সুমন চট্টোপাধ্যায়: একই কষ্টের মধ্যে দিয়ে গিয়েছি, জানি ব্যথাটা কোথায় লাগে, অর্ণবের গ্রেফতারির সমালোচনা সাংবাদিকের

অর্ণব গোস্বামীর সাংবাদিকতার সমর্থক নই, কিন্তু এই গ্রেফতারিও সমর্থনযোগ্য নয়। তিনি কাশ্মীরের গ্রামে লুকিয়ে থাকা কোনও জঙ্গি নন, রিপাবলিক টিভির কর্ণধার তথা সাংবাদিক অর্ণব গোস্বামীর পাশে দাঁড়িয়ে তাঁর গ্রেফতারির তীব্র সমালোচনা করলেন ২০১৮ সালের ডিসেম্বরে সিবিআইয়ের হাতে গ্রেফতার হওয়া সাংবাদিক সুমন চট্টোপাধ্যায়। লিখলেন, আমিও এই রকম অভিজ্ঞতার সম্মুখীন হয়েছি, তাই জানি কোথায় ব্যথাটা লাগে।

বুধবার সকালে অর্ণব গোস্বামীর গ্রেফতারির কয়েক ঘণ্টার মধ্যে সাংবাদিক সুমন চট্টোপাধ্যায়ের স্ত্রী কস্তুরী চট্টোপাধ্যায় তাঁর ফেসবুক অ্যাকাউন্ট থেকে ‘This is not acceptable’ শীর্ষক একটি পোস্ট করেন। সেখানে সুমন চট্টোপাধ্যায় স্মরণ করেছেন অর্ণব গোস্বামীর সঙ্গে কাটানো তাঁর পুরনো দিনের কিছু মুহূর্ত। তার পরেই সুমনবাবু লেখেন, এদিন সকালে সশস্ত্র পুলিশ যখন অর্ণবের বাড়িতে প্রবেশ করছে, তাঁকে জাপটে ধরছে, অসভ্যভাবে তাঁর স্ত্রীকে ধাক্কা দিচ্ছে, তাতে অতীতের মেলামেশার সমস্ত স্মৃতি তাঁর মনকে ঘিরে ধরেছে। অর্ণব গোস্বামীর স্ত্রী ও পুত্রের জন্য সমবেদনা জানিয়ে সুমনের মন্তব্য, সশস্ত্র পুলিশের এই কীর্তির দৃশ্য যদি সমস্যাদীর্ণ কাশ্মীরের কোনও গ্রামে লুকিয়ে থাকা জঙ্গিকে টেনে বের করার হোত, তাহলে মেনে নিতাম। তিনি আরও লেখেন, অর্ণবের ভুলত্রুটি, টিভি চ্যানেলে তাঁর আক্রমণাত্মক মনোভাব, প্রমাণ ছাড়া বিশেষ ব্যক্তিদের নাম ধরে আক্রমণ, রাজনৈতিক বিষয়ে পক্ষপাতিত্ব, এসমস্ত কিছুকে সমর্থন না করেও বলি, অর্ণব কোনও জৈশ অপারেটিভ বা হিজবুল জঙ্গি নন। তিনি আইনি লড়াই লড়ছিলেন, যে কোনও আইন মেনে চলা নাগরিকের মতো পুলিশের সমনে সাড়া দিচ্ছিলেন, বিচার প্রক্রিয়া থেকে পালাতে চাননি। তারপরেও এদিন ভোরে বন্দুকধারী মহারাষ্ট্র পুলিশ যেভাবে অর্ণবকে গ্রেফতার করল, তাঁর পরিবারের সদস্যদের সঙ্গে  ঘৃণ্য আচরণ করল, তা কেবল সাংবাদিককে নয়, সমস্ত মানুষের বিবেককে আলোড়িত করা উচিত বলে মন্তব্য করেন কিছুদিন আগেই জামিনে মুক্তি পাওয়া প্রবীণ সাংবাদিক। তিনি আরও লেখেন, কোনও সুস্থ গণতন্ত্রে সব ধরনের মতামতের জায়গা থাকা উচিত। এপ্রসঙ্গে তিনি নির্বাচনকালে আমেরিকার সংবাদমাধ্যমের দিকে নজর দিয়ে বলেন, ট্রাম্পের পক্ষে যখন বেশিরভাগ গণমাধ্যমই ঝুঁকে আছে, তখন একটি নির্দিষ্ট সংবাদমাধ্যম আনুগত্য প্রকাশ করেনি। তাই সবাইকে নিজেদের মতো বলতে দেওয়া হোক।

অর্ণব গোস্বামীর গ্রেফতারির প্রতিবাদ করে পোস্টের শেষে সুমন চট্টোপাধ্যায় লিখেছেন, অর্ণবের সাংবাদিকতার সঙ্গে আমার মৌলিক পার্থক্য থাকা সত্ত্বেও আমি দৃঢ়ভাবে তাঁর পাশে দাঁড়িয়েছি। আমিও একই রকম কষ্ট পেয়েছি এবং ভালো করে জানি কোথায় এই ব্যথা লাগে।

Comments
Loading...