ভোটের পর শুভেন্দু বিজেপিতে, বিপ্লব দেবের মন্তব্যে আইনি নোটিস, ২৪ ঘন্টায় ক্ষমা চাওয়ার দাবি শুভেন্দু অধিকারীর

প্রধানমন্ত্রী রাজ্যে জনসভা করতে এসে ঘোষণা করেছিলেন ভোট ফুরোলেই ৪০ তৃণমূল বিধায়ক যোগ দেবেন বিজেপিতে। পাশাপাশি জানিয়েছিলেন, গোপনে তাঁদের সকলের সঙ্গেই যোগাযোগ আছে বিজেপির। আর শুক্রবার ত্রিপুরার মুখ্যমন্ত্রী বিপ্লব দেব সেই সংখ্যাটাই একধাক্কায় নিয়ে গেলেন একশোতে। পূর্ব মেদিনীপুরের ময়নায় জনসভা থেকে বিপ্লব দেবের দাবি, তৃণমূলের একশোর বেশি এমএলএ তৈরি হয়ে বসে রয়েছেন, ভোটের ফল বেরোলেই তাঁরা বিজেপিতে যোগ দেবেন। আর সেই শিবির বদলের লিস্টে তিনি রাখেন রাজ্যের হেভিওয়েট মন্ত্রী শুভেন্দু অধিকারীকে। বিপ্লব দেব জনসভা থেকে ঘোষণা করেন,’ দেখবেন আপনাদের শুভেন্দুবাবুও চলে যাবেন।’ শুভেন্দু অধিকারীর খাস তালুকে এসে তাঁকে নিয়ে এমন মন্তব্যে স্বাভাবিকভাবেই জল্পনা তৈরি হয়।
যদিও প্রতিক্রিয়া দিতে একটুও দেরি করেননি শুভেন্দু। ত্রিপুরার মুখ্যমন্ত্রীর দাবি উড়িয়ে দিয়ে তাঁকে ‘উন্মাদ’ বলে কটাক্ষ করেন তিনি। পাশাপাশি বিপ্লব দেবকে পাঠিয়েছেন আইনি নোটিস। ২৪ ঘন্টার মধ্যে নিজের মন্তব্যের জন্য প্রকাশ্যে ক্ষমা প্রার্থনা না করলে, বিপ্লব দেবের বিরুদ্ধে মানহানির মামলা করার হুঁশিয়ারি দিয়েছেন শুভেন্দু অধিকারী।
দুই মেদিনীপুরে ভোট রবিবার। তার ঠিক দু’দিন আগে রাজ্যের প্রথম সারির তৃণমূল নেতাকে নিয়ে বিপ্লবের এই ‘মিথ্যে’ দাবি যে দল ও ভোটারদের সংশয়ের কারণ হতে পারে, তা টের পেয়েছেন শুভেন্দু। ত্রিপুরার মুখ্যমন্ত্রীকে পাঠানো ওই আইনি নোটিসে লেখা হয়েছে, প্রকাশ্য জনসভায় তাঁর এইরকম মিথ্যে ও ভিত্তিহীন দাবি, তৃনমূল দল ও কর্মীদের প্রতি শুভেন্দুর আনুগত্য নিয়ে প্রশ্ন তুলেছে। তাই একদিনের মধ্যে নিজের মন্তব্যের জন্য প্রকাশ্যে ক্ষমা না চাইলে বিপ্লব দেবের বিরুদ্ধে মানহানির মামলার পথে হাঁটা হবে, বলে জানিয়েছেন শুভেন্দু অধিকারী।

Comments
Loading...