কী করে ২১ বছর তৃণমূল করলাম ভাবতে লজ্জা হয়! পুরনো দলকে কটাক্ষ শুভেন্দুর

বাংলাকে মোদীজির হাতে তুলে দিতে হবে। একমাত্র তাহলেই বাংলার অর্থনৈতিক উন্নতি হবে। হিংসাদীর্ণ বাংলা সোনার বাংলায় পরিণত হবে। বললেন বিজেপি নেতা শুভেন্দু অধিকারী। 

শনিবার বঙ্গ বিজেপির নির্বাচনী সদর দফতর হেস্টিংসে সদ্য দলে যোগদানকারীদের সম্বর্ধনা দেওয়া হয়। হাজির ছিলেন দিলীপ ঘোষ, মুকুল রায়রা। সেই অনুষ্ঠানে ঢোকার মুখে সদ্য বিজেপিতে যোগ দেওয়া সাংসদ সুনীল মণ্ডলকে কালো পতাকা দেখানো হয়। তা নিয়ে বিজেপি তৃণমূল গোলমাল বেঁধে যায়। নিজের ভাষণে এই প্রসঙ্গ তুলে শুভেন্দু বলেন, ভাবতে লজ্জা হয় ২১ বছর এই শৃঙ্খলাহীন দলে ছিলাম!  

শনিবারের অনুষ্ঠানে তৃণমূলকে তীব্র আক্রমণ করেন শুভেন্দু। বলেন, আমি যে দল থেকে এসেছি তা এখন কোম্পানি হয়ে গেছে। আমি কী করে ২১ বছর এই দল করলাম, ভাবতেই লজ্জা লাগছে। কিন্তু এবার আমরা একজোট হয়ে কাজ করব। লক্ষ্য একটাই, হিংসাদীর্ণ বাংলাকে সোনার বাংলা বানানো।

এদিন শ্যামাপ্রসাদ মুখার্জির প্রশংসা শোনা যায় সদ্য বিজেপিতে যোগ দেওয়া শুভেন্দু অধিকারীর গলায়। তিনি বলেন, শ্যামাপ্রসাদ ভারতে থাকার সুযোগ না দিলে আমরা থাকতে পারতাম কি? সেও বলিদানের যোগ্য মর্যাদা দেওয়াই দল হিসেবে আমাদের লক্ষ্য। তার প্রথম ধাপ হিসেবে বাংলাকে মোদীজির হাতে তুলে দিতে হবে বলে ফের দাবি করেন শুভেন্দু। কারণ দিল্লি আর কলকাতায় একই সরকার থাকলেই উন্নয়ন সম্ভব। 

গত শনিবার মেদিনীপুরে বিজেপিতে যোগ দেন শুভেন্দু সহ অন্য নেতারা। তার ঠিক এক সপ্তাহ পর, শনিবার তাঁদের সম্মান জানানোর অনুষ্ঠানের আয়োজন করে বঙ্গ বিজেপি। সেই অনুষ্ঠানে যোগ দিতে হেস্টিংসে সদ্য বিজেপিতে যোগ দেওয়া তৃণমূল সাংসদ সুনীল মণ্ডলের গাড়ি আসতেই শুরু হয়ে যায় গোলমাল। তাঁকে কালো পতাকা দেখানো হয়। তৃণমূল ও বিজেপির মধ্যে হাতাহাতি শুরু হয়ে যায়। বিরাট পুলিশ বাহিনী গিয়ে পরিস্থিতি নিয়ন্ত্রণে আনে। এদিকে এই ঘটনার কথা তুলে ধরে বাংলার আইন শৃঙ্খলা পুরোপুরি ভেঙ্গে পড়েছে বলে দাবি করে কেন্দ্রীয় স্বরাষ্ট্রমন্ত্রী অমিত শাহকে ফোন করেন বাংলার দায়িত্বপ্রাপ্ত বিজেপি নেতা কৈলাস বিজয়বর্গীয়। সূত্রের খবর অমিত শাহ ঘটনার রিপোর্ট তলব করেছেন।

Comments
Loading...