বঙ্গসন্তান আদিত্য ঘোষের হাত ধরে দুনিয়া জয়ের পথে ওয়ো, বিশ্বের বৃহত্তম হোটেল চেন হওয়ার পথে দেশিয় সংস্থা

ভারতের সবচেয়ে সফল সিইও হিসেবে তাঁর নাম নেওয়া হয়। ইন্ডিগোকে ভারতের গণ্ডি ছাড়িয়ে সারা বিশ্বে পরিচিতি দেওয়ার পিছনেও তাঁরই হাতযশ। ইন্ডিগো ছাড়ার পর তাঁর কাছে টাটা সন্সের লোভনীয় প্রস্তাব ছিল। কিন্তু সেসব ছেড়ে আদিত্য ঘোষ যোগ দিলেন স্টার্টআপ ওয়োতে। তারপর ৮ মাসেরও বেশি সময় পেরিয়ে গিয়েছে। সেদিনের ওয়ো, আজ বিশ্বের তৃতীয় বৃহত্তম হোটেল চেন। বিশেষজ্ঞরা বলছেন, ২০২৩ সালের মধ্যে পৃথিবীর বৃহত্তম হোটেল চেন হিসেবে উঠে আসবে ওয়ো।

শিল্প জগতে আদিত্য ঘোষের মিডাস টাচের আলোচনা নতুন করে গতি পেয়েছে। ইন্ডিগো ছাড়ার পর যখন সবাই বঙ্গসন্তানের ভবিষ্যৎ নিয়ে উদ্বিগ্ন, তখন পরিজনদের রক্তচাপ আরও বাড়িয়ে জানিয়েছিলেন, তিনি যোগ দিচ্ছেন স্টার্টআপে।

৬ বছর আগে বছর ২৫ এর রীতেশ আগরওয়াল শুরু করেন তাঁর স্টার্টআপ ওয়ো। উদ্দেশ্য ছিল, সস্তায় মানুষের থাকার ব্যবস্থা করা। এভাবেই ভারতের হোটেল চিত্রপটে কার্যত তুফান তোলে ওয়ো। কিন্তু হসপিট্যালিটি শিল্পে সেরা এয়ার-বিএনবির সঙ্গে আন্তর্জাতিক প্রতিযোগিতায় কিছুতেই পেরে উঠতে পারছিল না ওয়ো। তাদের দরকার এমন একজনের, যিনি দেশের ব্যবসা সামলোনোর পাশাপাশি বিদেশেও ছড়িয়ে দেবেন ওয়োকে। কিন্তু এমন লোক পাবেন কোথায় রীতেশ? কার্যত বিনা মেঘে বজ্রপাতের মতোই এই সময় ইন্ডিগো ছাড়ার সিদ্ধান্ত নেন আদিত্য ঘোষ। অতঃপর জুটি বাঁধলেন রীতেশ এবং আদিত্য। বাকিটা ইতিহাস।

ওয়োর সিইও ইন্ডিয়া আদিত্য ঘোষ বলছেন, গোটা পৃথিবীতে ব্যবসা সম্প্রসারণের প্রথম এবং অপরিহার্য ধাপ হল, ভারতে ব্যবসার ভিত্তি মজবুত করা। একমাত্র তাহলেই ওয়ো বিদেশেও ছড়িয়ে পড়তে পারবে। ভারতের ব্যবসার দেখভালের সঙ্গে সঙ্গে বিদেশে বৃদ্ধি সুনিশ্চিত করতেও আদিত্য ঘোষের পরামর্শ কাজে লাগছে বলে জানাচ্ছেন ওয়ো কর্ণধার রীতেশ আগরওয়াল। আদিত্য ঘোষ দায়িত্ব নেওয়ার পরই ওয়ো ভারত এবং দক্ষিণ এশিয়ায় ১৪০০ কোটি টাকা বিনিয়োগ করেছে। এই সময়ের মধ্যে ইংল্যান্ডের ২৫ টি শহর এবং মহানগরে ১০০ টির বেশি সম্পত্তি কিনে ফেলেছে ওয়ো। পাশাপাশি এখন কাজ চলছে সৌদি আরব এবং ভিয়েতনামে ব্যবসা শুরুর পরিকল্পনা নিয়ে। বর্তমানে ওয়ো ১৮ টি দেশের ৮০০ টিরও বেশি শহরে ব্যবসা করছে। আগামী বছরের মধ্যেই সংখ্যাটা দ্বিগুণ করার লক্ষ্যমাত্রা বেঁধেছে ওয়ো। আর ভারতে ব্যবসা আরও মজবুত করতে অগাস্টের শুরুতেই ওয়ো অধিগ্রহণ করেছে Weddingz.in।

প্রকৃত অর্থেই ভারতীয় ব্র্যান্ড ওয়োকে দুনিয়ার সামনে তুলে ধরতে আদিত্য ঘোষের মতো দক্ষ মানুষের প্রয়োজন ছিল। বলছেন কর্ণধার রীতেশ অগ্রবাল। আর আদিত্য বলছেন, ওয়োকে প্রকৃত অর্থেই ইন্ডিয়ান ব্র্যান্ড হিসেবে দুনিয়ায় তুলে ধরতে বদ্ধপরিকর তাঁরা।

Comments
Loading...