মূর্তির উচ্চতার প্রতিযোগিতায় এবার যোগী আদিত্যনাথ সরকার, সরযূ নদীর তীরে ২২৫ মিটার উঁচু ব্রোঞ্জের রাম মূর্তির ঘোষণা

সর্দার বল্লভ ভাই প্যাটেলের স্ট্যাচু নিয়ে সম্প্রতি দেশজুড়ে হয়েছে এক দফা বিতর্ক। মূর্তির উচ্চতার প্রতিযোগিতায় প্যাটেলকে জেতাতে মুম্বইয়ে শিবাজির প্রস্তাবিত মূর্তির উচ্চতা কমানো হচ্ছে বলে মহারাষ্ট্রে বিজেপি সরকারের বিরুদ্ধে অভিযোগ এনেছে শিবসেনা। এবার মূর্তির উচ্চতার লড়াইয়ে সামিল হল যোগী আদিত্যনাথের উত্তর প্রদেশ সরকার। দুনিয়ার মধ্যে উচ্চতম মূর্তি রামেরই হবে, জানাল তারা। আর জানাল এমন সময়, যখন অযোধ্যায় রাম মন্দির নির্মাণের জন্য ক্রমাগত বিজেপির ওপর চাপ বাড়াচ্ছে আরএসএস, বিশ্ব হিন্দু পরিষদ, শিবসেনাসহ বিভিন্ন হিন্দু সংগঠন।
জল্পনা-আলোচনা চলছিলই, এবার সরকারিভাবে ঘোষিত হল। শনিবার উত্তর প্রদেশের যোগী আদিত্যনাথ সরকারের তরফে সরকারিভাবে জানানো হয়েছে, তারা সরযূ নদীর ধারে বিশালাকার রাম মূর্তি বানাতে চলেছে। সরকারের দাবি, মূর্তিটি তৈরি হলে এটিই হবে বিশ্বের উচ্চতম স্ট্যাচু। যোগী সরকারের পরিকল্পনা অনুযায়ী, সম্পূর্ণ ব্রোঞ্জ দিয়ে নির্মিত এই প্রকল্পটির মোট উচ্চতা হবে ২২১ মিটার। শুধু রামের মূর্তিটিই হবে ১৫০ মিটারের, রামের মাথায় থাকবে একটি ছাতা। লিখিত সরকারি বিবৃতির সঙ্গে প্রস্তাবিত রাম মূর্তির একটি ছবিও প্রকাশ করেছে উত্তর প্রদেশ সরকার।
তবে এই প্রকল্পটি সরযূ নদীর তীরে ঠিক কোন জায়গায় হবে বা প্রকল্পের খরচ কত হবে বা মূর্তি নির্মাণের বিপুল খরচ কোথা থেকে আসবে সে বিষয় খোলসা করেনি যোগী আদিত্যনাথের সরকার। এই মুহূর্তে বিশ্বের উচ্চতম মূর্তি হল গুজরাতে প্যাটেলের স্ট্যাচু অফ ইউনিটি। নর্মদা নদীর তীরে সর্দার সরোবর বাঁধের কাছে নির্মিত সর্দার বল্লভ ভাই প্যাটেলের এই মূর্তির উচ্চতা প্রায় ২০০ মিটার। স্ট্যাচু অফ ইউনিটি তৈরিতে গুজরাত সরকারের প্রায় ৩ হাজার কোটি টাকা খরচ হয়েছে। স্বাভাবিকভাবেই মনে করা হচ্ছে প্রস্তাবিত রাম মূর্তি নির্মাণের খরচ একেও ছাপিয়ে যাবে।
অযোধ্যায় দ্রুত রাম মন্দির নির্মাণের দাবিতে কেন্দ্র ও উত্তরপ্রদেশের বিজেপি সরকারের উপর ক্রমশ চাপ বাড়াচ্ছে আরএসএস, বিশ্ব হিন্দু পরিষদসহ দেশের হিন্দু সংগঠনগুলি। অযোধ্যা জমি মামলা এখনও অমীমাংসিত অবস্থায় সুপ্রিম কোর্টে বিচারাধীন, যার নিস্পত্তি হতে এখনও বেশ কিছুটা সময় লাগবে বলেই মনে করা হচ্ছে। কিন্তু আরএসএস চাইছে যত দ্রুত সম্ভব কেন্দ্রের বিজেপি সরকার নয়া আইন এনে অযোধ্যায় রাম মন্দির গড়ার পথ প্রশস্ত করুক। পাশাপাশি রাজ্য সরকারের উপর ঘুরপথে চাপ বাড়াতে রবিবারই অযোধ্যায় বিশ্ব হিন্দু পরিষদ, শিব সেনার মতো দলগুলির ডাকে ধর্মসভা অনুষ্ঠিত হয়েছে। এখান থেকে ফের রাম মন্দির দাবি উঠছে। সেই সভার আগের দিন হিন্দু সংগঠনগুলিকে বার্তা দিতেই উচ্চতম রাম মূর্তির ঘোষণা করল যোগী আদিত্যনাথ সরকার।

Comments
Loading...