সুপ্রিম কোর্টের বিচারপতি ভি রামাসুব্রহ্মণ্যম: স্ত্রীর চেয়ে আপনাকে বেশি চেনে গুগল

বর্তমান দিনে স্ত্রীর চেয়েও আপনাকে বেশি চেনে গুগল, গোপনীয়তার অধিকার নিয়ে ভাষণ দিতে গিয়ে এক সভায় এমনই মন্তব্য বিচারপতি রামাসুব্রহ্মণ্যমের।
কেরলে রাজনীতিবিদ, সমাজকর্মী ও লেখক  ভি আর কৃষ্ণ আইয়ারের ষষ্ঠ মৃত্যুবার্ষিকীর অনুষ্ঠানে সুপ্রিম কোর্টের বিচারপতি ভি রামাসুব্রহ্মণ্যম বলেন, বর্তমান দিনে মানুষের কাছে টেকনোলজি যেমন আশীর্বাদস্বরূপ তেমনি চ্যালেঞ্জেরও। মানুষের গোপনীয়তার অধিকারে বারবার থাবা বসাচ্ছে প্রযুক্তি। বিচারপতি রামাসুব্রহ্মণ্যমের কথায়, এখন আপনার স্ত্রীর চেয়েও আপনার সম্পর্কে বেশি জানে গুগল।
তাঁর কথায়, নাগরিকের অধিকার এবং তাঁর স্বাধীনতা রক্ষার জন্য দেশের সংবিধান আইন করেছে। যেখানে প্রতিটি ব্যক্তি তাঁর ব্যক্তিত্বের সঙ্গে জড়িয়ে থাকা বিষয়গুলির অধিকার পান, তার মধ্যে গুরুত্বপূর্ণ হল গোপনীয়তার অধিকার। একমাত্র বিশেষ কিছু কারণে, তদন্তের প্রয়োজনে সরকারি আধিকারিক ও পুলিশ সেই গোপনীয়তা লঙ্ঘন পারে। এছাড়া প্রত্যেক নাগরিকের গোপনীয়তার সেই অধিকার থাকা উচিত যেখানে তাঁরা সামাজিক নিয়ন্ত্রণের মধ্যেও নিজেদের স্বাধীনতা বজায় রাখতে পারেন। কিন্তু বর্তমান প্রযুক্তি সেই গোপনীয়তাকে চ্যালেঞ্জ জানাচ্ছে।
তাঁর দীর্ঘ ভাষণে বিজ্ঞান ও প্রযুক্তির প্রভাব নিয়ে মন্তব্য করতে গিয়ে বিচারপতি তুলে ধরেছেন আমেরিকার সান মাইক্রোসিস্টেমের কথা। প্রোগ্রামিং ল্যাঙ্গোয়েজ ‘জাভা’ ও সোলারিস অপারেটিং সিস্টেম তৈরির জন্য বিখ্যাত এই সংস্থার সিইও স্কট ম্যাকনিলে মন্তব্য করেছিলেন, মানুষের জীবনে গোপনীয়তা কবেই মরে গিয়েছে। তাই এটাই মেনে নিয়ে চলুন। বছর কুড়ি আগে ম্যাকনিলের সেই মন্তব্য উদ্ধৃত করে বিচারপতি বলেন, আজকের দিনে আপনার স্ত্রীর থেকে আপনার সম্পর্কে বেশি জানে গুগল। তাঁর সরস মন্তব্য, গুগল জানে আমার বিশাখা নক্ষত্রে জন্ম, বৃশ্চিক আমার রাশি। কখন কেন্দ্রে বৃহস্পতি, রাহু বা কেতুর কী অবস্থান সব এখন বলে দিচ্ছে সে। আমার মেল বক্স উপচে পড়ছে এ ধরনের কত তথ্যে। এই অযাচিত তথ্যও কীভাবে গুগল জানছে তা নিয়ে বিস্ময় প্রকাশ করেন সুপ্রিম কোর্টের বিচারপতি। এরপরেই তিনি বলেন, নেট দুনিয়ায় ‘থার্ড পার্টি’ আপনার সব খবর নখদর্পণে রাখছে। যেভাবে আপনি নেট ব্যবহার করবেন সেইভাবেই তথ্য সংগ্রহ করতে থাকবে এরা। মোট চার ভাবে এই ‘থার্ড পার্টি’কে ভাগ করেন বিচারপতি। এক, সরকার ও এনফোর্সমেন্ট এজেন্সি। দুই, সার্ভিস প্রোভাইডার। তিন, ইনফর্মেশন প্রোভাইডার এবং চার, হ্যাকার। সার্ভিস প্রোভাইডার চাইলে আপনাকে ‘ভার্চুয়ালি এক্সপ্লয়েট’ করতে পারে। যেই মুহূর্তে আপনি একটি নির্দিষ্ট দিনে চেন্নাই যাওয়ার বিমানের জন্য গুগল সার্চ করলেন, মুহূর্তের মধ্যে আপনার কাছে বিজ্ঞাপন আসতে থাকবে বিভিন্ন অনলাইন পোর্টাল থেকে। কীভাবে তাঁরা আপনার আই পি অ্যাড্রেস জানছে? কিছুই নয়, আপনার ইন্টারনেট সার্চ ইঞ্জিনের সাহায্যে।

Comments
Loading...