সাবরীমালাঃ ‘আরএসএসের আচরণ খালিস্থানী জঙ্গিদের মতো’, বললেন কেরলের সিপিএম রাজ্য সম্পাদক কোডিয়ারি বালাকৃষ্ণণ

সাবরীমালা মন্দিরে মহিলাদের প্রবেশাধিকার ইস্যুতে কেরলে তীব্র রাজনৈতিক চাপান-উতোরের মধ্যেই নয়া সংঘাত শুরু হল সিপিএমের সঙ্গে আরএসএসের।
সাবরীমালা মন্দিরে মহিলাদের প্রবেশাধিকার ইস্যুতে বিক্ষোভের জন্য আরএসএসকে খালিস্থানী জঙ্গিদের সঙ্গে তুলনা করলেন কেরলের সিপিএম রাজ্য সম্পাদক কোডিয়ারি বালাকৃষ্ণণ। এই বিক্ষোভের জন্য সরাসরি বিজেপি এবং আরএসএসের দিকে আঙুল তুলে কেরলের সিপিএম রাজ্য সম্পাদক বলেন, ‘আরএসএসের লক্ষ্য পরিষ্কারভাবে বোঝা যাচ্ছে। এদের আচরণ ঠিক খালিস্তানী জঙ্গিদের মতো।’ কোডিয়ারি বালাকৃষ্ণণের এই মন্তব্যের পরই শুরু হয়েছে তীব্র বিতর্ক। কড়া প্রতিক্রিয়া দিয়েছে বিজেপি।
মঙ্গলবার কোডিয়ারি বালাকৃষ্ণণ বলেন, যেভাবে খালিস্তানীরা অমৃতসরে স্বর্ণ মন্দিরের কর্তৃত্ব হাতাতে চেয়েছিল, সাবরীমালা মন্দিরে ঠিক সেই পথ অনুসরণ করছে আরএসএস। এখানেই থামেননি বালাকৃষ্ণণ। তাঁর অভিযোগ, নিজেদের সংকীর্ণ রাজনৈতিক স্বার্থসিদ্ধি করতে মহিলা ও শিশুদের ঢাল হিসেবে ব্যবহার করছে বিজেপি ও আরএসএস। পাশাপাশি সাবরীমালা মন্দিরের সামনে নিরাপত্তায় বহাল থাকা পুলিশের ভূমিকার প্রশংসা করেন তিনি। সিপিএম রাজ্য সম্পাদকের এই মন্তব্যের তীব্র সমালোচনা করে বিজেপি নেতা গিরিরাজ সিংহ বলেন, কেরলে সিপিএমের আচরণ উত্তর কোরিয়ার কমিউনিস্ট শাসক কিম জং উনের মতো।
এর আগে কেরলের মুখ্যমন্ত্রী পিনারাই বিজয়নও সাবরীমালা মন্দিরে বিক্ষোভের জন্য বিজেপি-আরএসএসকেই দায়ী করেছেন। পাশাপাশি, বিজেপির সঙ্গে কেরল কংগ্রেসও স্রেফ রাজনৈতিক কারণে সুপ্রিম কোর্টের নির্দেশ অগ্রাহ্য করে সব বয়সী মহিলাকে মন্দিরে প্রবেশে বাধা দিচ্ছে বলে অভিযোগ সিপিএমের। কয়েকদিন আগেই এই মন্দিরে মহিলাদের প্রবেশাধিকারের ইস্যুতে বিজয়ন নিজে সর্বদলীয় মিটিং ডেকেছিলেন, যেখান থেকে একযোগে ওয়াক আউট করে বিজেপি এবং কংগ্রেস। সিপিএমের অভিযোগ, মন্দির ইস্যুতে কংগ্রেসের এই রাজনীতি ধর্ম নিরপেক্ষ কেরলে বিজেপিকে ডেকে আনছে।
সাবরীমালা মন্দিরে মহিলাদের প্রবেশাধিকারে প্রসঙ্গে সুপ্রিম কোর্টের ঐতিহাসিক রায়ের পরই তার বিরোধিতায় নামে এই মন্দির কর্তৃপক্ষ, বিজেপি-আরএসএস এবং সেই রাজ্যের একাধিক হিন্দু সংগঠন। ১০ থেকে ৫০ বছর বয়সী মহিলাদের মন্দিরে ঢুকতে দেওয়া হবে না বলে ফতোয়া দেয় তারা। মন্দিরে প্রবেশ নিয়ে আইন-শৃঙ্খলার অবনতি হয়। কড়া হাতে পরিস্থিতি মোকাবিলায় নামে পিনারাই বিজয়নের নেতৃত্বে সিপিএম সরকার। যাঁরা মন্দিরে মহিলাদের প্রবেশে বাধা দিচ্ছিলেন, তাঁদের বিরুদ্ধে আইনি ব্যবস্থাও নেওয়া হয়। কিন্তু এরপরেও অবস্থান থেকে এক চুলও নড়েনি বিক্ষোভকারীরা। মন্দিরে মহিলাদের প্রবেশ রুখতে বিক্ষোভ জারি রয়েছে। এদিকে এক মামলায় কেরল হাইকোর্টের প্রাথমিক পর্যবেক্ষণ, বিশাল সংখ্যক পুলিশ বাহিনী মোতায়েনের ফলে সমস্যায় পড়েছেন দর্শনার্থীরা।

Comments
Loading...