ঋণখেলাপিদের তালিকা প্রকাশ করুন, আরবিআইকে ‘শেষ সুযোগ’ দিয়ে বলল সুপ্রিম কোর্ট

রিজার্ভ ব্যাঙ্ককে শেষ সুযোগ। ব্যাঙ্কিং ব্যবস্থায় স্বচ্ছতা ফেরাতে গুরুত্বপূর্ণ নির্দেশ শীর্ষ আদালতের। শুক্রবার রিজার্ভ ব্যাঙ্ক অফ ইন্ডিয়াকে ঋণখেলাপিদের তালিকা এবং বার্ষিক ইন্সপেকশন রিপোর্ট তথ্য জানার অধিকার আইনে প্রকাশ্যে আনার নির্দেশ দিল সুপ্রিম কোর্ট।

ব্যাঙ্ক থেকে ঋণ নিয়ে তা শোধ না করার তালিকা ভারতে ক্রমেই দীর্ঘ থেকে দীর্ঘতর হয়ে চলেছে। বিজয় মালিয়া থেকে নীরব মোদী, হাজার হাজারো কোটি টাকা ঋণখেলাপির মামলায় অভিযুক্ত। এবার এই প্রেক্ষিতে অত্যন্ত তাৎপর্যপূর্ণ নির্দেশ দিল সুপ্রিম কোর্ট। শুক্রবার আরটিআই আন্দোলনকারী সুভাষচন্দ্র আগরওয়াল ও গিরিশ মিত্তলের দায়ের করা এক মামলার প্রেক্ষিতে রিজার্ভ ব্যাঙ্ক অব ইন্ডিয়াকে এই নির্দেশ দেয় দেশের শীর্ষ আদালত। পাশাপাশি আরবিআই এই নির্দেশ না মানলে, তা বড় ধরনের আদালত অবমাননার সামিল বলে গন্য করা হবে বলেও জানিয়েছে সুপ্রিম কোর্ট। বিচারপতি নাগেশ্বর রাও এবং এম আর শাহের বেঞ্চ আরবিআইকে সাফ জানিয়ে দেয়, এর আগে একই নির্দেশের প্রেক্ষিতে রিজার্ভ ব্যাঙ্ক কোনও পদক্ষেপ গ্রহণ করেনি। এবার তাই তাদের শেষ সুযোগ দেওয়া হচ্ছে।
তথ্যের অধিকার আইনে বিভিন্ন ব্যাঙ্কে পরিদর্শন সংক্রান্ত রিপোর্ট আরবিআই প্রকাশ করছে না, এই অভিযোগে সুপ্রিম কোর্টে মামলা করেছিলেন দুই আবেদনকারী। তাঁদের অভিযোগ, শীর্ষ আদালতের নির্দেশ সত্ত্বেও, আরটিআইয়ের ভিত্তিতে পরিদর্শন সংক্রান্ত রিপোর্ট প্রকাশ করেনি রিজার্ভ ব্যাঙ্ক অব ইন্ডিয়া। আরবিআইয়ের প্রাক্তন গভর্নর উর্জিত প্যাটেলের সময় ইচ্ছাকৃতভাবে এই ঘটনা ঘটেছে বলে আদালতে অভিযোগ করা হয়।
এই ব্যাপারে আরবিআইকে নিজেদের নীতিতে পরিবর্তন করতে বলে বিচারপতি এল নাগেশ্বর রাওয়ের সিঙ্গেল বেঞ্চ আরবিআইকে নির্দেশ দিয়েছিল। সুপ্রিম কোর্টের বিচারপতি রায় ঘোষণার সময় জানিয়েছিলেন, আরটিআইয়ের ভিত্তিতে, বিভিন্ন ব্যাঙ্কে পরিদর্শন সংক্রান্ত রিপোর্ট প্রকাশ করতে আইনত বাধ্য দেশের সেন্ট্রাল ব্যাঙ্ক।

রিজার্ভ ব্যাঙ্ক অব ইন্ডিয়ার কাছে ২০১৫ সালে একটি আরটিআইয়ে আবেদন করা হয়, ২০১১ সাল থেকে ২০১৫ সাল পর্যন্ত আইসিআইসিআই ব্যাঙ্ক, অ্যাক্সিস ব্যাঙ্ক এবং এইচডিএফসি ব্যাঙ্কে পরিদর্শন সংক্রান্ত রিপোর্ট প্রকাশ করার জন্য। কিন্তু অভিযোগ, আরবিআই ‘নন ডিসক্লোজার ইস্যু’র কারণ দেখিয়ে তা এড়িয়ে যায়। বিষয়টি সুপ্রিম কোর্টে উঠলে, আদালত জানায়, এভাবে কোনও তথ্য প্রকাশ থেকে বিরত থাকতে পারে না রিজার্ভ ব্যাঙ্ক। এই সম্পর্কে ২০১৯ সালের গোড়াতেই রিজার্ভ ব্যাঙ্ককে নোটিস পাঠিয়েছিল সুপ্রিম কোর্ট। এরপর শুক্রবার রিজার্ভ ব্যাঙ্ক অব ইন্ডিয়াকে কড়া নির্দেশিকা দিল সুপ্রিম কোর্ট।

Comments
Loading...