হৃদরোগে মৃত্যু তবরেজ আনসারির! গণপিটুনিতে হত্যার অভিযোগ প্রত্যাহার করে নিল ঝাড়খণ্ড পুলিশ

গণপিটুনিতে নয়, হৃদরোগে আক্রান্ত হয়েই মৃত্যু হয়েছে বছর ২৪ এর তবরেজ আনসারির।  ময়নাতদন্তের এই রিপোর্টের ভিত্তিতে গণপিটুনির ঘটনায় ধৃত ১১ জনের বিরুদ্ধে হত্যার অভিযোগ প্রত্যাহার করে নিল পুলিশ। ফলে খারিজ হয়ে গেল ঝাড়খণ্ডে বাইক চোর সন্দেহে তবরেজকে পিটিয়ে খুনের অভিযোগ।
গত ১৮ ই জুন ঝাড়খণ্ডের খারসাওয়ান জেলায় মোটর সাইকেল চোর সন্দেহে গণপিটুনিতে মৃত্যু হয় ২৪ বছরের তবরেজ আনসারির। যে ভিডিও ছড়িয়ে পড়ে সারা দেশে। তবে ওই গণপিটুনির ঘটনায় ১১ জন অভিযুক্তদের বিরুদ্ধে হত্যার অভিযোগ খারিজ করা হয়েছে বলে জানা গিয়েছে। ঝাড়খণ্ড পুলিশ জানিয়েছে, মৃত তবরেজ আনসারির ময়নাতদন্তের রিপোর্ট বলছে গণপিটুনিতে নয়, হৃদরোগে আক্রান্ত হয়ে মারা গিয়েছেন তিনি।
ঝাড়খণ্ডের সারাইকেলা-খারওয়ানে বাইক চোর সন্দেহে তবরেজ আনসারিকে কয়েক ঘন্টা ধরে বেধড়ক মারধর করে উত্তেজিত জনতা। মারধরের সময় ওই যুবককে ‘জয় শ্রীরাম’ ধ্বনি বলাতেও বাধ্য করা হয় বলে অভিযোগ। আশঙ্কাজনক অবস্থায় তাবরেজকে হাসপাতালে ভর্তি করা হলেও গত ২২ শে জুন মারা যান তিনি। এই মামলার চার্জশিট নিয়ে বিতর্ক চলাকালীন পুলিশ জানায়, তাবরেজ আনসারির মৃত্যু মামলায় ১১ জন ব্যক্তির বিরুদ্ধে গণহত্যার অভিযোগ দায়ের করেছে। গত শনিবার আরও এক অভিযুক্ত আত্মসমর্পণ করায় দ্বাদশ অভিযুক্ত হিসাবে তাকেও গ্রেফতার করা হয়।

এদিকে ঝাড়খণ্ড পুলিশের সিনিয়র অফিসার কার্তিক এস জানান, মেডিকেল রিপোর্টে গণপিটুনিতে হত্যার পক্ষে কোনও সমর্থনযোগ্য প্রমাণ মেলেনি যার ভিত্তিতে পুলিশ হত্যাকাণ্ডের অভিযোগে অভিযুক্তদের দোষী সাব্যস্ত করাতে পারে। তিনি জানান, দুটি পৃথক ময়নাতদন্তের রিপোর্ট বলছে, হৃদরোগে আক্রান্ত হয়ে মারা গিয়েছেন তবরেজ আনসারি। যদিও মৃত তবরেজ আনসারির পরিবারের অভিযোগ ছিল, তাঁর মাথা থেঁতলে দেওয়া হয়েছিল। এই বিষয়ে জানতে চাইলে ঝাড়খন্ড পুলিশ জানায়, তাঁরা কেবলমাত্র মেডিকেল রিপোর্ট অনুযায়ী পদক্ষেপ করতে পারে।

Comments
Loading...