আরবিআই-কেন্দ্রের নয়া সংঘাতঃ কেন্দ্র আরবিআই-এর কাছে চাইল ৩.৬ লক্ষ কোটি টাকা, না উর্জিত প্যাটেলের

রিজার্ভ ব্যাঙ্কের স্বাধীনতা প্রসঙ্গে কেন্দ্র বনাম আরবিআই ঠান্ডা লড়াইয়ের মাঝেই ফের নয়া বিতর্ক। এবার বিতর্কের মূলে, আরবিআই-এর কাছে কেন্দ্রের ৩.৬ লক্ষ কোটি চাওয়া এবং আরবিআই-এর পক্ষ থেকে তা নাকচ করে দেওয়া।
সূত্রের খবর, সম্প্রতি কেন্দ্রীয় অর্থ মন্ত্রকের তরফে আরবিআই-এর কাছে চিঠি পাঠিয়ে ৩.৬ লক্ষ কোটি টাকা (সারপ্লাস) চাওয়া হয়েছে। কেন্দ্রের দাবি, আরবিআই-এর কাছে এই মুহূর্তে ৯.৫৯ লক্ষ কোটি টাকার আর্থিক তহবিল রয়েছে। যা মূলত আপৎকালীন সময়ের জন্য রাখা হয়। কিন্তু কেন্দ্রের বক্তব্য, যে হিসেব অনুযায়ী এই বিপুল পরিমাণ টাকা আরবিআই জমা রেখেছে, তা সেকেলে এবং রক্ষণাত্মক হিসেব। বাস্তবে এত টাকা আপৎকালীন সময়ের জন্য জমা রাখার প্রয়োজন নেই। তাই এই জমা টাকার প্রায় এক তৃতীয়াংশ, অর্থাৎ, ৩.৬ লক্ষ কোটি টাকা কেন্দ্রকে দিক আরবিআই। প্রয়োজনে যৌথভাবে সিদ্ধান্ত নেওয়া হবে এই অতিরিক্ত অর্থ বা সারপ্লাস কীভাবে ব্যবহার করা হবে।
কেন্দ্রের যুক্তি, ২০১৭ সালে জুলাই মাসে যে ফ্রেম ওয়ার্কের মাধ্যমে এই তহবিলে জমা থাকা অর্থের পরিমাণের বিষয়ে আলোচনা করে সিদ্ধান্ত নেওয়া হয়, সেখানে কেন্দ্রের কোনও প্রতিনিধি উপস্থিত ছিলেন না। এখন কেন্দ্র চাইছে, এই অতিরিক্ত টাকা রাষ্ট্রায়ত্ত্ব ব্যাঙ্কগুলোকে দেওয়া হোক, যাতে ঋণ প্রদানের পরিমাণ বাড়ে। কেন্দ্রের একটি অংশ মনে করছে আরবিআই কিছু ক্ষেত্রে সেকেলে ও স্বৈরাচারী মনোভাব নিয়ে চলছে, যা ঠিক নয়।
আরবিআই মনে করছে, কেন্দ্র যেভাবে তাদের হাতে থাকা গচ্ছিত তহবিলে হস্তক্ষেপের চেষ্টা করছে, তা হলে তা দেশের অর্থনীতিতে কুপ্রভাব পড়বে। তাই আরবিআই কেন্দ্রের এই দাবি মানছে না।
নিয়ম অনুযায়ী, আরবিআই প্রতি অর্থবর্ষেই গচ্ছিত অর্থের একটা অংশ বা সারপ্লাস কেন্দ্রকে দেয়। চলতি অর্থবর্ষে সারপ্লাস বাবদ কেন্দ্রকে ৫০ হাজার কোটি টাকা দিয়ে দেওয়া হয়েছে। কিন্তু কেন্দ্র এতে সন্তুষ্ট নয়, আরও অর্থ চাইছে তারা। দরকারে নিয়ম বদলের কথাও শোনা যাচ্ছে কেন্দ্রের অন্দরে। গত অর্থবর্ষে আরবিআই সারপ্লাস বাবদ কেন্দ্রকে দিয়েছিল ৩০ হাজার ৬৫৯ কোটি টাকা।

Comments
Loading...