গণপিটুনি ঠেকাতে আইন কোথায়? জানতে চেয়ে কেন্দ্র-রাজ্যকে নোটিস সুপ্রিম কোর্টের

গণপিটুনি বা হিংসার ঘটনা ঠেকাতে সুপ্রিম কোর্টের নির্দেশ মেনে কঠোর আইন আনা হয়নি, কেন্দ্রীয় সরকার এবং রাজ্য সরকারগুলোকে নোটিস সুপ্রিম কোর্টের।

শুক্রবার সুপ্রিম কোর্টের প্রধান বিচারপতি রঞ্জন গগৈ ও বিচারপতি দীপক গুপ্তার ডিভিশন বেঞ্চে হলফনামাপেশ করে স্বেচ্ছাসেবী সংস্থা অ্যান্টি-কোরাপশন কাউন্সিল অফ ইন্ডিয়া ট্রাস্ট। সংস্থার তরফে আদালতে জানানো হয়, দেশের বিভিন্ন জায়গায় গণপিটুনি ও হিংসার ঘটনা ঠেকাতে কোনও সরকারি পদক্ষেপ চোখে পড়ছে না। আইনজীবী সওয়াল করেন, গণপিটুনি বা সাম্প্রদায়িক হিংসার মতো ঘটনা ঠেকাতে ২০১৮ সালে কেন্দ্র ও রাজ্যকে বিশেষ নির্দেশিকা দিয়েছিল সুপ্রিম কোর্ট। কিন্তু আদালতের নির্দেশ মাফিক কেন্দ্র বা রাজ্য কোনও তরফেই নির্দিষ্ট আইন না আনায়, দেশের বিভিন্ন জায়গায় আজ বিদ্বেষের ঘটনার বাড়-বাড়ন্ত।

প্রসঙ্গত, ২০১৮ সালে সুপ্রিম কোর্টে একটি জনস্বার্থ মামলা দায়ের করেছিলেন কংগ্রেস নেতা তেহেশান পুনাওয়ালা। হলফনামায় কংগ্রেস নেতা আবেদন করেন, গো হত্যা ও পাচারের অভিযোগে গণপিটুনিতে মৃত্যু বা বিদ্বেষের ঘটনা বন্ধ করতে কড়া আইন আনতে নির্দেশ দিক শীর্ষ আদালত। গত বছর ১৭ ই জুলাই এই মামলার শুনানিতে কেন্দ্র ও বিভিন্ন রাজ্য সরকারকে কড়া পদক্ষেপ করতে নির্দেশ দেয় সুপ্রিম কোর্ট। রায়ে জানানো হয়, গো হত্যার নামে গণপিটুনি বা ধর্মীয় বিদ্বেষের মতো ঘটনা ঠেকাতে আইন আনা হোক সংসদে।

শুক্রবার সুপ্রিম কোর্টে স্বেচ্ছাসেবী সংস্থার আইনজীবী জানান, আদালতের নির্দেশিকার পর এক বছর কেটে গেলেও, এ নিয়ে তেমন কোনও পদক্ষেপ করেনি কেন্দ্র বা রাজ্য সরকারগুলো। অপরদিকে, গণপিটুনি বা হিংসার ঘটনা বেড়েই চলেছে। এরপরেই সুপ্রিম কোর্টের প্রধান বিচারপতির বেঞ্চ কেন্দ্র ও বিভিন্ন রাজ্য সরকারের প্রতিক্রিয়া জানতে চেয়ে নোটিস পাঠায়।

Comments
Loading...