সাবরীমালায় মহিলাদের প্রবেশে বাধা নেই, ইউ টার্ন নিয়ে সুপ্রিম কোর্টে জানাল মন্দিরের পরিচালনাকারী বোর্ড

সাবরীমালা মন্দিরে ঋতুমতী মহিলাদের প্রবেশাধিকার বিষয়ে ‘ইউ টার্ন’ নিল মন্দির পরিচালনাকারী ত্রিভাঙ্কর দেবোস্বম বোর্ড (টিডিবি)।
২০১৮ সালের সেপ্টেম্বর মাসে সাবরীমালা মন্দির নিয়ে সুপ্রিম কোর্টের ঐতিহাসিক রায়ের বিরোধিতা করে মন্দির পরিচালনাকারী বোর্ড জানিয়েছিল, আদালতের এই নির্দেশ সাবরীমালা মন্দিরের প্রাচীন প্রথা ও বিশ্বাস বিরোধী। তারা এও জানিয়েছিল, কোনও ঋতুমতী মহিলার পক্ষে মন্দিরের রীতি অনুসারে টানা ৪১ দিনের ব্রত করা সম্ভব নয়। পরে, শীর্ষ আদালতের এই নির্দেশ বলবৎ করতে তাদের আরও সময় লাগবে বলে জানিয়েছিল ত্রিভাঙ্কর দেবস্বম বোর্ড কর্তৃপক্ষ।
কিন্তু বুধবার, ত্রিভাঙ্কর দেবস্বম বোর্ডের তরফে শীর্ষ আদালতকে জানানো হয়, সাবরীমালা মন্দিরে ১০ থেকে ৫০ বছর বয়সী মহিলাদের প্রবেশ নিয়ে তাদের কোনও আপত্তি নেই।
সাবরীমালা মন্দিরের ঐতিহাসিক রায়ের পর্যালোচনার জন্য দায়ের হওয়া প্রায় ৬০ টি মামলাকারীর বক্তব্য শোনেন প্রধান বিচারপতি রঞ্জন গগৈয়ের ডিভিশন বেঞ্চ। যেখানে অধিকাংশ মামলাকারী এই ঐতিহাসিক রায়ের পর্যালোচনা জরুরি বলে দাবি জানিয়েছে।
কিন্তু যে মন্দির পরিচালনাকারী বোর্ড প্রথম থেকে শীর্ষ আদালতের রায়ের বিরোধিতা করে এসেছে তারাই মন্দিরে মহিলাদের প্রবেশাধিকারের পক্ষে সায় দেওয়ায় চমকে গিয়েছেন অনেকে। বুধবার শীর্ষ আদালতে ত্রিভাঙ্কর দেবস্বম বোর্ড জানায়, সাবরীমালা মন্দিরে সবার প্রবেশাধিকার রয়েছে। সমান অধিকারের প্রশ্নে যে কোনও প্রথাই ফিকে।
প্রসঙ্গত, গত বছরের নভেম্বর মাসেই, সাবরীমালা ইস্যুতে আদালতের নির্দেশ বলবৎ করতে আরও সময় প্রয়োজন বলে বোর্ডের তরফে শীর্ষ আদালতে আবেদন করা হয়েছিল। বলা হয়েছিল, মন্দিরে মহিলাদের প্রবেশের জন্য উপযুক্ত পরিকাঠামো তৈরি করতে হবে। সেখান থেকে তাদের এই অবস্থান বদল সম্পর্কে প্রশ্ন তোলেন বিচারপতি ইন্দু মালহোত্র। তাঁর প্রশ্নের জবাবে বোর্ডের তরফের আইনজীবী রাকেশ দ্বিবেদী জানান, শীর্ষ আদালতের নির্দেশকে শ্রদ্ধা করতেই পূর্ব অবস্থান থেকে সরে এসেছে ত্রিভাঙ্কর দেবস্বম বোর্ড।

Comments
Loading...