‘ভুল’ স্বীকার করে দেড় মাসেই বিজেপি ছেড়ে তৃণমূলে ফিরলেন শুভেন্দু ঘনিষ্ঠ সিরাজ খান

গত ২৪ নভেম্বর বিজেপিতে যোগ দিয়েছিলেন পূর্ব মেদিনীপুর জেলা পরিষদের প্রাক্তন খাদ্য কর্মাধ্যক্ষ

বিধানসভা ভোট যত এগিয়ে আসছে, ততই জমে উঠেছে দলবদলের খেলা। রবিবার ফের বিজেপি ছেড়ে তৃণমূলে যোগ দিলেন পূর্ব মেদিনীপুরে শুভেন্দু অধিকারীর আস্থাভাজন বলে পরিচিত নেতা সিরাজ খান। তৃণমূল মহাসচিব পার্থ চ্যাটার্জি ও পূর্ব মেদিনীপুর জেলা তৃণমূল সভাপতি সৌমেন মহাপাত্রের উপস্থিতিতে দলে ফেরেন সিরাজ। তিনি জানিয়েছেন, নিজের ভুল বুঝতে পেরে তৃণমূলে ফিরলেন।

গত নভেম্বর মাসে বিজেপির রাজ্য পর্যবেক্ষক কৈলাস বিজয়বর্গীয়র হাত ধরে বিজেপিতে নাম লিখিয়েছিলেন সিরাজ। তখনও শুভেন্দু বিজেপিতে যাননি। কিন্তু সিরাজের দাবি ছিল, শুভেন্দুর আশীর্বাদ নিয়েই বিজেপিতে গিয়েছেন তিনি। এখন শুভেন্দু বিজেপিতে। কিন্তু পূর্ব মেদিনীপুরের জেলা পরিষদের প্রাক্তন খাদ্য কর্মাধ্যক্ষ বিজেপিকে কার্যত ধাক্কা দিয়ে ফের তৃণমূলে ফিরে এলেন রবিবার। তৃণমূল ভবনে দলের মহাসচিব পার্থ চ্যাটার্জির হাত থেকে শাসক দলের পতাকা তুলে নেন সিরাজ।

তৃণমূল ছেড়ে তিনি অভিযোগ করেছিলেন, রাজ্য সরকার উর্বর জমিকে নষ্ট করছে। উন্নয়ন হয়নি। তবে দু’মাসের মধ্যেই ঘরওয়াপসি করে বিজেপি ও শুভেন্দুকে একসঙ্গে আক্রমণ করলেন সিরাজ। তাঁর কথায়, গরিব মানুষের জন্য একমাত্র কাজ করে তৃণমূল। আমাকে ভুল পথে চালিত করা হয়েছিল। তাই বিজেপিতে গিয়েছিলাম। কিন্তু ওই দলে কাজ করা যায় না। তাই আবার মানুষের জন্য কাজ করতে তৃণমূলে ফিরে এলাম। সেই সঙ্গে শুভেন্দু অধিকারীকে কটাক্ষ করে সিরাজের মন্তব্য, ক্ষমতা কুক্ষিগত রাখতেই পছন্দ করেন শুভেন্দু। ক্ষমতার লোভেই তিনি বিজেপিতে গিয়েছেন বলে নিশানা সিরাজের। পুরনো দলে ফেরা নিয়ে সিরাজের মন্তব্য, ‘বিজেপি বড়লোকদের পার্টি। তৃণমূল গরিব মানুষের পাশে থাকার দল। এখানে মানুষের সম্মান আছে। তাই আবার ফিরে এলাম। মমতা বন্দ্যোপাধ্যায়ের অনুপ্রেরণায় কাজ করতে চাই।’ তাঁকে দলে যোগদান করিয়ে পার্থ চ্যাটার্জি বলেন, ‘কৈলাসজি ওঁকে ঘটা করে বিজেপিতে নিয়ে গিয়েছিলেন, আমরাও ঘটা করে ফিরিয়ে আনলাম।’

Comments
Loading...