‘বুদ্ধদেব সৎ মানুষ’, বামেদের ঢালাও প্রশংসা শুভেন্দু অধিকারীর

বিধানসভা ভোটের পর বাম ও কংগ্রেস করুন, ভোট দিন বিজেপিকে, আবেদন শুভেন্দুর

পশ্চিম মেদিনীপুরের কেশপুরে দাঁড়িয়ে বামেদের ঢালাও প্রশংসা করলেন তৃণমূলত্যাগী বিজেপি নেতা শুভেন্দু অধিকারী। বৃহস্পতিবার সেখানে দলীয় সভা থেকে বিজেপি নেতার মন্তব্য, গণতন্ত্র থেকে উন্নয়ন কিংবা বাক স্বাধীনতা, সবেতেই কেশপুর পিছিয়ে রয়েছে। এরপর বামেদের প্রশস্তি করে শুভেন্দু বলেন, অনেক বামপন্থী এখন বিজেপিতে এসেছেন, অনেকে আসতে পারেন। নিজেদের রাজনীতি করুন। কিন্তু এবার ভোটটা দিন বিজেপিকে। বাংলায় বিজেপি ক্ষমতায় এলে পঞ্চায়েত ভোটে সব দল মনোনয়ন করতে পারবে, দাবি তাঁর।

তিনি যোগ করেন, ‘বাম করুন, কংগ্রেস করুন। কিন্তু বিধানসভার ভোটের পর করবেন। তার আগে বিজেপি করতে হবে। বিজেপি ছাড়া তৃণমূলকে কেউ হারাতে পারবে না।’ রাজ্যে গণতন্ত্র ও দল-মত নির্বিশেষে সবার রাজনীতি করার অধিকার আছে বলে মন্তব্য করেন অধুনা বিজেপি নেতা।

এদিন বারবার তৃণমূল সরকারের সমালোচনা করার পাশাপাশি বামেদের ভূয়সী প্রশংসা করে বলেন, ছোট আঙারিয়া, নেতাইয়ের ঘটনার সমালোচনা করি। তবে বামদের ভালো কাজও আছে। বুদ্ধবাবুরা সৎ মানুষ, লক্ষ্মণ শেঠরা হার্মাদ। রাজ্যের শিল্পের পরিবেশ নিয়েও নিজের পুরনো দলকে আক্রমণ করে প্রাক্তন মন্ত্রী বলেন, রাজারহাট থেকে নিউটাউনের আইটি সেক্টরের সব কাজই বামফ্রন্টের করে দেওয়া। সেগুলো বেচেই তৃণমূল খাচ্ছে বলে কটাক্ষ করেন তিনি। বলেন, তৃণমূল আমলে কোনও শিল্পই হয়নি।

শুভেন্দু আরও বলেন, বাম আমলে প্রতি বছর এসএসসি পরীক্ষা হত। এখন তৃণমূলের চাকরি মানেই চুক্তিভিত্তিক। এমনকি দু’চার হাজার টাকা বেতনের ছোট চাকরিও তৃণমূলের ‘ঘরের লোক’ ছাড়া কোনও বেকার পায় না বলে অভিযোগ করেন তিনি।

কেশপুরে দাঁড়িয়ে জনতার উদ্দেশে তাঁর প্রশ্ন, ২০১৩ সালে যে আশা-ভরসায় পরিবর্তন করেছিলেন, সেই আশা কি পূর্ণ হয়েছে? প্রকৃত পরিবর্তনের জন্য আবার পরিবর্তন করুন। এই প্রেক্ষিতে বিধানসভা ভোটে জিততে শুভেন্দুর মুখে উঠে আসে বাম ও কংগ্রেসের কথা। তৃণমূলকে ক্ষমতা থেকে সরাতে বাম ও কংগ্রেসের সাহায্য চান তিনি। বলেন, বাম করুন, কংগ্রেস করুন। কিন্তু ভোটটা দিন বিজেপিকে। এছাড়া রাজ্যের শাসক দলকে ক্ষমতা থেকে সরানো যাবে না।

Comments
Loading...