এবার তথাগত রায়ের নিশানায় এবিপি আনন্দ! ইস্যু করোনা সংক্রান্ত খবর পরিবেশন

ফের তথাগত রায়। গত লোকসভা ভোটের পর থেকে বাংলার বিভিন্ন বিষয় নিয়ে ট্যুইট করে বারবার বিতর্কে জড়িয়েছেন মেঘালয়ের রাজ্যপাল। এবার তাঁর নিশানায় রাজ্যের সর্বাধিক প্রচারিত বৈদ্যুতিন সংবাদমাধ্যম এবিপি আনন্দ! ইস্যু, করোনাভাইরাস।
পক্ষপাতমূলক সাংবাদিকতায় দৃষ্টান্ত স্থাপন করেছে এবিপি আনন্দ, এই ভাষাতেই এবার বাংলার অন্যতম প্রধান সংবাদমাধ্যমের তীব্র সমালোচনা করলেন মেঘালয়ের রাজ্যপাল তথাগত রায়। অভিযোগ করলেন, সত্য উপস্থাপিত করছে না আনন্দবাজার পত্রিকা তথা এবিপি আনন্দ গোষ্ঠী।
কখনও হিন্দি ভাষার পক্ষে সওয়াল করতে গিয়ে বাঙালি সম্পর্কে কুরুচিকর বার্তা, কখনও পশ্চিমবঙ্গে থেকে কেন ইস্টবেঙ্গল ক্লাবকে সমর্থন করা হবে, প্রশ্ন তুলেছেন তথাগত রায়। মুখ্যমন্ত্রী মমতা ব্যানার্জির ‘জয় বাংলা’ স্লোগানের সমালোচনা করেছেন, আবার ‘জয় শ্রীরাম’ ধ্বনির সমালোচনা করায় নোবেলজয়ী অর্থনীবিদ অমর্ত্য সেনকে কটাক্ষ করেছেন। রাজ্যপালের সাংবিধানিক আসনে বসেও রাজনীতি নিয়ে তাঁর সরব হওয়া কতটা যুক্তিযুক্ত তার প্রশ্ন উঠেছে বারবার। সমালোচনা হয়েছে। যদিও সে সবের তোয়াক্কা করেননি রাজ্য বিজেপির প্রাক্তন সভাপতি তথাগত রাত। এবার তার আক্রমণ বাংলার সবচেয়ে জনপ্রিয় সংবাদমাধ্যম এবিপি আনন্দর বিরুদ্ধে।
মঙ্গলবার নিজের ভেরিফায়েড ট্যুইটার হ্যান্ডেল থেকে এবিপি আনন্দের বিরুদ্ধে পক্ষপাতমূলক খবর ছড়ানোর অভিযোগ তুলেছেন তথাগত। তাঁর এও অভিযোগ, এবিপি আনন্দ আসলে সমালোচানামূলক সংবাদকে আড়াল করে রাখে। ঠিক কী অভিযোগ করেছেন তিনি?

মেঘালয়ের রাজ্যপাল সংশ্লিষ্ট ট্যুইটে লিখেছেন, বাংলা টিভি চ্যানেল এবিপি আনন্দ পক্ষপাতমূলক খবর ছড়ানো এবং সমালোচনামূলক সংবাদকে দমন করার ক্ষেত্রে দৃষ্টান্ত স্থাপন করেছে। এখানেই থামেননি তথাগত।
তিনি লেখেন, এই চ্যানেল দর্শকদের ভুয়ো গুজব না ছড়ানোর বার্তা দিচ্ছে। কেউ যদি বুঝতে পারেন, একটি খবর মিথ্যা তবে অবশ্যই তিনি তা ছড়াবেন না। কিন্তু তা সত্যি না কি গুজব, তা কীভাবে কেউ বুঝবেন? এবিপি আনন্দ-কে কটাক্ষ তথাগত রায়ের। এরপর নিজের ট্যুইটের কমেন্ট বক্সে পক্ষপাতিত্ব করার অভিযোগ নিয়ে বিভিন্ন সংবাদমাধ্যমের আর্টিকেলের সঙ্গে আনন্দবাজার ডিজিটালের খবরের লিঙ্ক শেয়ার করেন তথাগত।

Comments
Loading...