TMC: নেতাজি, বিবেকানন্দকে নিয়ে ভোটের রাজনীতি করছে BJP, না জেনে কথা বলছেন মোদী- শাহরা

নেতাজি, বিবেকানন্দ ও রবীন্দ্রনাথকে নিয়ে ভোটের রাজনীতি করছে বিজেপি। বাংলার দুই মনীষীর লেখা কোনও বই কি পড়েছেন নরেন্দ্র মোদী ও অমিত শাহ? কিছু না জেনেই তাঁরা উপর উপর কথা বলছেন। সোমবার সাংবাদিক বৈঠকে থেকে এই ভাষাতেই বিজেপিকে বিঁধলেন তৃণমূল সাংসদ সৌগত রায়।
আগামী ২০২১ সাল জুড়ে নানা অনুষ্ঠানের মধ্যে দিয়ে নেতাজি সুভাষচন্দ্র বসুর জন্মজয়ন্তী পালনের সিদ্ধান্ত নিয়েছে কেন্দ্র। এই উপলক্ষ্যে একটি উচ্চপর্যায়ের কমিটি গড়েছে কেন্দ্রীয় সরকার। সেই কমিটির শীর্ষে রয়েছেন অমিত শাহ। সোমবার কেন্দ্রীয় সংস্কৃতি মন্ত্রকের তরফে একথা জানা গিয়েছে। এ নিয়ে বাংলায় ট্যুইটও করেছেন প্রধানমন্ত্রী নরেন্দ্র মোদী ও কেন্দ্রীয় স্বরাষ্ট্রমন্ত্রী অমিত শাহ। অন্যদিকে আগামী ১২ জানুয়ারি বিবেকানন্দের জন্মদিনে ফের বাংলা সফরে আসার কথা অমিত শাহের।
এই প্রেক্ষিতে তৃণমূলের কটাক্ষ, বাংলার মনীষীদের নিয়ে ভোটবাক্সের রাজনীতি করছে বিজেপি। তৃণমূল সাংসদ সৌগত রায়ের কথায়, নেতাজির জন্মদিন জানলেও মৃত্যুদিন আজও অজানা। নেতাজি সংক্রান্ত নথি প্রকাশ করার দাবি জানালেও সেটা আজ পর্যন্ত করেনি কেন্দ্র। তিনি আরও বলেন, স্বাধীনতা সংগ্রামে কোনও ভূমিকা নেই আরএসএস ও বিজেপির। এখন ইতিহাস বিকৃত করে স্বাধীনতা আন্দোলনে যাঁদের কোনও ভূমিকা নেই তাঁদের সামনে আনার চেষ্টা হচ্ছে। যে রবীন্দ্রনাথ ও বিবেকানন্দকে নিয়ে বিজেপি নেতারা কথা বলছে, মোদী ও শাহ কি তাঁদের লেখা কোনও বই পড়েছেন? অনুবাদও কী পড়েছেন তাঁরা? প্রশ্ন সৌগতর। তিনি আরও যোগ করেন, নেতাজির জন্মজয়ন্তী উপলক্ষে ২৩ জানুয়ারিকে জাতীয় ছুটির দিন ঘোষণার দাবিতে কেন্দ্রকে চিঠি দিয়েছেন মুখ্যমন্ত্রী। আর রবীন্দ্রনাথের জায়গা রাজনীতি করার জন্য নয়। কিন্তু বিশ্বভারতীতে বিজেপির নেতারা ঢুকে পড়ছেন। উত্তরায়ণ, উপাসনা গৃহে কৈলাস বিজয়বর্গীয়, রাহুল সিংহদের ঢুকে পড়ছেন, এটা ঠিক নয়। আমরা এর তীব্র নিন্দা করছি। মন্তব্য সৌগতর।

Comments
Loading...