চিকিৎসকদের কর্মবিরতির জেরে রাজ্যের সরকারি হাসপাতালে বিপর্যস্ত চিকিৎসা পরিষেবা, ভোগান্তি রোগীদের

এনআরএস হাসপাতালে জুনিয়র ডাক্তারদের প্রহৃত হওয়ার জেরে চিকিৎসকদের ডাকা কর্মবিরতিতে বেহাল রাজ্যের চিকিৎসা পরিষেবা। কার্যত স্তব্ধ হয়ে পড়েছে এনআরএস, কলকাতা মেডিকেল কলেজ, আর জি কর হাসপাতাল, ন্যাশনাল মেডিকেল কলেজ সহ গোটা রাজ্যের সমস্ত হাসপাতালের চিকিৎসা ব্যবস্থা। ডাক্তারদের নিরাপত্তার দাবিতে ডাক্তারদের কর্মবিরতির আংশিক ছাপ পড়েছে রাজ্যের বেসরকারি হাসপাতালগুলিতেও। যার ফলে চরম ভোগান্তিতে পড়ছেন সাধারণ মানুষ।
বুধবার সকাল থেকেই বিভিন্ন হাসপাতালের গুরুত্বপূর্ণ বিভাগে ঝুলছে তালা। বন্ধ আউটডোর পরিষেবা। সিনিয়র ডাক্তারদেরও দেখা মিলছে না।
এদিকে চিকিৎসার আশায় কলকাতার একের পর এক হাসপাতালে ছুটে সমস্যায় পড়তে হচ্ছে রোগী ও রোগীর আত্মীয়দের। এই হয়রানিতে ক্ষোভও বাড়ছে রোগী-আত্মীয়দের মধ্যে। বুধবার সকাল নাগাদ এসএসকেএমে পরিষেবা না পেয়ে রাস্তায় শুয়ে প্রতিবাদ জানান রোগীর পরিজনেরা। শুধু কলকাতাই নয়, জুনিয়র ডাক্তারদের এই কর্মবিরতি আন্দোলনের ছাপ পড়েছে জেলায় জেলায়। মেদিনীপুর, বাঁকুড়া থেকে উত্তরবঙ্গ মেডিকেল কলেজের চিকিৎসা পরিষেবাও ব্যাহত হয়েছে। কখন এই সঙ্কট কাটবে অধীর আগ্রহে তাকিয়ে রয়েছেন রোগী আত্মীয়রা। হাসপাতালের এই অচলাবস্থা কাটাতে দ্রুত সরকারি হস্তক্ষেপের দাবি করছেন সবাই। এদিকে, যতক্ষণ না ডাক্তারদের নিরাপত্তা সুনিশ্চিত করা হচ্ছে, হাসপাতাল-হাসপাতালে এই কর্মবিরতি চালিয়ে যাওয়া হবে বলে জানাচ্ছেন অবস্থানরত চিকিৎসকরা।
প্রসঙ্গত, গত সোমবার মহম্মদ সইফ নামে এক রোগীর মৃত্যকে কেন্দ্র করে নজিরবিহীন পরিস্থিতি তৈরি হয় এনআরএস হাসপাতালে। চিকিৎসায় গাফিলতির অভিযোগে জুনিয়র চিকিৎসককে শারীরিক হেনস্থা করা হয়। প্রতিবাদে জুনিয়র ডাক্তারদের কর্মবিরতির ডাকে মঙ্গলবার অচলাবস্থা তৈরি হয় এনআরএসে। বুধবার যাতে শামিল হন সমস্ত হাসপাতালের চিকিৎসকরা। রাজ্যের স্বাস্থ্য প্রতিমন্ত্রী, কলকাতার পুলিশ কমিশনার সঙ্গে হাসপাতাল কর্তৃপক্ষের বৈঠক থেকেও কোনও সমাধান সূত্র মেলেনি।

Comments
Loading...