বিশ্বব্যাপী মন্দা-ছাঁটাইয়ের আবহে ব্যতিক্রম ক্যাপজেমিনি, ভারতে সিংহভাগ কর্মীর বেতন বৃদ্ধি ফরাসি তথ্য প্রযুক্তি সংস্থার

করোনা তাণ্ডবে বিশ্ব অর্থনীতির ভিত নড়ে যাওয়ার জোগাড়। বিভিন্ন নামী সংস্থা থেকে মাঝারি বা ছোট কোম্পানি, হয় কর্মীদের বেতন কাটছে, নয়তো ছাঁটাই ঘোষণা করছে। এই সময়ে সংস্থার কর্মীদের বিশ্বাস ধরে রাখতে অসামান্য উদ্যোগ ফরাসি তথ্যপ্রযুক্তি সংস্থা ক্যাপজেমিনির (Capgemini)।

ভারতে তাদের মোট ১ লক্ষ ২০ হাজার কর্মীর মধ্যে ৭০ শতাংশের বেতন বৃদ্ধির কথা ঘোষণা করেছে সংস্থা। ১ এপ্রিল থেকে সংস্থার ৮৪ হাজার কর্মী নয়া হারে বেতন পাচ্ছেন। বাকি কর্মীরা জুলাই থেকে এই ইনক্রিমেন্ট পাবেন বলে জানিয়েছে ক্যাপজেমিনি। বর্তমান পরিস্থিতিতে কোনও সংস্থার তার কর্মীদের প্রতি এই আচরণ তাৎপর্যপূর্ণ।

এখানেই শেষ নয়। অতিমারি এবং লকডাউনের কথা মাথায় রেখে Capgemini-র যে কর্মীরা থাকার জায়গা নিয়ে সমস্যায় পড়েছেন, তাঁদের প্রত্যেককে নগদ ১০ হাজার টাকা করে দেওয়ার কথা ঘোষণা করা হয়েছে। পাশাপাশি উদ্ভুত পরিস্থিতিতে যে কর্মীরা এই মুহূর্তে কোনও প্রোজেক্টে কাজ করছেন না, তাঁরাও পুরো বেতন পাবেন বলে জানিয়েছে ক্যাপজেমিনি।

সংস্থার সিইও অশ্বিন ইয়ার্দি সংবাদমাধ্যমকে জানান, এই সমস্যাবহুল সময়ে কর্মীদের আস্থা অর্জনে আমরা কী ধরনের পদক্ষেপ করেছি তা অন্যদের কাছে দৃষ্টান্ত হয়ে থাকবে। শুধু কথার কথা নয়, আমরা কর্মীদের পাশে থেকে তা করে দেখিয়েছি। এর জন্য সংস্থার উপর বাড়তি চাপ আসবে ঠিক, কিন্তু তা ভাবার সময় এখন নয় বলে জানান ক্যাপজেমিনির সিইও।

তিনি আরো জানান, এই অভূতপূর্ব পরিস্থিতিতে কর্মীদের টাইমলাইন নিয়ে ভাবার প্রশ্ন নেই। কীভাবে এই দুঃসময় কাটিয়ে সামনে এগিয়ে যাওয়া যাবে, তাই নিয়েই ভাবছে সংস্থা। ইয়ার্দি জানিয়েছেন, ক্যাপজেমিনির ‘এ’ ও ‘বি’ গ্রেডের সমস্ত কর্মীদের (৮৪ হাজার) এই মাস থেকেই নয়া হারে বেতন দেওয়া হয়েছে।

তথ্যপ্রযুক্তি ক্ষেত্রের অন্যান্য সংস্থায় যখন বিনা বেতনে কর্মীদের ছুটিতে পাঠানো, ছাঁটাইয়ের কথা শোনা যাচ্ছে তখন, ক্যাপজেমিনি জানিয়ে দিল কর্মীদের পারিশ্রমিক কেটে নেওয়ার কোনও প্রশ্নই নেই।

বর্তমানে এই ফরাসি তথ্যপ্রযুক্তি সংস্থার ৯৫ শতাংশ কর্মীই বাড়ি থেকে কাজ করছেন। কোভিড-১৯ সংক্রমণ এড়াতে সংস্থার প্রায় পুরো ওয়ার্ক ফোর্সকে বাড়ি থেকে কাজ করানো শুরুতে খানিক অসুবিধের হলেও, পরে তার পরিকাঠামো তৈরি করা গিয়েছে বলে জানায় ক্যাপজেমিনি। সংস্থার পক্ষ থেকে বলা হয়, এপ্রিল মাসে যাঁদের প্রমোশন দেওয়ার কথা ভাবা হয়েছিল, তা জুন মাসে ঘোষণা হবে এবং জুলাই মাস থেকে কার্যকর হয়ে যাবে।

শুধু তাই নয়, মেডিক্যাল ইনসুরেন্সের সুবিধা ছাড়াও বর্তমান অতিমারির কথা মাথায় রেখে একটি ২০০ কোটি টাকার ফান্ড তৈরি করেছে ফরাসি সংস্থাটি। Capgemini-এর কোনও কর্মী বা তাঁর পরিবার স্বাস্থ্য সঙ্কটে পড়লে কাজে আসবে এই তহবিল।

Comments
Loading...