কানহাইয়া থেকে অমরা রাম, কিংবা আপের আতিশির প্রচারে বিজেপি বিরোধী মুখ জেএনইউ-এর প্রাক্তনী বলিউডের স্বরা ভাস্কর

কানহাইয়া কুমারের সমর্থনে বিহারের অজপাড়া গাঁয়ে হাজার হাজার সমর্থকের সামনে আগুনে ভাষণ দিয়েছেন, আবার এই ঝাঁ চকচকে ফিল্মি জমায়েতে স্বভাবসিদ্ধ ভঙ্গিতে উত্তাপ বাড়াচ্ছেন। আবার রাজস্থানের ৪৫ ডিগ্রি তাপমাত্রায় সিপিএমের কৃষক নেতা অমরা রামের নির্বাচনী জনসভায় তিনি যেমন স্বচ্ছন্দ, সমান সাবলীল মুম্বইয়ের শীতাতপ নিয়ন্ত্রিত হাইপ্রোফাইল ফাংশনে। তিনি স্বরা ভাস্কর। বর্তমান বলিউডের অন্যতম নাম।
দিল্লিতে জন্ম। পড়তেন জওহরলাল নেহরু বিশ্ববিদ্যালয়ে। স্বভাবতই জেএনইউ-এর রাজনৈতিক বাতাবরণে থাকতে থাকতে কানহাইয়া, উমর খালিদ, শেহলা রশিদের মতোই তাঁর মধ্যেও গড়ে উঠেছে সেই প্রতিবাদী চরিত্র। কাজের সন্ধানে বলিউডে গিয়েও তাঁর কোনও বদল হয়নি। জনপ্রিয় ছবির পাশাপাশি এখন স্বরা ভাস্করকে দেখা যাচ্ছে বিজেপি বিরোধী জনপ্রিয় নেতা-নেত্রীদের সমর্থনে প্রচার সভাতেও।
বিহারের বেগুসরাই থেকে সিপিআই প্রার্থী হিসেবে কানহাইয়া কুমারের ভোটে দাঁড়ানোর সিদ্ধান্ত ঘোষণার পরই স্বরা জানিয়েছিলেন, তিনি যাবেন প্রচার করতে। ক্রাউড ফান্ডিংয়ে সাহায্য করার পাশাপাশি বর্তমান বলিউডের ব্যস্ততম অভিনেতা পৌঁছে গিয়েছিলেন বেগুসরাইয়ের প্রত্যন্ত প্রান্তরে। শুধু কি পৌঁছানো, আগুনে ভাষণে উপস্থিত জনতাকে কার্যত মাত করে দিয়েছেন স্বরা। নিজের ইউনিভার্সিটির জুনিয়র কানহাইয়ার হয়ে প্রচার না হয় মানা গেল, কিন্তু স্বরা কেবল বেগুসরাইয়েই আটকে থাকলেন না, ছুটলেন রাজস্থানেও।
বেগুসরাইয়ের পর স্বরার গন্তব্য রাজস্থানের শিকার কেন্দ্র। যেখান থেকে সিপিএম প্রার্থী হিসেবে ভোটে দাঁড়িয়েছেন কৃষক নেতা অমরা রাম। জিগনেশ মেবানিকে সঙ্গে নিয়ে সেখানেও পৌঁছে গেলেন তিনি। কৃষকদের লং মার্চের অন্যতম নেতা অমরা রামের সমর্থনে জনসভায় সকলের সামনে বলেছেন, অমরা রামের মতো একজন কৃষক নেতাকে সংসদে অত্যন্ত প্রয়োজন। এতেই দেশের মঙ্গল। তাই তাঁর হয়ে প্রচার করতে এসেছি।
এখানেই শেষ নয়, নিজের ছেলেবেলার শহর দিল্লিতেও প্রচারে নেমে পড়েছেন বলিউডের স্বরা। জিগনেশ মেবানিকে সঙ্গে নিয়ে পূর্ব দিল্লি কেন্দ্র থেকে আম আদমি পার্টির প্রার্থী আতিশির সমর্থনে প্রচার করলেন তিনি। বাড়ি-বাড়ি, দোকান-দোকান ঘুরে আতিশিকে নির্বাচিত করার আবেদন জানালেন জোড় হাতে। আতিশির লড়াই বিজেপির গৌতম গম্ভীরের বিরুদ্ধে।
অভিনয়ের জগতের তারকাদের রাজনীতিতে প্রবেশ এদেশে নতুন কিছু না। কিন্তু খ্যাতির চূড়ায় থাকাকালীন, সামনের সারির রাজনৈতিক দল কংগ্রেস বা বিজেপিকে বাদ দিয়ে, বাম কিংবা অন্য কোনও দলের প্রার্থীর হয়ে ঢালাও প্রচার শুধু নতুনই নয়, নজিরবিহীনও বটে। আর এখানেই বলিউডের বাকি তারকাদের চেয়ে আলাদা স্বরা ভাস্কর। ভোটে বাম প্রার্থীদের সমর্থন করার জন্য সোশ্যাল মিডিয়ায় ক্রমাগত ট্রোলিংয়ের মুখে পড়ছেন জেএনইউয়ের প্রাক্তনী স্বরা। এমনকী অশ্লীল কটূক্তিও সহ্য করতে হয়েছে তাঁকে। তবে একবারের জন্যও মেজাজ হারাননি। পাল্টা কড়া জবাবে মুখে তালা লাগিয়েছেন সমালোচকদের।
স্বরা ভাস্কর জওহরলাল নেহরু বিশ্ববিদ্যালয় থেকে সমাজতত্ত্বে এমএ করেন। বলিউডে অভিনেত্রী হিসেবে জায়গা করে নেওয়ার পাশাপাশি সামাজিক ও রাজনৈতিক বিষয়ে বরাবরই নিজের মতামত রেখেছেন তিনি। আর এখানেই ‘বি টাউনের’ অন্যান্য অভিনেত্রীর থেকে তিনি আলাদা। কাঠুয়া বা উন্নাওয়ের ধর্ষণকাণ্ড থেকে মিটু আন্দোলন, দলিত, মুসলিমদের উপর অত্যাচার থেকে ২০০৮ সালের মালেগাঁও বিস্ফোরণে অভিযুক্ত প্রজ্ঞা সিংহ ঠাকুরকে লোকসভা ভোটে বিজেপির প্রার্থী করা, প্রকাশ্য সমালোচনা করতে কাঁপেননি স্বরা, সাফ ব্যক্ত করেছেন নিজের মত।
বিশেষ কোনও রাজনৈতিক দল নয়, নিজের পছন্দের প্রার্থীদের হয়েই প্রচার করছেন স্বরা। এই নিয়ে সোশ্যাল মিডিয়ায় যখন কটাক্ষ ভেসে আসে, তাঁর জবাব, তাঁর আদর্শ কোনও রাজনৈতিক দল নয়, দেশের সংবিধান।

Comments
Loading...