অযোধ্যা ইস্যুতে সুপ্রিম কোর্টকে টেনে প্রধানমন্ত্রীর মন্তব্য আদালতকে অবমাননা করা, মত কপিল সিব্বলের

অযোধ্যা নিয়ে নরেন্দ্র মোদীর বক্তব্যের জবাব দিল কংগ্রেস।
কংগ্রেস চায় না ২০১৯ লোকসভা ভোটের আগে অযোধ্যায় জমি বিবাদ ও রাম মন্দির ইস্যুর সমাধান হোক। তারা বিচার ব্যবস্থার মধ্যে এর জন্য ভয়ের পরিবেশ তৈরি করছে, প্রধান বিচারপতি এর দ্রুত শুনানির চেষ্টা করলে তাঁর বিরুদ্ধে ইমপিচমেন্ট প্রস্তাব আনার পরিকল্পনা করছে। রবিবার রাজস্থানের আলওয়ারে এক নির্বাচনী প্রচারে রাম মন্দির ইস্যুতে এমনই মন্তব্য করেছিলেন প্রধানমন্ত্রী নরেন্দ্র মোদী। তখনই প্রশ্ন উঠেছিল, নিজের বক্তৃতায় কংগ্রেসের সঙ্গে সুপ্রিম কোর্টের নাম টেনে বকলমে কি মামলার দ্রুত শুনানির জন্য শীর্ষ আদালতের উপরই চাপ তৈরি করতে চাইলেন প্রধানমন্ত্রী। অনেক মনে করছেন, আসলে কংগ্রেসের চাপে সুপ্রিম কোর্ট মামলার দ্রুত শুনানি করতে পারছে না, এই বলে বিজেপি আসলে চাইছে লোকসভা ভোটের আগে হিন্দু ভাবাবেগে নাড়া দিয়ে রাজনৈতিক ফায়দা তুলতে।
কিন্তু সোমবার প্রধানমন্ত্রীর এই মন্ত্যব্যের কড়া সমালোচনা করেছেন কংগ্রেসের বর্ষীয়ান নেতা তথা অযোধ্যা মামলার অন্যতম আবেদনকারী আইনজীবী কপিল সিব্বল। সিব্বল বলেছেন, প্রধানমন্ত্রীর মন্তব্য অত্যন্ত লজ্জাজনক ও আদালতের অবমাননার সমান। সিব্বলের প্রশ্ন, প্রধানমন্ত্রী কি বলতে চাইছেন যে, সুপ্রিম কোর্ট রাজনৈতিক চাপের মধ্যে কাজ করে? একজন প্রধানমন্ত্রীর এহেন মন্তব্য কাম্য নয় বলে মত সিব্বলের।
তাঁর কটাক্ষ, বিশ্ব হিন্দু পরিষদ রবিবার ধর্মসভার নামে যা করল, তা ভয়ের পরিবেশ তৈরির চেষ্টা ছাড়া আর কিছু নয়। তাঁর মতে, ভয়ের পরিবেশ তৈরির মাধ্যমে বিজেপি ২০১৯ লোকসভা ভোটে জিততে চাইছে।
উল্লেখ্য, অযোধ্যা জমি বিবাদ ও রাম মন্দির নিয়ে সুপ্রিম কোর্টে বিচারাধীন মামলার দ্রুত নিস্পত্তি ও মামলার শুনানি ফাস্ট ট্র্যাক কোর্টে করার আর্জি নিয়ে সুপ্রিম কোর্টে আবেদন করেছিল কিছু হিন্দু সংগঠন। কিন্তু অক্টোবর মাসে প্রধান বিচারপতি রঞ্জন গগৈ জানিয়ে দেন, এই মামলা নিয়ে তাঁরা তাড়াহুড়ো করতে রাজি নন, ২০১৯ এর জানুয়ারি মাসে ঠিক করা হবে সুপ্রিম কোর্টের কোন বেঞ্চে, কবে থেকে এই মামলার শুনানি হবে।
এরপরই আসরে নামে আরএসএস, বজরং দল, বিশ্ব হিন্দু পরিষদসহ একাধিক সংগঠন। সরকারের উপর চাপ বাড়াতে তারা দাবি করছে, দ্রুত অযোধ্যায় রাম মন্দির নির্মাণের কাজ শুরু করতে হবে। প্রয়োজনে সুপ্রিম কোর্টকে এড়িয়ে নয়া বিল এনে আইনের মাধ্যমে মন্দির তৈরির পথ প্রশস্ত করুক কেন্দ্র। কেন্দ্রের বিজেপি সরকারের উপর চাপ বাড়াতে এই দাবিতে রবিবার অযোধ্যায় ধর্মসভাও করে ভিএইচপি। একই দাবি জানিয়েছে শিবসেনার মতো রাজনৈতিক দল। উদ্ভব ঠাকরে রবিবার অযোধ্যায় দাঁড়িয়ে বলেছেন, মন্দির তৈরি নিয়ে বিজেপির আর টালবাহানা চলবে না। দ্রুত মন্দির তৈরি শুরু না হলে পরের ভোটে বিজেপি আর ক্ষমতায় আসবে না। এরপরই রবিবার প্রধানমন্ত্রী রাজস্থানে ওই মন্তব্য করেন।

Comments
Loading...