মোদীকে নিয়ে মানুষের মোহভঙ্গ হয়েছে, মধ্য প্রদেশ, ছত্তিশগড়, রাজস্থানে জিতবে কংগ্রেসঃ শশী থারুর

বিজেপি সরকার ও নরেন্দ্র মোদী সম্পর্কে দেশের জনগণের ‘মোহমুক্তি’ ঘটেছে। মোদী তাঁর প্রতিশ্রুতি মতো কাজ করতে পারেননি বলে দাবি করলেন কংগ্রেস নেতা শশী থারুর। শুক্রবার, বেঙ্গালুরুতে নিজের লেখা বই, ‘দ্য প্যারাডক্সিকাল প্রাইম মিনিস্টার : নরেন্দ্র মোদী অ্যান্ড হিজ ইন্ডিয়া’-এর প্রচারে এসে বই থেকে কয়েক পৃষ্ঠা পড়ে শোনান তিনি। থারুর বলেন, দেশের মানুষ নিজেদের ভুল বুঝতে পেরেছেন। তাঁরা জাতি ও ধর্মের বিভেদ তৈরি করতে বা গো-রক্ষকদের জন্য মোদী সরকারকে ক্ষমতায় আনেনি। দেশের মানুষ মোদীকে ক্ষমতায় এনেছিলেন যে সমস্ত কারণে, তার একটিও তিনি পূরণ করতে পারেননি। উল্টে দেশে ধর্মের নামে এক অরাজকতার সৃষ্টি হয়েছে।
আত্মপ্রত্যয়ী শশী বলেন মধ্য প্রদেশ, রাজস্থান এবং ছত্তিশগড়ে বিজেপিকে হারিয়ে আবার চালকের আসনে বসতে চলছে কংগ্রেস। তেলেঙ্গানা এবং মিজোরাম নিয়েও একইরকম আশাবাদী থারুর। মোদীর প্রতি জনগণের ধারণা পালটে গিয়েছে বলে মন্তব্য করেন তিনি।
কেরলের সাবরীমালার ইস্যুতে বিজেপির ভূমিকার কড়া সমালোচনা করে কংগ্রেস নেতা থারুর বলেছেন, ‘হিংসাত্মক আন্দোলন’কে কোনওভাবেই সমর্থন করেন না তিনি। শশী বলেন, সুপ্রিম কোর্টের বিধানকে সম্মান করা উচিত সব রাজনৈতিক দলের। যদিও সাবরীমালা ইস্যুতে বিজেপির সঙ্গে যোগসাজশ রয়েছে সে রাজ্যের কংগ্রেস নেতৃত্বের বলে অভিযোগ করেছিলেন কেরলের সিপিএম মুখ্যমন্ত্রী পিনারাই বিজয়ন। শশী থারুর বলেন, সাবরীমালা ইস্যুতে আদালতের নির্দেশ যথাযথ মনে না হলে বিল আনুক বিরোধীরা। হিংসাত্মক পন্থা অবলম্বন করে কোনও সমস্যার সমাধান হয় না বলে তিনি মনে করেন। এর আগেও বিজেপি ও আরএসএসকে কটাক্ষ করে শশী থারুর মন্তব্য করেছিলেন, মন্দিরের পবিত্রতা নষ্ট করছে তারা।
অগস্ত-ওয়েস্টল্যান্ড চপার কাণ্ডে কংগ্রেস নেতাদের নাম জড়ানো নিয়ে মুখ খোলেন থারুর। চপার কাণ্ডে ব্রিটিশ দালাল ক্রিশ্চিয়ান মাইকেলের সঙ্গে জড়িত থাকার জন্য দল থেকে আলজো কে যোসেফকে বহিষ্কার করা হয়। থারুর সেই উদাহরণ টেনে বলেন, এতেই ইঙ্গিত রয়েছে কংগ্রেস এইরকম কোনও ঘটনায় জড়িতদের সঙ্গে কোনও আপোষ করে না।
উল্লেখ্য, কয়েকদিন আগেই শশী থারুরের নন-ফিকশন, ‘দ্য প্যারাডক্সিক্যাল প্রাইম মিনিস্টার’-এর প্রকাশ অনুষ্ঠানে উপস্থিত ছিলেন প্রাক্তন প্রধানমন্ত্রী ডঃ মনমোহন সিংহ, প্রাক্তন কেন্দ্রীয় মন্ত্রী পি চিদম্বরম এবং অরুণ শৌরি। এই বইতে মোদী সরকারের বিদেশ নীতি থেকে প্রতিবেশী দেশগুলির সঙ্গে সম্পর্ক- একের পর এক বিষয় নিয়ে সমালোচনা করেছেন থারুর। তাঁর বই নিয়ে শশী থারুর বলেছেন, তাঁর সমালোচনা ‘ফ্যাক্টস অ্যান্ড ফিগার’-এর ওপর ভিত্তি করে, কোনও মনগড়া বিষয়কে উপস্থাপিত করেননি তিনি।

Comments
Loading...