পাক সেনাপ্রধানকে আলিঙ্গনঃ সিধুর মৃত্যুদণ্ড চাইল বিজেপির সংখ্যালঘু সেল, পাশে নেই কংগ্রেসও

ইমরান খানের শপথ অনুষ্ঠানে যাওয়া এবং সেখানে পাকিস্তানের সেনাপ্রধানকে আলিঙ্গনের ঘটনায় বিতর্কে জড়ালেন দেশের প্রাক্তন ক্রিকেটার, কংগ্রেস নেতা এবং পঞ্জাবের মন্ত্রী নভজ্যোত সিংহ সিধু। শুধু তাই নয়, অনুষ্ঠানে সামনের সারিতে পাক অধিকৃত কাশ্মীরের প্রেসিডেন্টের পাশে তিনি কেন বসেছিলেন তা নিয়েও জটিলতা তৈরি হয়েছে। পাক সেনাপ্রধানকে আলিঙ্গনের জন্য সিধুর মৃত্যদণ্ডের দাবি তুলেছে বিজেপির সংখ্যালঘু সেল। অন্যদিকে, এই ইস্যুতে সিধুর পাশে নেই কংগ্রেসও। পঞ্জাবের মুখ্যমন্ত্রী ক্যাপ্টেন অমরিন্দর সিংহ এই ঘটনার সমালোচনা করে বলেন, পাক সেনাপ্রধানকে আলিঙ্গন করে সিধু ঠিক করেননি। পাক অধিকৃত কাশ্মীরের প্রেসিডেন্টের পাশে তিনি না জেনেও বসে থাকতে পেরেন , কিন্তু সেনাপ্রধানকে জড়িয়ে ধরে ভুল করেছেন সিধু।
শনিবার ইসলামাবাদে ইমরানের প্রধানমন্ত্রী পদে শপথ অনুষ্ঠানে যোগ দেন সিধু। সেই অনুষ্ঠানে সিধু পাকিস্তান যাওয়া নিয়ে আগেই বিতর্ক তৈরি হয়েছিল। কিন্তু বন্ধু ইমরানের আমন্ত্রণে সে দেশে যাচ্ছেন বলে আগে জানিয়েছিলেন দেশের এই প্রাক্তন ক্রিকেটার এবং বর্তমান কংগ্রেস নেতা। শনিবার ইমরানের শপথ অনুষ্ঠানের পরই সিধুর পাক সেনাপ্রধান কামার জাভেদ বাজওয়াকে জড়িয়ে ধরার ছবি প্রকাশ্যে আসে। যদিও সিধু জানিয়েছেন, ‘পাক সেনাপ্রধান নিজেই এগিয়ে এসে পরিচয় করেন। ”বলেন, আমি জেনারেল, ক্রিকেটার হতে চেয়েছিলাম। আমরা শান্তি চাই।” সৌজন্যের খাতিরেই আমি তাঁকে আলিঙ্গন করি।’ কিন্তু এই ঘটনাকে কেন্দ্র করেই শুরু হয়েছে বিতর্ক। বিজেপির সংখ্যালঘু সেলের পক্ষ থেকে দাবি করা হয়েছে, সিধুর দেশে থাকার কোনও অধিকার নেই। তাঁর মৃত্যুদণ্ড হওয়া উচিত।

Comments
Loading...