রাজ্যের উন্নয়ন ঢাকতে চলছে ভুয়ো খবরের কারবার, অমিত মালব্যকে আক্রমণ তৃণমূলের

বিধানসভা ভোটকে সামনে রেখে সোশ্যাল মিডিয়ায় ঝড় তুলতে কলকাতায় চলে এসেছেন বিজেপির আইটি সেলের প্রধান অমিত মালব্য। আর তার পরের দিনই সোশ্যাল মিডিয়ায় ‘ভুয়ো খবর’ প্রচারের বিরুদ্ধে সাংবাদিক বৈঠক করল তৃণমূল। 

মঙ্গলবার তৃণমূল ভবনে সাংবাদিক বৈঠক করেন মন্ত্রী শশী পাঁজা ও রাজ্যসভার সাংসদ নাদিমূল হক। সেখান থেকে শশী পাঁজা বলেন দিন দিন ভুয়ো খবরের প্রবণতা বেড়ে চলেছে। বিভ্রান্তিকর খবর বনাম বাস্তব চিত্র তুলে ধরতেই এই সাংবাদিক বৈঠক। তিনি জানান, এবার থেকে সপ্তাহের বেশিরভাগ দিনই এমন সাংবাদিক বৈঠক করবে তৃণমূল। যার মূল উদ্দেশ্য, সরকারের উন্নয়নমূলক কাজ তুলে ধরা এবং ভুয়ো ছবি ও ভিডিওর বিরুদ্ধে মানুষকে সজাগ করা।

দিলীপ ঘোষরা যখন দাবি করছেন অমিত মালব্য কলকাতায় আসায় বিজেপির ভার্চুয়াল প্রচার আরও শক্তিশালী হবে তখন, রাজ্যের উন্নয়নমূলক প্রচার চালাতে প্রায় প্রতিদিনই সাংবাদিক বৈঠক করবে তৃণমূল। ভুয়ো খবর ছড়ানো বন্ধ করতে বাংলার সংবাদমাধ্যমকে বড়ো ভূমিকা নিতেও আবেদন জানিয়েছেন শশী পাঁজা।

তাঁর কথায়, রাজ্যের উন্নয়নমূলক কাজের প্রচার ঢেকে দিচ্ছে কিছু ফেক নিউজ। এদিন মূলত মহিলা ক্ষমতায়নে সহায়ক রাজ্যের বিভিন্ন প্রকল্প ও কাজের তথ্য তুলে ধরেন রাজ্যের নারী ও শিশুকল্যাণ মন্ত্রী। তিনি জানান, নারী ক্ষমতায়নে দেশের মধ্যে শীর্ষে বাংলা। তৃণমূল সরকারের আমলে স্বাস্থ্যসাথী প্রকল্প, রাজ্যজুড়ে তৈরি হওয়া ৪৮ টি মহিলা পরিচালিত থানা, রুপশ্রী ও কন্যাশ্রীর মতো প্রকল্পের সুবিধা ও সাফল্যের খতিয়ান তুলে ধরেন মন্ত্রী। 

শশী পাঁজা জানান, বার্ধক্য ভাতার মতো রাজ্য ও কেন্দ্রের এমন অনেক প্রকল্প আছে যেখানে বেশিরভাগ ব্যয় করে রাজ্য সরকার। কিন্তু প্রচার হয় না। বলেন, কেন্দ্রের একশো দিনের কাজের প্রকল্পে এ রাজ্যের সবচেয়ে বেশি মহিলা কাজ করেন। বিজেপি শাসিত রাজ্যগুলির দিকে নিশানা করে শশী পাঁজার দাবি, মহিলাদের বিরুদ্ধে অপরাধের ঘটনা অন্যান্য রাজ্যের থেকে এখানে অনেক কম।

Comments
Loading...