতীয় সভাপতি অমিত শাহ কংগ্রেসের কড়া সমালোচনা করে বলেন, মুসলিম মহিলাদের সম্মান এবং মর্যাদা দেওয়ার লক্ষ্যে লোকসভায় তিন তালাক বিল পাস করানো ছিল এক ঐতিহাসিক পদক্ষেপ।
অন্যদিকে কংগ্রেস, সমাজবাদী পার্টি, টিআরএস, তৃণমূল একযোগে এই বিলের বিরোধিতা করে দাবি করেছে, বিল আগে ‘সিলেক্ট কমিটি’তে পাঠিয়ে তারপর লোকসভায় আনা হোক। সরকার পক্ষের দাবি, বিল নিয়ে অযথা রাজনীতি করছে বিরোধীরা।

Comments
Loading...