ইমরানের শপথ অনুষ্ঠানে যাওয়ায় হয়েছিল বিতর্ক, ফের পাক প্রধানমন্ত্রীর প্রশংসা করলেন নভজ্যোৎ সিধু

গুরু নানকের ৫৫০ তম জন্মবার্ষিকী উপলক্ষ্যে ভারতের কার্তারপুর করিডর খুলে দেওয়ার সিদ্ধান্তে পাক প্রধানমন্ত্রী ইমরান খানের উচ্ছ্বসিত প্রশংসা করলেন কংগ্রেস নেতা নভজ্যোৎ সিংহ সিধু। ট্যুইটারে ইমরান খানকে ‘ভাই’ সম্বোধন করে ইমরান সরকারের এই সদর্থক ভূমিকার তারিফ করেন সিধু। পাকিস্তানের তরফ থেকেও ভারতের কার্তারপুর করিডর খোলার সিদ্ধান্তকে ‘শান্তির জয়’ বলে অবহিত করা হয়।
কার্তারপুর করিডর খুলে দেওয়া নিয়ে আগেই পাক বিদেশমন্ত্রী শাহ মামুদ কুরেশি সবুজ পতাকা উড়িয়েছিলেন। এরপর, ভারতের এই সিদ্ধান্তকে অভিনন্দন জানালেন একাধিক পাক মন্ত্রী।
চলতি বছরের অগাস্ট মাসে, সিধু যখন ইমরান খানের শপথগ্রহণ অনুষ্ঠানে যান, তখন আলোচনা প্রসঙ্গে সিধুকে পাকিস্তান সেনা প্রধান বলেছিলেন, গুরু নানকের জন্মতিথি উপলক্ষ্যে কার্তারপুর করিডর খুলে দেবে পাকিস্তান।
পঞ্জাব মন্ত্রী নভজ্যোৎ সিং সিধু এপ্রসঙ্গে বলেন, পাকিস্তান আর্মি জেনারেলকে তাঁর জড়িয়ে ধরা ফলপ্রসূ হল। ইমরানের শপথ গ্রহণ অনুষ্ঠানে সিধুর পাকিস্তান সফরকে ঘিরে অবশ্য কম বিতর্ক হয়নি। তাঁর নিজের দলের অনেকেও সিধুর পাকিস্তান সফরের সমালোচনা করেছিলেন। পাকিস্তান আর্মি জেনারেলের সঙ্গে সিধুর কোলাকুলির প্রবল সমালোচনা হয়। ভারতের প্রতিরক্ষামন্ত্রী নির্মলা সিতারামণ নিন্দা করে বলেছিলেন, সিধুর এই কোলাকুলি ভারতীয় সেনার ওপর বিরূপ প্রভাব ফেলবে। সিধুর এই ‘সৌজন্যতা’ ভালো চোখে দেখেননি পঞ্জাব মুখ্যমন্ত্রীও। সিধু অবশ্য প্রথম থেকেই তাঁর এই ‘ব্যবহারে’ কোনওরকম ভুল নেই বলে দাবি করে এসেছেন। তাঁর সেই সফর শিখ শরণার্থীদের জন্য এমন খুশির খবর এনেছে বলে জানান সিধু।
পাক অধিকৃত পঞ্জাব প্রদেশের অন্তর্গত নারোয়াল জেলায় শিখ ধর্মগুরু গুরু নানক তাঁর জীবনের ১৮ বছর অতিবাহিত করেন। প্রত্যেক বছর গুরু নানকের জন্মবার্ষিকী উপলক্ষে হাজার হাজার শিখ শরণার্থী নারোয়াল জেলায় গুরুদুয়ার দরবার দর্শনে যান।

Comments
Loading...