কেন্দ্রীয় হারে ডিএ দিতে হবে রাজ্যকে, ৩ মাসের মধ্যে নিতে হবে সিদ্ধান্ত, নির্দেশ স্যাটের

কেন্দ্রীয় হারেই রাজ্য সরকারের কর্মচারীদের ডিএ দিতে হবে। কোনো বৈষম্যমূলক আচরণ করা যাবে না। গোটা দেশের মূল্য সূচক দেখে রাজ্য সরকারের কর্মচারীদের ডিএ নির্ধারণ করতে হবে জানাল স্টেট অ্যাডমিনিস্ট্রেটিভ ট্রাইব্যুনাল (স্যাট)।
বৃহস্পতিবার স্যাটের পর্যবেক্ষণ, ২০০১ সাল থেকে ২০১০ পর্যন্ত রাজ্য সরকারি কর্মচারীরা ডিএ পেলেও, ২০১১ সালের পর তা অনিয়মিত হয়ে পড়ে। যা বৈষম্যমূলক বলে মনে করছে স্যাট। কেন্দ্রের সঙ্গে রাজ্যের  বর্তমান ডিএয়ের ফারাক দাঁড়িয়েছে ২৯ শতাংশে। প্রচুর বকেয়া পড়ে রয়েছে। এই অবস্থায় ৩ মাসের মধ্যে রাজ্য সরকারকে এ নিয়ে সিদ্ধান্ত গ্রহণ করে নোটিস দিতে হবে বলে নির্দেশ স্যাটের।
সারা দেশে মূল্যবৃদ্ধির সঙ্গে সাযুজ্য রেখে সরকারি কর্মচারীদের মহার্ঘ ভাতা নির্ধারণ করা হয়। কিন্তু কেন্দ্রীয় ও রাজ্য সরকারি কর্মচারীদের ডিএয়ের মধ্যে যে বিপুল ফারাক তাকে বৈষম্যমূলক বলে মনে করছে স্যাট। সরকারের তরফে জানানো হয়েছিল, আর্থিক কারণে বকেয়া ডিএ দেওয়া সম্ভব হচ্ছে না, যে যুক্তি খারিজ করেছে স্যাট। অনিয়মিত ডিএ দেওয়ায় প্রচুর বকেয়া পরে রয়েছে রাজ্য সরকারের কর্মচারীদের। স্যাটের নির্দেশ, ৩ মাসের মধ্যে এ বিষয়ে নীতি নির্ধারণ করতে হবে রাজ্য সরকারকে। ১ বছরের মধ্যে বা ষষ্ঠ পে কমিশন লাগু হওয়ার আগে,এই সময়ের মধ্যে যেটা আগে হবে তার মধ্যে রাজ্য সরকারের কর্মচারীদের বকেয়া মহার্ঘ ভাতা দিতে হবে। কীভাবে এই বকেয়া মেটানো হবে তা ঠিক করতে হবে রাজ্যকেই, জানিয়েছে স্টেট অ্যাডমিনিস্ট্রেটভ ট্রাইব্যুনাল।

Comments
Loading...